(ফাইল ছবি) এজিয়ান সাগরের গ্রিক উপকূলে উদ্ধার হওয়া অভিবাসীদের একটি দল। ছবি: এজিয়ান বোটি রিপোর্ট
(ফাইল ছবি) এজিয়ান সাগরের গ্রিক উপকূলে উদ্ধার হওয়া অভিবাসীদের একটি দল। ছবি: এজিয়ান বোটি রিপোর্ট

তুরস্কের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অভিযোগ করেছে, গ্রিক উপকূলরক্ষীরা চিওস দ্বীপে প্রবেশ করা তিন অভিবাসীকে পুশব্যাক করে পানিতে ফেলে দিয়েছে৷ তাদের মধ্যে দুইজন সাঁতার কেটে তুরস্কের উপকূলে পৌঁছাতে সক্ষম হলেও আরেকজন নিখোঁজ রয়েছেন৷

অভিবাসন বিষয়ক এনজিও এজিয়ান বোট রিপোর্ট (এবিআর) এর তথ্য অনুসারে, ২১ অভিবাসীর একটি দল তুরস্ক থেকে এজিয়ান সাগর পাড়ি দিয়ে ৩০ জানুয়ারি ভোরে গ্রিক দ্বীপ চিওসে পৌঁছান৷ কিন্তু অভিযান চালিয়ে অভিবাসীদের এই দলটিকে কয়েকটি দলে বিচ্ছিন্ন করে ফেলে গ্রিসের আইন প্রয়োগকারী সংস্থা৷

তারা্ ২১ জনের মধ্যে থাকা ১২ জনকে আটক করে৷ পরবর্তীতে তাদেরকে একটি নৌকায় করে তুরস্কের জলসীমায় ঠেলে দেয়া হয়৷ পুশব্যাকের বেশ কয়েক ঘণ্টা পরে অভিবাসীদের নৌকাটি গ্রিক উপকূল থেকে প্রায় ১০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত তুরস্কের সেজম নামক এলাকার কাছাকাছি পৌঁছালে তাদেরকে উদ্ধার করে তুর্কি কর্তৃপক্ষ৷ এ ঘটনায় তুরস্কের সেজমের প্রসিকিউটরের কার্যালয় একটি তদন্ত শুরু করেছে৷ 

তুরস্ক উপকূল থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে অবস্থিত গ্রিক দ্বীপ চিওস। ছবিঃ গুগল ম্যাপ
তুরস্ক উপকূল থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে অবস্থিত গ্রিক দ্বীপ চিওস। ছবিঃ গুগল ম্যাপ


চিওসে প্রবেশ করা অভিবাসীদের মধ্যে আরও ছয় জনকে গ্রিক পুলিশ গ্রেপ্তার করলেও এজিয়ান বোট রিপোর্ট এখনও তাদের পরিণতি সম্পর্কে নির্দিষ্ট কোন তথ্য দিতে পারেনি৷ অভিবাসী দলটির আরো তিন ব্যক্তিকে রোববার রাতে সমুদ্রে ফেলে দেয়া হয় বলে অভিযোগ করেছে এজিয়ান বোট রিপোর্ট৷

‘আমি সাঁতার পারি না’

তুর্কি উপকূল থেকে উদ্ধারের পর তুরস্ক কর্তৃপক্ষের কাছে একজন অভিবাসী জানান, “পানিতে নামানোর আগে গ্রিক উপকূলরক্ষীরা আমাদের লাইফ জ্যাকেট দিয়েছিল কিন্তু সেগুলো ছিল খুব ছোট৷ শিশুদের জন্য তৈরি করা লাইফ জ্যাকেট আমাদেরকে দেয়া হয়েছিল৷’’

তুর্কি কর্তৃপক্ষের কাছে ঐ অভিবাসীর দেয়া বর্ণনার ভিডিওটি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুলেমান সোয়লুর অ্যাকাউন্ট থেকে টুইট করা হয়েছে৷  

তুর্কি উপকূলরক্ষী বাহিনীর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গ্রিস থেকে সমুদ্রে ফেলে দেয়া তিনজনের মধ্যে দুইজন অভিবাসীকে উদ্ধারের আগেই তারা সাতাঁর কেটে তুর্কি ভূখণ্ডে প্রবেশ করতে সক্ষম হন৷ তবে তাদের সাথে তৃতীয় ব্যক্তি নিখোঁজ রয়েছেন৷ সোমবার নিখোঁজ ব্যক্তিকে উদ্ধারে অনুসন্ধান চালায় তুর্কি কর্তৃপক্ষ৷ 


টুইটারে প্রকাশিত ভিডিওতে বেঁচে যাওয়া অভিবাসীরা জানান, “সমুদ্রে ফেলে দেয়ার আগে তিনি (হারিয়ে যাওয়া ব্যক্তি) সাঁতার কাটতে পারেন না বলে জানান। কিন্তু তারা (গ্রিক কোস্ট গার্ড) তার কথা শোনেনি৷’’ 

উদ্ধার হওয়া যুবক বলেন, ‘‘তার শেষ কথা ছিল আমি সাঁতার জানি না, আমি জানিনা কিভাবে সাঁতার কাটতে হয়৷’’

সংবাদ বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, সেজম প্রসিকিউটর অফিস এই ঘটনার একটি তদন্ত শুরু করেছে৷ 

এই ঘটনায় কোনো প্রতিক্রিয়া না জানানোয় ইউরোপীয় ইউনিয়নে সমালোচনা করেছেন তুর্কি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী৷

২০২১ সালে ৬০০টিরও বেশি পুশব্যাক

আঙ্কারা জানিয়েছে ২০২১ সালে তুরস্ক উপকূলের দিকে ৬০০টিরও বেশি পুশব্যাক করেছে গ্রিক কর্তৃপক্ষ৷ তবে এই সংখ্যাটি এখনও এথেন্সের পক্ষ থেকে নিশ্চিত করা হয়নি৷ ইনফোমাইগ্রেন্টসের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে গ্রিক অভিবাসন মন্ত্রণালয়ের সাথে যোগাযোগ করা হলেও তারা কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি৷ 

গত কয়েক বছর ধরেই গ্রিসে ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের সাথে তুরস্কের সম্পর্কের টানাপোড়েন চলছে। ইউরোপের অভিবাসন নীতির সমালোচনা করে আসছে আঙ্কারা৷ পুশব্যাকসহ অভিবাসীদের সঙ্গে আচরণ নিয়ে এথেন্সের বিরুদ্ধেও নিয়মিত অভিযোগ করে আসছে তারা, যা বরাবরই অস্বীকার করে আসছে এথেন্স৷ তুরস্ক ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী সীমান্তে অবৈধ পারাপার ঠেকানোর দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করছে না পাল্টা অভিযোগ তাদের৷ এ নিয়ে দুই দেশের যতই রাজনৈতিক মতবিরোধ যতই থাক না কেন এজিয়ান সাগরে অভিবাসীদের পুশব্যাকের ঘটনা অবশ্য এরিমধ্যে ভুক্তভোগী অভিবাসীদের বক্তব্যে ও গণমাধ্যমের প্রতিবেদনেও উঠে এসেছে৷


এমএইউ/এফএস


 

অন্যান্য প্রতিবেদন