পোল্যান্ড-বেলারুশ সীমান্তে মারা গেছেন দশজন অভিবাসী | ছবি: পিকচার অ্যালায়েন্স
পোল্যান্ড-বেলারুশ সীমান্তে মারা গেছেন দশজন অভিবাসী | ছবি: পিকচার অ্যালায়েন্স

বেলারুশ-পোলিশ সীমান্তে আরো এক অভিবাসীর মৃত্যু হয়েছে৷ এই নিয়ে গত গ্রীষ্ম থেকে এখন অবধি সেখানে অভিবাসী মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো দশজনে৷ সর্বশেষ নিহত ইরাকির মরদেহ সীমান্তের কোন পাশ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে তা নিয়ে চলছে বিতর্ক৷

বেলারুশ থেকে পোল্যান্ডে প্রবেশের চেষ্টার সময় ২৯ অক্টোবর এক ইরাকি নাগরিকের মৃত্যু হয়েছে৷ বেলারুশের সীমান্তরক্ষীদের বিবৃতি এবং ফরাসি বার্তাসংস্থা এএফপির দেয়া তথ্য অনুযায়ী, সীমান্তের পোলিশ অংশ অভিবাসীর মৃত্যু হয়েছে৷ 

বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে, পোল্যান্ডের সীমান্তরক্ষীরা ‘‘মৃতের মরদেহ টেনে বেলারুশ সীমান্তে নিয়ে যেতে অন্য অভিবাসীদের বাধ্য করেছে’’৷ 

তবে, পোলিশ সীমান্তরক্ষীরা দাবি করেছে, ‘‘সীমান্তের পোল্যান্ডের অংশে এরকম কিছু ঘটলে তা সীমান্তরক্ষীদের জানার কথা৷’’

অধিকাংশ মরদেহ পোল্যান্ডে পাওয়া গেছে 

পোলিশ সংবাদপত্র গাজেটা ভেবর্কশা লিখেছে, এখন পর্যন্ত মৃত ১০ অভিবাসীর মধ্যে সাতজনের মরদেহ সীমান্তের পোল্যান্ডের অংশে পাওয়া গেছে৷ 

এএফপি এই বিষয়ে পোল্যান্ডের সীমান্তরক্ষা কার্যালয়ের কাছে বক্তব্য চাইলেও তা পায়নি৷ 

শীত বাড়ায় হাইপোথারমিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছেন অনেক অভিবাসী | ছবি: রয়টার্স
শীত বাড়ায় হাইপোথারমিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছেন অনেক অভিবাসী | ছবি: রয়টার্স


সীমান্তে ঝুঁকি 

অ্যাক্টিভিস্টরা জানিয়েছেন, পোল্যান্ড এবং বেলারুশ সীমান্তের অধিকাংশ অঞ্চল জঙ্গলে ঘেরা যা ঠাণ্ডা এবং ঝুঁকিপূর্ণ৷ অভিবাসীদের কয়েকজন সেখানকার নদী বা জলাবদ্ধ এলাকা পাড়ি দিতে গিয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন৷  

বাকিরা ক্লান্তি এবং ঠাণ্ডার কারণে মারা গেছেন৷ সীমান্তবর্তী শহরগুলোতে এখন তাপমাত্রা রাতের বেলা শূণ্য ডিগ্রির কাছাকাছি পৌঁছে যায়৷ ফলে জঙ্গল আর খোলা জায়গার পরিস্থিতি যে আরো করুণ তা সহজেই অনুমেয়৷  

জার্মানিতে আসছেন অভিবাসীরা

রয়টার্সের এক সাম্প্রতিক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে যে কিছু অভিবাসী সীমান্ত অঞ্চলে পৌঁছাতে গিয়ে তাদের পায়ের জুতা হারিয়েছেন৷ অনেকের কাছে শীতের কাপড় নেই৷ ফলে তাদের পক্ষে খোলা জায়গায় বা জঙ্গলে দিনের পর দিন টিকে থাকা অত্যন্ত কঠিন ব্যাপার৷ অভিবাসীদের মধ্যে কেউ কেউ হাইপোথারমিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন৷  

জার্মান কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে শুধু অক্টোবরেই পোল্যান্ড সীমান্ত পেরিয়ে পাঁচ হাজার ২৮৫ জন অনিয়মিত অভিবাসী জার্মানিতে পৌঁছেছেন যারা বেলারুশ হয়ে ইউরোপে প্রবেশ করেছেন৷ চলতি বছরে এভাবে জার্মানিতে পৌঁছানো মোট অভিবাসীর সংখ্যা সাত হাজার ৮৩২ জন৷ 

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সীমান্তে তল্লাশি বাড়িয়েছে জার্মান পুলিশ৷ ফলে প্রতিদিনই বিভিন্ন যানবাহনে ১০ থেকে শতাধিক অভিবাসীর সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে যারা কোনোরকম অনুমতি ছাড়াই জার্মানিতে প্রবেশ করছেন৷ 

এআই/কেএম (এএফপি, রয়টার্স, ডিপিএ)

 

অন্যান্য প্রতিবেদন