(ফাইল ছবি) ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জের একটি বন্দরে অভিবাসীদের নামার দৃশ্য। ছবি: IMAGO/Agencia EFE
(ফাইল ছবি) ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জের একটি বন্দরে অভিবাসীদের নামার দৃশ্য। ছবি: IMAGO/Agencia EFE

স্প্যানিশ উদ্ধারকর্মীরা গত দুই দিনে ৪০০ জনেরও বেশি অভিবাসী এবং আশ্রয়প্রার্থীকে ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জের কাছে আটলান্টিক মহাসাগর থেকে উদ্ধার করেছেন। এসব ব্যাক্তিরা বেশ কয়েকটি ছোট ও অনিরাপদ নৌকায় পশ্চিম আফ্রিকা থেকে সাগর পাড়ি দিয়ে ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জে পৌঁছানোর চেষ্টা করেছিলেন।


স্পেনের মেরিটাইম রেসকিউ সার্ভিস মঙ্গলবার জানিয়েছে, উদ্ধারকর্মীরা উত্তর ও পশ্চিম আফ্রিকা থেকে আসা ১৩০ জনেরও বেশি মানুষকে উদ্ধার করেছে, যাদের মধ্যে বেশ কিছু নারী এবং ছোট শিশু রয়েছে। তাদেরকে স্প্যানিশ দ্বীপপুঞ্জ গ্রান্ড ক্যানারিয়া এবং ফুয়ের্তে ভেনতুরাতে নিয়ে আসা হয়েছে।সাগরে

দুর্দশাগ্রস্ত অভিবাসীদের জন্য মানবিক নেটওয়ার্ক হিসেবে পরিচিত ‘অ্যালার্ম ফোন’ মঙ্গলবার জানিয়েছে, সোমবার একটি পণ্যবাহী জাহাজ কিছু অভিবাসীকে সাগরে দেখতে পাওয়ার পর মরক্কোর রয়্যাল নেভিকে জানায়৷ এরপর উদ্ধারকারীরা সেখানে থাকা ২০ জন অভিবাসীকে উদ্ধার করেন। স্পেনের মেরিটাইম রেসকিউ সার্ভিস এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।


স্পেনের উদ্ধারকর্মীরা মরক্কোর কর্তৃপক্ষের উদ্বৃতি দিয়ে আরও জানিয়েছেন, অভিবাসীদের মধ্যে অন্তত একজন মারা গেছেন এবং অন্য একজন অভিবাসী নৌকা থেকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সাগরে নিখোঁজ হয়েছেন।

মরক্কো এবং স্পেনের মধ্যকার সীমান্ত। ছবি: ইনফোমাইগ্রেন্টস
মরক্কো এবং স্পেনের মধ্যকার সীমান্ত। ছবি: ইনফোমাইগ্রেন্টস


এছাড়া ২৪ জন অভিবাসী সাঁতরে মরক্কো উপকূলে ফিরে আসতে সক্ষম হয়েছে।

মরক্কো, পশ্চিম সাহারা, মৌরিতানিয়া, সেনেগাল এবং গাম্বিয়ার মানব পাচারকারিরাই মূলত পশ্চিম আফ্রিকা থেকে ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জের আটলান্টিক রুটটি ব্যাপকভাবে ব্যবহার করে থাকেন।  

চলতি বছর এখন পর্যন্ত ১৮,০০০ এরও বেশি মানুষ এইভাবে ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জে পৌঁছেছেন।

আটলান্টিক রুটটি ইউরোপে আসতে অনিরাপদ অভিবাসনের জন্য সবচেয়ে মারাত্মক পথ হিসেবে বিবেচিত। 

জাতিসংঘের অভিবাসন বিষয়ক সংস্থা (আইওএম) এই রুটি ২০২১ সালে প্রায় ৯০০ অভিবাসীর মৃত্যু এবং নিখোঁজ হওয়ার খবর দিয়েছে যদিও এটি নিশ্চিত যে প্রকৃত মৃত্যুর সংখ্যা অনেক বেশি। কারণ সাগরে ডুবে যাওয়া অভিবাসীদেরদের সম্পূর্ণ তথ্য পাওয়া বেশ কঠিন। 



এমএইউ/এআই (ওয়াশিংটন পোস্ট, এলার্ম ফোন)











 

অন্যান্য প্রতিবেদন