সীমান্ত পাড়ি দিয়ে ইউরোপে প্রবেশের চেষ্টা অভিবাসনপ্রত্যাশীদের৷ ছবি মার্কো ইউরিকা/রয়টার্স
সীমান্ত পাড়ি দিয়ে ইউরোপে প্রবেশের চেষ্টা অভিবাসনপ্রত্যাশীদের৷ ছবি মার্কো ইউরিকা/রয়টার্স

ক্রোয়েশিয়ার বিরুদ্ধে বসনিয়া-হ্যারৎসেগোভিনা সীমান্তে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের উপর নির্যাতনের অভিযোগ করেছে ইউরোপিয়ান কাউন্সিল৷

ইউরোপের দেশগুলোর এ কাউন্সিল ক্রোয়েশিয়া সরকারকে এমন আচরণের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানান৷ তাছাড়া এসকল ঘটনার তদন্ত করার আহ্বানও জানায় সংস্থাটি৷  

কাউন্সিলের একটি প্রতিনিধি দল গত বছরের আগস্ট মাসে ক্রোয়েশিয়া ও বসনিয়া-হ্যারৎসেগোভিনা সীমান্ত পরিদর্শন করেন৷ পরে সীমান্তে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের বিষয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে সংস্থাটি৷ এই প্রতিবেদনে ক্রেয়েশিয়া সরকারকে এমন আচরণ বন্ধের পদক্ষেপ নেওয়ার অনুরোধ জানানো হয়৷  

মারাত্মক শারীরিক নির্যাতন করা হয়

প্রতিবেদনে সীমান্তের দুপাশে অবস্থানরত অভিবাসনপ্রত্যাশীদের বরাত দিয়ে বলা হয়, সীমান্তের ক্রোয়েশিয়া অঞ্চলে অবস্থানরত অভিবাসনপ্রত্যাশীদেরকে পুলিশ মুখে চড় মারা, লাথি দিয়ে মাটিতে ফেলে দেওয়াসহ নানা শারীরিক নির্যাতন করে৷ তাছাড়া, তাদেরকে খালি পায়ে জঙ্গলের মধ্য দিয়ে হাঁটিয়ে বসনিয়া ফেরত পাঠানো ঘটনাও ঘটে৷ প্রচণ্ড শীতে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের শুধু অন্তর্বাস পরা অবস্থায় বসনিয়া পাঠানো হয়েছে, এমন তথ্যও পাওয়া গেছে৷   

অভিযোগ দীর্ঘদিনের

দীর্ঘদিন থেকেই ক্রোয়েশিয়ার বিরুদ্ধে বসনিয়া সীমান্তে শরণার্থী ও অভিবাসনপ্রত্যাশীদের উপর নির্যাতন চালানোর অভিযোগ রয়েছে৷ দেশটির বিরুদ্ধে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের প্রবেশে বাধা দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে৷ তাছাড়া আশ্রয় চাওয়ার আবেদন করার সুযোগ না দেওয়ার অভিযোগও রয়েছে৷ কিন্তু ইইউর ডাবলিন চুক্তি অনুযায়ী, অভিবাসনপ্রত্যাশীদেরকে আশ্রয়ের আবেদনের সুযোগ দেওয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে৷   

তবে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের বিরুদ্ধে নির্যাতনের এবং তাদেরকে সীমান্তে অপর পাড়ে ঠেলে দেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেছে ক্রোয়েশিয়া৷ তবে কোনো কোনো ক্ষেত্রে বল প্রয়োগের কথা স্বীকার করেছে দেশটি৷ আর গত অক্টোবরে বেশ কিছু অভিবাসনপ্রত্যাশীকে সীমান্তে ঠেলে দেওয়ার হয়েছে বলেও জানিয়েছে দেশটি৷

আরআর/এসএস (এএফপি)


 

অন্যান্য প্রতিবেদন