বিপুল অর্থ খরচে বেলারুশ সীমান্তে দেয়াল তোলার পরিকল্পনা করেছে পোল্যান্ড৷ ছবি: পিকচার অ্যালায়েন্স
বিপুল অর্থ খরচে বেলারুশ সীমান্তে দেয়াল তোলার পরিকল্পনা করেছে পোল্যান্ড৷ ছবি: পিকচার অ্যালায়েন্স

ইউরোপের পূর্ব সীমান্ত দিয়ে আসা অভিবাসনপ্রত্যাশীদের চাপ থামাতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের অর্থায়নে দেয়াল ও কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণ করতে চায় জার্মানি ও পোল্যান্ড৷ কিন্তু এজন্য নিজেদের তহবিল থেকে টাকা দিতে নারাজ ইইউ৷

বেলারুশ থেকে পোল্যান্ড পাড়ি দিয়ে প্রতি সপ্তাহেই ইউরোপে প্রবেশ করছেন হাজারো অভিবাসনপ্রত্যাশী৷ তাদের বড় অংশই আসছেন মধ্যপ্রাচ্য ও আফ্রিকা থেকে৷ জার্মান পুলিশের হিসাবে অক্টোবর থেকে শুরু করে গত সোমবার পর্যন্ত চার হাজার ২৪৬ জন অভিবাসী অনিয়মিত উপায়ে পোল্যান্ড হয়ে দেশটিতে প্রবেশ করেছেন৷ 

পোল্যান্ড সীমান্তের কাছে শনিবার জার্মান পুলিশ ১০ শিশুসহ ৩১ ইরাকিকে বহনকারী একটি ভ্যান আটক করে৷ পোলিশ বর্ডার গার্ড জানিয়েছে, শুক্রবার তারা ১৪ ‘পাচারকারীকে’ গ্রেপ্তার করেছে যারা তার আগের ২৪ ঘণ্টায় অভিবাসনপ্রত্যাশীদের বেলারুশ থেকে পোল্যান্ডে পাড়ি দিতে সহায়তা করেছে৷ 

নতুন পথ

ইউরোপের সঙ্গে সাম্প্রতিক সময়ে বেলারুশের প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্ডার লুকাশেঙ্কোর সম্পর্কের চরম অবণতি ঘটে৷ তার প্রেক্ষিতে লুকাশেঙ্কো সীমান্তে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের বাধা দেয়া দূরে থাক বরং আরো অভিবাসী যাতে আসে সেই সুযোগ করে দিচ্ছেন বলে অভিযোগ রয়েছে৷ পোল্যান্ডের সীমান্ত নিরাপত্তা কর্তৃপক্ষের হিসাব অনুযায়ী শুধু এই মাসেই বেলারুশ থেকে ১২ হাজার বারের বেশি সীমান্ত অতিক্রমের প্রচেষ্টা হয়েছে৷ গত সপ্তাহে উসনাজ গোর্নি শহরের সীমান্তবর্তী বেড়া ভেঙ্গে অভিবাসনপ্রত্যাশীরা ঢুকে পড়ার চেষ্টা করে৷ পরে নিরাপত্তারক্ষীরা তাদের লক্ষ্য করে টিয়ার গ্যাস ছোড়ে৷ সীমান্ত অতিক্রম করতে গিয়ে এখন পর্যন্ত আটজনের মৃত্যু ঘটেছে, অনেকে আশেপাশে জঙ্গলে আশ্রয় নিচ্ছেন৷ 

অভিবাসীদের নিয়ে বেলারুশে লুকাশেঙ্কো সরকারের অবস্থান জার্মানিসহ ইউরোপীয় ইউনিয়নের উদ্বেগ ক্রমাগত বাড়াচ্ছে৷ জার্মানির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হোর্স্ট সেহোফার জানিয়েছেন, আরো অভিবাসীদের ইউরোপের পথে ঠেলে দিতে বেলারুশ এমনকি মিশর, জর্ডান, ইরান, পাকিস্তান ও সাউথ আফ্রিকার নাগরিকদের ভিসার প্রয়োজনীয়তা বাতিল করেছে৷ এমন অবস্থায় জার্মানি পোল্যান্ডের সঙ্গে সীমান্ত নিয়ন্ত্রণের চিন্তা করছে বলে রোববার জানিয়েছেন সেহোফার৷ সংকট মোকাবিলায় ৮০০ পুলিশ নিযুক্ত করা হয়েছে বলেও স্থানীয় বিল্ড পত্রিকাকে জানান তিনি৷ আইনগত প্রশ্নের কারণে পোল্যান্ডের সঙ্গে সীমান্ত বন্ধ করা সম্ভব নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন প্রয়োজনে সেখানে আরো শক্তি নিয়োগ করা হবে৷

অর্থ দিতে নারাজ ইইউ

পরিস্থিতি সামাল দিতে এরিমধ্যে বেলারুশ সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়া দিয়েছে পোল্যান্ড৷ কিন্তু সেটিও যথেষ্ট নয় বলে মনে করছে দেশটি৷ সীমান্তে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের বাধা দিতে ৩৫ কোটি ইউরো খরচে এখন দেয়াল তুলতে চায় তারা৷ সীমান্ত অতিক্রমের চেষ্টা পুরোপুরি থামানোর জন্য এমন দেয়ালের প্রয়োজনীয়তা দেখছেন জার্মান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও৷ কিন্তু দেয়াল নির্মাণের অর্থ কে বহন করবে সেটি বড় প্রশ্ন হয়ে দেখা দিয়েছে৷

ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডেয়ার লাইয়েন সাফ জানিয়ে দিয়েছেন বহিঃসীমান্তে কোন নতুন দেয়াল তোলা হলে তার জন্য টাকা দিবে না ইইউ৷ শুক্রবার ব্রাসেলসে সম্মেলনে দেয়া বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, কাঁটাতার বা দেয়াল কোন কিছুর জন্যই তারা অর্থায়ন করবেন না৷ 

অন্তত বেড়া ও ড্রোন নিযুক্ত করার কিছু ব্যয় যাতে বহন করা হয় সম্মেলনে সেই আবেদন জানিয়েছিল অস্ট্রিয়া৷ দেশটির চ্যান্সেলর বেলারুশের সাথে লিথুনিয়া সীমান্তেও দেয়াল তোলার প্রস্তাব দেন৷ বেলারুশ ও তুরস্কের মতো দেশগুলো যাতে অভিবাসনকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করতে না পারে সেজন্য ইউরোপের সীমান্তে প্রয়োজনীয় বাধা নির্মাণের পক্ষে গত মাসে প্রস্তাব করেছিল পোল্যান্ড, গ্রিস ও লিথুয়ানিয়াও৷ জোটের নীতিনির্ধারকরা অর্থায়নের এই প্রস্তাব বাতিল করলেও অভিবাসন পথগুলো নিয়ে কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে এবং ‘রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় পাচার’ এর বিরুদ্ধে নতুন নীতি কার্যকরে কয়েকশো কোটি ইউরো খরচের সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷

এফএস/কেএম 

 

অন্যান্য প্রতিবেদন