লিবিয়া কর্তৃপক্ষের হুমকির মুখে সি-ওয়াচ ফোর।. ছবি : সি-ওয়াচ ইন্টারন্যাশনাল
লিবিয়া কর্তৃপক্ষের হুমকির মুখে সি-ওয়াচ ফোর।. ছবি : সি-ওয়াচ ইন্টারন্যাশনাল

ভূমধ্যসাগরে অভিবাসী উদ্ধারে নিয়োজিত জাহাজ সি-ওয়াচ ফোরকে হুমকি দিলো লিবিয়ার সাগর সীমান্তরক্ষীরা। গত সপ্তাহান্তে আন্তর্জাতিক জলসীমানায় ভাসমান এই জাহাজকে সরে যেতে নির্দেশ দেয় লিবিয়া।

সি-ওয়াচ ফোরে কর্মরত স্বেচ্ছাসেবীদের সাথে লিবিয়ার সাগর সীমান্তরক্ষীদের একটি কথোপকথনের রেকর্ডিং টুইটারে প্রকাশিত হয়েছে, যেখানে জাহাজটিকে অবিলম্বে দিক পরিবর্তন করতে বলা হচ্ছিল। এমনকি সরে না গেলে জোর করে লিবিয়ায় নিয়ে যাওয়া হবে বলেও হুমকি দেয় তারা৷ 

প্রকাশিত কথোপকথনের রেকর্ডে লিবিয়ার সীমান্তরক্ষীরা সিওয়াচকে উদ্দেশ্য করে বলেন, "(...) তা নাহলে আমরা আপনাদের আমাদের সাথে লিবিয়ায় নিয়ে যাব৷ বুঝতে পারছেন তো? লিবিয়ার নিয়ম তো আপনারা জানেনই৷’’

এরপর দুইপক্ষের মধ্যে কিছুক্ষণ আলাপ চলতে থাকে৷ সীমান্তরক্ষীদের দাবি ছিল, সি-ওয়াচ ফোর যাতে ইঞ্জিন বন্ধ করে দেয়, নাহলে তারা জাহাজটির দিকে গুলি চালাতে দ্বিধা করবে না।

সি-ওয়াচের তরফে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নকে এর আগে বেশ কয়েকবার অনুরোধ করা হয়েছে যাতে তারা অবিলম্বে লিবিয়ার সাথে সব ধরনের সহযোগিতা ও একসাথে কাজ করা বন্ধ করে। ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের সাথে সি-ওয়াচের আলাপচারিতায় লিবিয়ায় ঘটে চলা মানবাধিকার লঙ্ঘন, অভিবাসীদের সাথে যৌন, শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের কথা উঠে এসেছে। এই তালিকায় এখন যুক্ত হলো আন্তর্জাতিক সাগরে উদ্ধারকর্মীদের হুমকি দেওয়ার অভিযোগও।

নোঙরের অপেক্ষায় সি-ওয়াচ

গত সপ্তাহা সমুদ্রে একাধিক উদ্ধার অভিযান শেষে বর্তমানে ৪৮২জন রয়েছেন সি-ওয়াচ ফোর জাহাজে। এই অভিবাসনপ্রত্যাশীদের নিরাপদ স্থানে নিয়ে যেতে এখন জাহাজটি নোঙরের অপেক্ষায়।

কিছু দিন আগে আরেকটি উদ্ধারকারী জাহাজ 'জিওব্যারেন্টস' ইটালির সিসিলি অঞ্চলের মেসিনা বন্দরে নোঙর করার অনুমতি পায়।

সি-ওয়াচ ফোরে অভিবাসনপ্রত্যাশী ছাড়াও এই মুহূর্তে দশজনের মরদেহ রয়েছে, যা এক সপ্তাহ আগে সাগরে ভাসমান একটি ডিঙি নৌকা থেকে উদ্ধার করা হয়।

এসএস/এফএস (ডিপিএ)

 

অন্যান্য প্রতিবেদন