ফাইল ফটো: ইংলিশ চ্যানেল থেকে উদ্ধার করা একদল অভিবাসী | ছবি: রয়টার্স
ফাইল ফটো: ইংলিশ চ্যানেল থেকে উদ্ধার করা একদল অভিবাসী | ছবি: রয়টার্স

যুক্তরাজ্য সরকার জানিয়েছে যে অনিয়মিত অভিবাসীদের মধ্যে প্রথম ধাপে যাদের রুয়ান্ডা পাঠানো হবে তাদেরকে চলতি সপ্তাহে আনুষ্ঠানিকভাবে চিঠি দেয়া হবে৷

‘‘অবৈধ অভিবাসীদের মধ্যে যাদের যুক্তরাজ্যে থাকার কোনো অধিকার নেই তাদের প্রথম দলকে রুয়ান্ডা পাঠিয়ে দেয়ার ব্যাপারে চলতি সপ্তাহে অবহিত করা হবে,’’ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে যুক্তরাজ্য সরকার৷ 

এতে আরো উল্লেখ করা হয়েছে, ‘‘যাদের নোটিশ পাঠানো হবে তাদের মধ্যে ইংলিশ চ্যানেল পাড়ি দিয়ে যুক্তরাজ্যে প্রবেশ করা অভিবাসীরা রয়েছেন৷’’ এরকম নোটিশ যাদের দেয়া হবে তাদেরকে যুক্তরাজ্য থেকে অন্যদেশে ফেরত পাঠানোর জন্য আটকের ক্ষমতা দেশটির রয়েছে৷ 

যুক্তরাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রীতি পাটিল জানিয়েছেন যে নোটিশ পাঠানোর বিষয়টি পুরো প্রক্রিয়ায় প্রাথমিক ধাপ এবং ‘‘ব্রিটেনের অর্থনীতি, আইন এবং সীমান্তের উপর পুনরায় নিয়ন্ত্রণ নিতে’’ ব্রিটিশ ভোটাররা যাদের ভোট দিয়েছেন তারা তাদের সেই প্রত্যাশা পূরণে পিছপা হবে না৷ 

 

ব্রিটিশ সরকার গতমাসে রুয়ান্ডা পরিকল্পনা ঘোষণা করে৷ মূলত যেসব অভিবাসী অন্যকোনো নিরাপদ রাষ্ট্র হয়ে ব্রিটেনে প্রবেশ করেছে তাদেরকে একটি বার্তা দেয়া হচ্ছে এই পরিকল্পনার মাধ্যমে৷ আর তাহচ্ছে অন্য কোনো নিরাপদ রাষ্ট্র হয়ে ব্রিটেনে প্রবেশ করলে আশ্রয় নাও পাওয়া যেতে পারে৷ কেননা অভিবাসীরা যেসব নিরাপদ রাষ্ট্র হয়ে ব্রিটেনে প্রবেশ করছেন সেসব রাষ্ট্রেও আশ্রয় চাইতে পারতেন৷ 

এধরনের আশ্রয়প্রার্থীদের আশ্রয়ের আবেদন যাচাইবাছাইয়ের সময় তাদেরকে ব্রিটেন থেকে ছয় হাজার ছয়শো কিলোমিটার দূরে রুয়ান্ডায় রাখা হবে৷  

তবে, যাদের নোটিশ পাঠানো হবে তাদের খুব শীঘ্রই যুক্তরাজ্য থেকে রুয়ান্ডায় পাঠানো হয়ত সম্ভব হবে না৷ ব্রিটিশ সরকার ইতোপূর্বে জানিয়েছিল যে এরকম প্রথম ফ্লাইটটি মে মাসের শেষ নাগাদ যুক্তরাজ্য ত্যাগ করতে পারে৷ 

কিন্তু এখন কর্তৃপক্ষ মনে করছে নোটিশ পাওয়াদের আইনি অধিকার নিশ্চিত করতে সময় লাগবে এবং সেক্ষেত্রে রুয়ান্ডায় পাঠানোর প্রথম ফ্লাইট যেতে কয়েকমাস সময় লেগে যেতে পারে৷ 

এআই/কেএম

 

অন্যান্য প্রতিবেদন