উত্তর ম্যাসিডোনিয়ার গ্রিক সীমান্তবর্তী অঞ্চলে অপেক্ষারত দুই অভিবাসন প্রত্যাশী। ছবি: পিকচার এলায়েন্স
উত্তর ম্যাসিডোনিয়ার গ্রিক সীমান্তবর্তী অঞ্চলে অপেক্ষারত দুই অভিবাসন প্রত্যাশী। ছবি: পিকচার এলায়েন্স

অবৈধভাবে গ্রিসে প্রবেশের চেষ্টার অভিযোগে ১৬ ভারতীয় অভিবাসীকে গ্রেপ্তার করেছে ম্যাসিডোনিয়া পুলিশ।

তাদেরকে ম্যাসিডোনিয়ার উত্তরের সীমান্তবর্তী একটি এলাকা থেকে আটক করা হয়েছে৷ জানা গেছে, দেশটির উত্তরাঞ্চলের এই রুটটি আগে কখনো অভিবাসীদের ব্যবহার করতে দেখা যায় নি। 

করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে ইউরোপজুড়ে ভ্রমণে বিধিনিষেধ এবং কঠোর সীমান্ত নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা জারি থাকায় মানবপাচারকারী নেটওয়ার্কগুলো প্রতিনিয়ত নতুন অভিবাসন রুট বের করার চেষ্টা করে। 

বৃহস্পতিবার ম্যাসিডোনিয়া পুলিশ জানি্য়, “অবৈধভাবে সীমান্ত পার হয়ে ম্যাসিডোনিয়াথেকে গ্রিসে প্রবেশের চেষ্টা করা ১৬ জন ভারতীয় নাগরিককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের সাথে ২১ থেকে ৩১ বছর বয়সি তিনজন পাকিস্তানি নাগরিককেও মানবপাচারের অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।”  

এক বিবৃতিতে স্থানীয় পুলিশ জানায়, “অভিবাসীদের দলটিকে মেসিডোনিয়ার দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর বোগডান্সির কাছে পাওয়া গেছে এবং তাদেরকে ভারতে ফেরত পাঠানোর উদ্দেশ্যে নিকটবর্তী আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।”

অভিবাসী এবং আশ্রয়প্রার্থীদের সাধারণত উত্তর ম্যাসিডোনিয়া এবং বলকান অঞ্চলের বিভিন্ন দেশের মধ্য দিয়ে মধ্য এবং উত্তর ইউরোপের বিভিন্ন দেশে পৌঁছানোর জন্য ভ্রমণকালে ম্যাসিডোনিয়ার উত্তর দিক থেকে গ্রেপ্তার করা হয়ে থাকে।

তবে করোনা মহামারি সম্পর্কিত ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা এবং কঠোর সীমান্ত নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা থাকায় সাম্প্রতিক মাসগুলিতে উত্তর মেসিডোনিয়া হয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য দেশ গ্রিসে পৌঁছানো এক প্রকার অসম্ভব হয়ে পড়েছে। 

সে কারণে অভিবাসীদের পাচারে জড়িত নেটওয়ার্কগুলো কৌশল পরিবর্তন করতে বাধ্য হয়ে নতুন ও কম নজরদারি থাকা সীমান্ত খুঁজে বের করতে তৎপর হয়ে উঠেছে। 

তবে অনেক অভিবাসী ও আশ্রয়প্রার্থী পার্শ্ববর্তী সার্বিয়া থেকে উত্তর ম্যাসিডোনিয়ায় প্রবেশ করার চেষ্টা করেন।


এমএইউ/আরআর (ওয়াশিংটন পোস্ট)


 

অন্যান্য প্রতিবেদন