গ্রিসের লেসবোস দ্বীপের একটি খাদ্য বিতরণ ক্যাম্পের সামনে অপেক্ষমান আফগান শরণার্থীরা। ছবিঃ মেহেদী শেবিল/ইনফোমাইগ্রেন্টস
গ্রিসের লেসবোস দ্বীপের একটি খাদ্য বিতরণ ক্যাম্পের সামনে অপেক্ষমান আফগান শরণার্থীরা। ছবিঃ মেহেদী শেবিল/ইনফোমাইগ্রেন্টস

আফগানিস্তানের নতুন তালেবান সরকার ইউরোপ থেকে বহিষ্কৃত যে কোনো আফগান অভিবাসীকে গ্রহণ করবে এবং তাদের আদালতের মুখোমুখি করা হবে বলে একটি অস্ট্রিয়ান সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন তালেবান মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ।

অস্ট্রিয়ার রক্ষণশীল দল নেতৃত্বাধীন সরকার ইউরোপীয় ইউনিয়নে থাকা অনিয়মিত আফগান শরণার্থীদের ব্যাপারে কঠোর অবস্থান নিয়েছে। দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রথম দিকে জানিয়েছিলেন, অস্ট্রিয়ার উচিত প্রত্যাখ্যাত আশ্রয়প্রার্থীদের যত দ্রুত সম্ভব আফগানিস্তানে ফেরত পাঠানো।

অস্ট্রিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কার্ল নেহ্যামার পরবর্তীতে স্বীকার করেন, এটা আর সম্ভব নয়। কিন্তু তিনি প্রতিবেশী দেশগুলিতে "শরণার্থী নির্বাসন কেন্দ্র" স্থাপন করতে চান যেখানে এই আশ্রয়প্রার্থীদের রাখা হবে।

তালেবানের মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ ক্রোনেন সাইটুং পত্রিকাকে বলেন, “তার সরকার এই ধরনের নির্বাসিতদের গ্রহণ করতে ইচ্ছুক।” জার্মানি ও অস্ট্রিয়াতে রাজনৈতিক আশ্রয় প্রত্যাখাত হওয়া অথবা ইউরোপে অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িতদের ব্যাপারে তিনি বলেন, “হ্যাঁ, তাদেরকে ফিরিয়ে নেয়া হবে এবং আদালতে প্রস্তুত করা হবে।” 

তবে, এই আশ্রয়প্রার্থীদের ঠিক কোন কারণে আদালতে নিয়ে যাওয়া হবে বা সেখানে তাদের কী রায় হতে পারে সে বিষয়ে তিনি বিস্তারিত বলেননি।

এছাড়া, তিনি ইসলামী আইন বা শরিয়ার কাঠামোর মধ্যে নারীর অধিকারকে সম্মান করার জন্য তার সরকারের প্রতিশ্রুতির পুনরাবৃত্তি করেন।

জবিউল্লাহ আরও বলেন, "আমরা শরিয়ার অধীনে নারীদের যে সমস্ত অধিকার পাওয়ার কথা, তা সুরক্ষিত করব। আমরা নারীদের ইসলামী অধিকার প্রদান করব, শিক্ষা নিশ্চিত করব এবং কাজের জন্য কিছু শর্ত তৈরি করব। এ সকল কর্মকাণ্ড বাস্তবায়নের প্রক্রিয়াধীন আছে।"



এমএইউ/এসএস


 

অন্যান্য প্রতিবেদন