তুরস্ক-ইরান সীমান্ত, ছবি সূত্রঃ এএফপি, গেটি ইমেজেস
তুরস্ক-ইরান সীমান্ত, ছবি সূত্রঃ এএফপি, গেটি ইমেজেস

এজিয়ান সাগর থেকে দুইশরও বেশি আফগান অভিবাসনপ্রত্যাশীবাহী একটি নৌকাকে তুরস্কের সীমান্তরক্ষীরা আটক করেছে।

ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশন বা আইওএম বুধবার জানিয়েছে, তুরস্কের সীমান্তরক্ষীরা দুইশ’রও বেশি আফগান অভিবাসনপ্রত্যাশীদের আটক করেছে। এজিয়ান সাগরে এই আফগান অভিবাসনপ্রত্যাশীরা একটি নৌকায় চেপে ইউরোপের পথে রওনা হয়েছিল বলে জানায় আইওএম ও তুরস্কের কর্তৃপক্ষ।

সীমান্তরক্ষীদের মতে, অভিবাসনপ্রত্যাশীদের গন্তব্য ছিল ইটালি। নৌকাটিতে ২৩১জনের মধ্যে বেশিরভাগই আফগানিস্তানের নাগরিক। এছাড়া, নৌকায় ছিল ইরিট্রিয়া, সিরিয়া, ইরান ও পাকিস্তানের নাগরিক।

অভিবাসনপ্রত্যাশীদের বহনকারী নৌকাটি যে দুই তুর্কি নাগরিক চালাচ্ছিলেন, তাদেরও আটক করেছে সীমান্তরক্ষী। সবাইকে বর্তমানে পশ্চিম তুরস্কের আয়ভাচিক শহরের একটি প্রত্যর্পণ কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

গত কয়েক সপ্তাহ ধরে, ইরান হয়ে তুরস্কে প্রবেশ করছেন বেশ কিছু আফগান অভিবাসনপ্রত্যাশী। আফগানিস্তানে নতুন করে সংঘাত শুরু হওয়ায় এই পথে বাড়ছে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের ভিড়। গত সপ্তাহেই তুরস্কের কর্তৃপক্ষের হাতে আটক হয়েছে এমন দেড় হাজার অভিবাসনপ্রত্যাশী।

বিশেষ পদক্ষেপ

ইরানের সাথে সীমান্তে এই আচমকা শরণার্থীদের ঢল ঠেকাতে বাড়তি পদক্ষেপ নিচ্ছে তুরস্ক। ২৬ জুলাই দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রী হুলুসি আকার বলেন, "ইরান সীমান্তে আমরা কড়াকড়ি বাড়াচ্ছি। নতুন করে নিরাপত্তা পরিষেবা ও সীমান্তরক্ষীদের মোতায়েন করা হয়েছে সেখানে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাথে মিলে আমরা আরো কিছু পদক্ষেপ নেয়ার বিষয়ে আলোচনা করছি।"

আফগানিস্তানে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পর থেকে বাড়ছে তালেবানদের তৎপরতা। ফলে, অভিবাসনপ্রত্যাশী আফগানদের পছন্দের গন্তব্য হয়ে উঠছে তুরস্ক। ইরান হয়ে তুরস্কের উদ্দেশে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের ভিড় বাড়ায় ইরান-তুরস্ক সীমান্তে এমার্জেন্সি বর্ডার সিকিউরিটি সিস্টেমস প্রজেক্ট চালু করেছে তুরস্ক।

এই প্রকল্পের আওতায় চলছে ট্রেঞ্চ খোঁড়ার কাজ। ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে ১১০ কিলোমিটার দীর্ঘ ট্রেঞ্চের কাজ। চলছে সীমান্ত বরাবর ১০৩টি উঁচু নজরদারি ভবন তৈরির কাজও।

এসএস/এপিবি (রয়টার্স, হুরিয়াত, আনাদোলু)

 

অন্যান্য প্রতিবেদন