বিজয়ী ছবি। ছবিঃ ইউএনএইচসিআর/আনসা
বিজয়ী ছবি। ছবিঃ ইউএনএইচসিআর/আনসা

জাতিসংঘের অভিবাসন সংস্থা ইউএনআইচসিআর গ্রিসের স্কুল শিক্ষার্থীদের জন্য একটি চিত্রকলা প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছিলো। প্রতিযোগীদের মধ্যে ছিল এক এগারো বছরের এক সিরীয় শরণার্থী বালকও।

ইউএনএইচসিআর আয়োজিত এই প্রতিযোগিতার উদ্দেশ্য ছিল সংহতি, সাম্য ও ঐক্যের গুরুত্ব বোঝানো। এই সংস্থার গ্রিস কার্যালয় একটি বিবৃতিতে জানায় শিক্ষার্থীদের জন্য আয়োজিত এই প্রতিযোগিতার বিজয়ী হয়েছে এগারো বছর বয়সি ওমার।

গত ২৪ বছর ধরে আয়োজিত হয়ে আসছে এই প্রতিযোগিতা। এ বছরের প্রতিযোগিতার বিষয় ছিল 'জাতিসংঘের ৭৫: যে ভবিষ্যতের স্বপ্ন দেখি, তাই গড়ি'।

২০২০ সালের নভেম্বর থেকে ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত অনলাইনে অনুষ্ঠিত হয় এই প্রতিযোগিতা। ইউএনএইচসিআরের তথ্য অনুযায়ী, পাঁচশরও বেশি শিক্ষার্থী তাদের আঁকা ছবি পাঠিয়েছিলো। এদের মধ্যে প্রায় অর্ধেক শিক্ষার্থীই শরণার্থী পরিবারের।

বিজয়ী সামোসের শরণার্থী বালক

এগারো বছর বয়সি ওমার গ্রিসের সামোস দ্বীপের বাসিন্দা। 'স্বপ্ন দেখার অধিকার' শিরোনামের একটি ছবি এঁকেছিলো সে। ছবিতে পাহাড়ের ধারে বসে থাকা বালকটি তার প্রতিচ্ছবি৷ ছবির বালকটি পাহাড়ের ধারে বসে চেয়ে আছে দূর ভবিষ্যতের দিকে।

ছবির সাথে একটি বার্তাও লিখেছিল ওমার, যা গ্রিসের গণমাধ্যমে উঠে আসে। সেখানে সে লিখেছিল, "এই ছবিতে আমি নিজেকে খাদের ঢালের ঠিক পাশে বসিয়ে রেখেছি। এটাই একমাত্র জায়গা যেখানে গেলে আমি ভেতরে শান্তি অনুভব করি। যে শান্তি আমি সবখানে খুঁজি। এখানে বসে আমি আমার ও আমার পরিবারের ভবিষ্যতের কথা ভাবি। যে ভবিষ্যৎ আমাদের থেকে ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে। সিরিয়ায় যুদ্ধের কারণে আমাদের মতো আরো অনেকে যে ভবিষ্যৎ হারিয়েছেন।"

প্রতিযোগিতায় বিজয়ীরা পেয়েছে একটি করে ইলেক্ট্রনিক ট্যাবলেট, একটি কীবোর্ড, যা ল্যাপটপের মতো ব্যবহার করতে পারবে তারা।

এসএস/এপিবি (আনসা)

 

অন্যান্য প্রতিবেদন