ইল দ্য ফ্রন্সঁ বিভাগের অধীনে সেইন্ট ডেনিস ডিপার্টমেন্টের একটি অস্থায়ী শরণার্থী ক্যাম্পের ছবি, যেখানে প্রায় দুই হাজার অভিবাসী আছেন। ছবি: মেহেদি শেবিল।
ইল দ্য ফ্রন্সঁ বিভাগের অধীনে সেইন্ট ডেনিস ডিপার্টমেন্টের একটি অস্থায়ী শরণার্থী ক্যাম্পের ছবি, যেখানে প্রায় দুই হাজার অভিবাসী আছেন। ছবি: মেহেদি শেবিল।

মে ২০২১ থেকে, প্রেফেকচুর দ্যু পুলিশ প্যারিসের প্রাক্তন মহাপরিচালক জুলিয়ে মারিওঁ ইল-দ্য-ফ্রন্সঁ বিভাগে নতুন সৃষ্ট অভিবাসন প্রতিনিধি বা প্রেফে দেলেগে হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন। তিনি ইল-দ্য-ফ্রন্সঁ বিভাগের আওতাধীন সকল প্রশাসনিক আটক কেন্দ্র বা ডিটেনশন সেন্টার (সিআরএ) পরিচালনার জন্য দায়িত্বে থাকবেন।

বুধবার নতুন সৃষ্ট এই পদের প্রতিনিধি হিসেবে জুলিয়ে মারিওঁকে অনুমোদন দেয় ফরাসি মন্ত্রী পরিষদ। তিনি মূলত প্যারিস পুলিশের মহাপরিচালক দিদিয়ের লালমোর সাথে অভিবাসন প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করবেন।

জুলিয়ে মারিওঁ ২ মে থেকে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ইল-দ্য-ফ্রন্সঁ বিভাগের অভিবাসন প্রবাহ পরিচালনার কাজ তাকে সমন্বয় করতে হবে, যেটি এই বিভাগের জন্য খুব বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ। 

প্রেফেকচুর দ্যু পুলিশ (পিপি) এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, ৫০% জাতীয় পর্যায়ে রাজনৈতিক আশ্রয় আবেদন, ৪০% আবাসনের অনুমতি প্রদানের প্রথম আবেদন এবং জাতীয় পর্যায়ে ৩০% অবৈধ অভিবাসনের আবেদন এই অঞ্চল থেকেই উঠে আসে।

নতুন দায়িত্বপ্রাপ্ত এই প্রতিনিধি বিগত সময়ে প্রেফেকচুর দ্যু পুলিশ (পিপি ) প্যারিসের মহাপরিচালক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। অবশ্য প্রশাসনিক সংস্কারের কারণে প্যারিস পুলিশের সদর দপ্তরে এই পদটি বিলুপ্ত করা হয়েছে। তিনি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় (২০০৪-২০০৭) এবং স্বাস্থ্য ও ক্রীড়া (২০০৭-২০১০) মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেছেন।

ডিটেনশন সেন্টার বা সিআরএ ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব 

নতুন সৃষ্ট এই পদের ভূমিকা এবং দায়িত্ব কী হবে, তা নিয়ে শুরু থেকে বিভিন্ন এনজিও এবং অভিবাসীদের মধ্যে আলোচনা চলছিল। এই পদের দায়িত্ব এবং লক্ষ্য নিয়ে ফরাসি দৈনিক লো পারিজিয়ান বেশ কিছু তথ্য প্রকাশ করেছে। পত্রিকাটির তথ্য অনুযায়ী, দিদিয়ের লালমো’র অধীনে জুলিয়ে মারিওঁ বিশেষত ইল-দ্য -ফ্রন্সঁ বিচাগের সকল ডিটেনশন সেন্টার বা (সিআরএ) পরিচালনার দায়িত্বে থাকবেন।

এর মধ্যে চারটি ডিটেনশন সেন্টার রয়েছে: সিআরএ ভাঁসেন, সিয়ারএ মেনিল-আমোলে, সিয়ারএ প্লাজির এবং সিআরএ পালেসো। এছাড়া ২০২৪ সালে চালু হতে যাওয়া নতুন সিআরএ সেইন এ মার্নের দায়িত্বও তিনি পালন করবেন।

জুলিয়ে মারিওঁ অবশ্য প্যারিস ও ইল-দ্য-ফ্রন্সঁ অঞ্চলের বিভিন্ন প্রান্তে থাকা অস্থায়ী শরণার্থী শিবিরগুলির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য দায়বদ্ধ থাকবেন না। এছাড়া, তিনি রেসিডেন্ট পারমিট বা বসবাসের অনুমতির আবেদন ও নবায়নের কোনো সিদ্ধান্ত নেবেন না। এক্ষেত্রে আগের মতো সংশ্লিষ্ট প্রেফেকচুরগুলি দায়িত্ব পালন করবে।

লো প্যারিজিয়ান আরো জানায়, জুলিয়ে মারিওঁ চাইলে বিদেশি পরিষেবা সম্পর্কিত সমস্ত অনুরোধের জন্য একটি একক ইমেল ঠিকানা চালু করতে পারবেন এবং বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে ফেইসবুক লাইভে অংশগ্রহণ করতে পারবেন। 

নটর ডাম এর পূর্বে ছোট কিওস্ক বা পত্রিকার দোকানকে বিদেশিদের থাকার অনুমতিপত্র বা রেসিডেন্ট কার্ড বিষয়ক একটি তথ্যকেন্দ্রে রূপান্তরিত করা হতে পারে, জানায় লো পারিজিয়ান।

 

এমএইউ/এসএস


 

অন্যান্য প্রতিবেদন