প্রতীকী  ছবি। ক্রেডিট - ইনফোমাইগ্রেন্টস
প্রতীকী ছবি। ক্রেডিট - ইনফোমাইগ্রেন্টস

সামাজিক মাধ্যমে কলা খাওয়ার ছবি পোস্ট করে তুরস্ক থেকে বহিষ্কৃত হচ্ছেন একদল সিরীয় শরণার্থী৷ তুরস্কের অভিবাসন কর্তৃপক্ষের দাবি, এমন ছবি দেওয়ার কারণে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে কারণ এটি দেশের অর্থনৈতিক দুরবস্থাকে উপহাস করার শামিল৷

তাই ঘটনার সাথে জড়িত সাত সিরীয় শরণার্থীকে আটক করে দেশে পাঠানোর প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে বলে জানানো হয়৷

বিশ্বে সবচেয়ে বেশি শরণার্থী বাস করছে তুরস্কে৷ দেশটির প্রেসিডেন্ট রেচেপ তাইয়্যিপ এর্দোয়ান জানান, তুরস্কে বর্তমানে শরণার্থীর সংখ্যা প্রায় ৪০ লাখ৷ 

শরণার্থীদের বেশিরভাগই সিরিয়া থেকে এসেছে৷ 

এদিকে অর্থনৈতিক দুরবস্থায় থাকা তুরস্কে প্রতিনিয়তই শরণার্থীবিরোধী মনোভাব গড়ে উঠছে৷ স্থানীয়দের দাবি, শরণার্থীদের জন্য তারা সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন৷ 

সিরীয় শরণার্থীদের কলা খাওয়ার ছবি সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে গত সপ্তাহে স্থানীয়দের অনেকেই প্রতিক্রিয়া দেখান৷  

‘‘তোমরা এখানে খুব আরামে আছ৷ আমি কলা খেতে পারি না৷ আর তোমরা কেজি কেজি কলা কিনছ,’’ ইস্তানবুলে ধারণকৃত ভিডিওতে এক স্থানীয় এভাবেই প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছিলেন৷ 

এরপর একজন নারীকেও দেখা যায় প্রতিক্রিয়া জানাতে৷ সে নারীর দাবি, সিরিয়ান শরণার্থীরা তুরস্কে অনেক ‘উন্নত জীবনযাপন’ করছে৷ তারা নিজের দেশে ফিরে গিয়ে যুদ্ধ করা উচিত বলেও মন্তব্য করেন ঐ নারী৷ 

দুই মাস আগে রাজধানী আঙ্কারায় সিরীয়দের একটি দোকান জ্বালিয়ে দিয়েছিল স্থানীয় কিছু উত্তেজিত জনতা৷ 

এরপর দেশটিতে বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন দাবি করে প্রতিবাদের আয়োজন করেন সিরীয় শরণার্থীরা৷ সেসময় তারা কলা খাওয়ার একটি ছবি সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশ করেছিল৷ 

আরআর/জেডএইচ (এএফপি)

 

অন্যান্য প্রতিবেদন