ইংলিশ চ্যানেলের ফরাসি উপকুলের নিকটে অবস্থিত ইউরো টানেলের পাশে অভিবাসীদের একটি দল। ছবি; রয়টার্স
ইংলিশ চ্যানেলের ফরাসি উপকুলের নিকটে অবস্থিত ইউরো টানেলের পাশে অভিবাসীদের একটি দল। ছবি; রয়টার্স

কয়েকশ অনিয়মিত অভিবাসীকে ফ্রান্সের উত্তর উপকূল থেকে ব্রিটেনে পাচারের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে একটি নেটওয়ার্কের ১৫ জন সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে সোমবার পুলিশ সূত্রে জানিয়েছে এএফপি। গ্রেফতারকৃতরা সবাই একটি নেটওয়ার্কের সদস্য হলেও বিভিন্ন দেশের নাগরিক বলে জানা গেছে।

ইরাকি-কুর্দি, রোমানিয়ান, পাকিস্তানি এবং ভিয়েতনামিদের নিয়ে গঠিত এই মানব পাচার নেটওয়ার্কের সদস্যারা ফ্রান্সের উত্তরে গ্রন্দ সান্থ অঞ্চলের বিভিন্ন শিবিরে থাকা অভিবাসীদের সন্ধান করে পরবর্তীতে নৌকায় করে তাদেরকে যুক্তরাজ্যে পাড়ি দেয়ার ব্যবস্থা করেছিল। 

পাচারে ব্যবহৃত নৌকাগুলো চীন থেকে তুরস্ক এবং জার্মানি হয়ে ফ্রান্সের উত্তরে অবস্থিত উপকূলে নিয়ে আসা হয়েছিল। 

২০২০ সালের অক্টোবরে শুরু হওয়া একটি জরিপ অনুসারে, এই নেটওয়ার্কটি প্রতি মাসে কমপক্ষে ২৫০ জন বা চারটি ছোট আকারের নৌকায় অভিবাসীদের পাচার করেছে। এসব নৌকায় একবারে প্রায় ৬০ জনকে আনা যায়।

অনিয়মিত অভিবাসন দমন এবং নথিবিহীন বিদেশিদের কর্মসংস্থানের জন্য গঠিত সংস্থা (অক্রিয়েস্ট)’র তথ্য অনুসারে, পাচারকারীরা নৌকায় পাচার হওয়া ব্যক্তিদের প্রত্যেককে ব্রিটেনে পৌঁছানোর জন্য ছয় হাজার ইউরোর একটি প্যাকেজের প্রস্তাব দিয়েছিল। যার ফলে পাচারকারীরা প্রায় ৩ মিলিয়ন ইউরো সমমানের অর্থ লাভ করেছিল।

ডানকের্ক পাবলিক প্রসিকিউটর অফিসের নেতৃত্বে তদন্তের দায়িত্বে থাকা ওক্রিয়েস্টের প্রধান জেভিয়ের ডেলরিউ এএফপিকে জানিয়েছেন, "তদন্তের অগ্রগতির সাথে সাথে নেটওয়ার্কটিও ফুলে ফেঁপে বড় হয়ে ওঠে। এটি ড্রাইভার, আত্মগোপন করে থাকা চক্র এবং পুলিশের উপস্থিতি শনাক্তকারী লোকদের সমন্বয়ে একটি সংগঠিত অপরাধীদের নেটওয়ার্কে পরিণত হয়েছিল।"

মঙ্গলবার, ফরাসি পুলিশ দুটি বিশেষ শাখা বিআরই এবং রেইডের অভিযানে নেটওয়ার্কের সাথে জড়িত ১৫জনকে গ্রেপ্তার করা হয় এবং প্রায় চল্লিশ হাজার ইউরো নগদ অর্থ বাজেয়াপ্ত করা হয়।

ডানকের্ক পাবলিক প্রসিকিউটর অফিসের কাছে এএফপি তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তারা বিস্তারিত কিছু জানায়নি। 

চ্যানেল এবং উত্তর সাগরের ম্যারিটাইম প্রেফেকচুরের প্রধান ফিলিপ দুত্রিও জানান, বছরের শুরু থেকে এ পর্যন্ত যুক্তরাজ্যে অভিমুখে ৩১ হাজার পাঁচশটি পারাপারের প্রচেষ্টা লিপিবদ্ধ করা হয়েছে যার মধ্যে ৭,৮০০ অভিবাসীকে সমুদ্র থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

অবশ্য আগস্ট মাস থেকে উদ্ধার এবং যাত্রা দুইক্ষেত্রেই এই সংখ্যা দ্বিগুণ হয়েছে।


এমএইউ/এসএস




 

অন্যান্য প্রতিবেদন