অভিবাসীদের সমর্থনে পোল্যান্ড বর্ডার গার্ড সদর দপ্তরের সামনে গায়ে কাটাতার লাগিয়ে প্রতিবাদকারিদের বিক্ষোভ। ছবিঃ AP Photo/Czarek Sokolowski
অভিবাসীদের সমর্থনে পোল্যান্ড বর্ডার গার্ড সদর দপ্তরের সামনে গায়ে কাটাতার লাগিয়ে প্রতিবাদকারিদের বিক্ষোভ। ছবিঃ AP Photo/Czarek Sokolowski

বেশ কয়েকটি ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশ এবং বেলারুশের মধ্যে চলমান উত্তেজনার মাঝেই বুধবার দেশটির সীমান্তে আটকে পড়া অভিবাসীদের সহায়তায় হস্তক্ষেপ করতে পোল্যান্ড ও লাটভিয়া সরকারকে ইউরোপীয় মানবাধিকার আদালত (ইসিএইচআর)।

পোল্যান্ড, লিথুয়ানিয়া, এস্তোনিয়া এবং লাটভিয়া যৌথভাবে আফগান ও ইরাকি অভিবাসীদের অবৈধভাবে ইইউ সীমান্ত অতিক্রম করার সুযোগ দেয়ার জন্য বেলারুশকে অভিযুক্ত করে আসছে।

দেশগুলোর মতে, এটি বেলারুশিয়ান প্রেসিডেন্ট আলেকজান্ডার লুকাশেঙ্কোর একটি অপকৌশল। যাতে করে মে মাসের শেষে একটি ফ্লাইট থেকে সাংবাদিক রোমান প্রোটাসেভিচের গ্রেফতারের পর মিনস্কের বিরুদ্ধে ব্রাসেলস কর্তৃক আরোপিত নিষেধাজ্ঞার জবাব হিসেবে পার্শ্ববর্তী দেশগুলোর উপর চাপ সৃষ্টি করা যায়। 

ইসিএইচআর এর এই আহবানটি মূলত পোলিশ কমিটি ফর হিউম্যান রাইটসের অনুরোধের প্রেক্ষিতে করা হয়েছে। পোলিশ জাতীয় মানবাধিকার সংস্থা আটকে পড়া অভিবাসীদের জন্য অস্থায়ী ব্যবস্থা নিতে ইউরোপীয় মানবাধিকার আদালতকে অনুরোধ করেছিল। এর আগে চলতি সপ্তাহে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা (ইউএনএইচসিআর) ওয়ারশ’কে সীমান্ত থাকা অভিবাসীদের সহায়তা দেওয়ার জন্য আহবান জানিয়েছিল।

ইসিএইচআর’র আহবানে পোলিশ ও লাটভিয়ান কর্তৃপক্ষকে সমস্ত অভিবাসীদের খাবার পানি, খাদ্য, পোশাক, উপযুক্ত চিকিৎসা সেবা এবং সম্ভব হলে অস্থায়ী আশ্রয় দিতে বলেছে।

সীমান্তে অভিবাসীদের একট অস্থায়ী ক্যাম্প ঘিরে আছে পোলিশ বর্ডার গার্ডের সদস্যরা। ছবিঃ Maciej Luczniewski/NurPhoto
সীমান্তে অভিবাসীদের একট অস্থায়ী ক্যাম্প ঘিরে আছে পোলিশ বর্ডার গার্ডের সদস্যরা। ছবিঃ Maciej Luczniewski/NurPhoto


তবে আদালত স্পষ্ট করে বলেছে যে এই আহবানের ফলে পোল্যান্ড বা লাটভিয়া অভিবাসীদের তাদের দেশে স্থায়ী আশ্রয় দিতে বাধ্য নয়।


এ ব্যাপারে লাটভিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বা পোলিশ সরকারের মুখপাত্রের সাথে যোগাযোগ করা হলে তাদের পক্ষ থেকে কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।



এমএইউ/এআই 


 

অন্যান্য প্রতিবেদন