ফ্রান্সের উত্তরে ভিমুরু সৈকতে ফেলে যাওয়া চ্যানেল পাড়ি দিতে ব্যবহৃত দু'টি ছোট নৌকা। ছবিঃ মেহেদী শেবিল/ইনফোমাইগ্রেন্টস
ফ্রান্সের উত্তরে ভিমুরু সৈকতে ফেলে যাওয়া চ্যানেল পাড়ি দিতে ব্যবহৃত দু'টি ছোট নৌকা। ছবিঃ মেহেদী শেবিল/ইনফোমাইগ্রেন্টস

ঝুকিপূর্ণ চ্যানেল পারাপার থেকে অভিবাসীদের বাঁচাতে ফরাসি কোম্পানি ডেকাথলন তাদের বেশ কিছু স্টোর থেকে ছোট আকারের কায়াক নৌকা বিক্রি প্রত্যাহার করে নিয়েছে। অভিযোগ, পাচারকারীরা বিপুল পরিমাণে কায়াক কিনে অভিবাসীদের চ্যানেল অতিক্রম করে যুক্তরাজ্যে পাঠাতে ব্যবহার করে। এ উদ্যোগকে "মানবতাবাদী" আখ্যা দিয়ে স্বাগত জানিয়েছেন গ্রন্দ-সান্থের মেয়র ।

চ্যানেল পার হতে কায়াক নৌকার ব্যবহার রোধ করতে ফ্রান্সের উত্তরের পা-দ্য-কালে এবং গ্রন্দ-সান্থ অঞ্চলের সব শোরুম থেকে কায়াক বিক্রি থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে বলে একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়েছে ফরাসি রিটেইল চেইন ডেকাথলন।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, "অভিবাসীরা যেসব ঝুঁকি নিয়ে চ্যানেল পাড়ি দেয় সেগুলোই আমাদের বিভিন্ন স্টোর থেকে কায়াক বিক্রি প্রত্যাহারে যথেষ্ট৷ কারণ এসব পণ্যের সাহায্যেই তারা মূলত ঝুঁকিগুলো নিয়ে থাকে।” 

ডেকাথলনের প্রেস সার্ভিস এএফপিকে জানিয়েছে, "বর্তমান প্রেক্ষাপটের প্রতিক্রিয়ায় আর কায়াক কেনা সম্ভব হবে না। এই পণ্যগুলো বিভিন্ন শো রুমের খেলাধূলার বিভাগ থেকে সরানো হয়েছে কারণ সেগুলোর উপযুক্ত ব্যবহার না করে চ্যানেল ক্রসিংয়ের জন্য ব্যবহার করা হচ্ছিল। যেটি এসব বিক্রির মূল লক্ষ্যের সম্পূর্ণ বিপরীত"।

সফ্রান্সের উত্তরের শহর বুলন সুর মের এবং লো তোকেতে অবস্থিত ডেকাথলনের অন্যান্য দোকানগুলির ক্ষেত্রেও এই সিদ্ধান্তের প্রভাব পড়বে বলে জানানো হয়েছে।

ক্রীড়া সামগ্রী বিক্রিতে শীর্ষে অবস্থান করা এই ফরাসি প্রতিষ্ঠান তাদের এই বিশেষ সিদ্ধান্তের পক্ষে যুক্তি দিয়ে আরও জানায়, এসব পণ্য ব্যবহার করে চ্যানেল পারাপারে মানুষের জীবন বিপন্ন করার পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। 

বিভিন্ন শোরুমে কায়াক বিক্রি স্থগিতের সিদ্ধান্ত প্রতিষ্ঠানের আইনী কাঠামো অনুযায়ী নেয়া হয়েছে বলে জানায় তারা।  

গ্রন্দ-সান্থের মেয়র মার্শাল বেয়ার্ট এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন। তিনি ফরাসি টিভি বিএফম কে বলেন, "আমি ডেকাথলনের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাই। কারণ তারা অভিবাসীদের জীবনের মানবিক দিক বিবেচনা করে কায়াক বিক্রি প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বেশিরভাগ অবৈধ পারাপারে বোট, নৌকা এবং কায়াক ব্যবহৃত হয়।"

অনেক অভিবাসী প্রতিদিন বিপজ্জনক পরিস্থিতিতে ইংলিশ চ্যানেলের মাধ্যমে ইংল্যান্ডে পৌঁছানোর চেষ্টা করে। প্রায়শই তাদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে, প্লাস্টিকের ডিঙি, জেট স্কি বা কায়াকের মতো পারাপারের জন্য অনুপযুক্ত নৌকাগুলিতে চড়ে তারা চ্যানেল পাড়ি দিতে চেষ্টা করেন।


এমএইউ/এসএস


 

অন্যান্য প্রতিবেদন