রাশিয়ার হামলার প্রেক্ষিতে রোমানিয়া পালিয়ে আসা মেক্সিকোর একদল অভিবাসী৷ ছবি: এপি
রাশিয়ার হামলার প্রেক্ষিতে রোমানিয়া পালিয়ে আসা মেক্সিকোর একদল অভিবাসী৷ ছবি: এপি

শুধু ইউক্রেনের নাগরিক নন, সেখান থেকে পালিয়ে আসা সবাইকে যাতে প্রবেশ ও আশ্রয়ের সমান সুযোগ দেয়া হয় তা নিশ্চিত করতে দেশটির প্রতিবেশিদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা-আইওএম৷ এক্ষেত্রে নিজেদের সহায়তামূলক কার্যক্রম বৃদ্ধি করা হয়েছে বলেও জানিয়েছে তারা৷

জাতিসংঘের অভিবাসী বিষয়ক সংস্থা আইওএম এর হিসাবে, রাশিয়ার হামলার প্রেক্ষিতে ইউক্রেনে চার লাখ ৭০ হাজার বিদেশি নাগরিক আটকা পড়েন৷ যাদের বড় একটি অংশ শিক্ষার্থী ও শ্রম অভিবাসী৷ এর মধ্যে ছয় হাজার জন মলদোভা ও স্লোভাকিয়াতে পৌঁছেছেন৷ মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এমন তথ্য জানিয়েছে সংস্থাটি৷ 

শুধু মলদোভা, স্লোভাকিয়া নয় ইইউ প্রতিবেশি রোমানিয়া, হাঙ্গেরি, পোল্যান্ডেও ইউক্রেনীয়দের সঙ্গে আশ্রয় নিচ্ছেন তৃতীয় দেশের নাগরিকেরা৷ সীমান্ত অতিক্রম করতে গিয়ে বিভিন্ন স্থানে তারা বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে৷ সংবাদ ব্রিফিংয়ে আইওএম এর মুখপাত্র সাফা মেসলি বলেন, ‘‘আমরা (ইউক্রেনের) প্রতিবেশি দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানাই যাতে সবার সুরক্ষা, আশ্রয় ও প্রবেশের সুযোগ দেয়া হয়৷’’ 

তিনি জানান মধ্যপ্রাচ্য, এশিয়া, আফ্রিকার বিভিন্ন দেশের সরকার ইউক্রেন ত্যাগের চেষ্টারত তাদের নাগরিকদের সহায়তার জন্য আইওএম-কে আহ্বান জানিয়েছে৷ এই বিষয়ে সংস্থাটি সমন্বিতভাবে কাজ করছে৷ সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আইওএম জানিয়েছে, তারা ইউক্রেন থেকে মলদোভায় আসা ৫০ টিউনিসিয়ানকে রোমানিয়া যেতে সহায়তা করছে৷ সেখান থেকে পরবর্তীতে তাদের নিজ দেশে ফেরার ফ্লাইটের ব্যবস্থা করা হবে৷ 

সোমবার আফ্রিকান ইউনিয়ন তাদের নাগরিকদের ইউক্রেন থেকে সীমান্ত অতিক্রমে বাধা দেয়ার খবরে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে৷ এরইমধ্যে সামাজিক মাধ্যমে তৃতীয় দেশগুলোর শরণার্থীদের সঙ্গে বিরূপ আচরণ সংক্রান্ত বিভিন্ন ভিডিও, ছবি, বক্তব্য ছড়িয়ে পড়েছে৷

আইওএম ইউক্রেনীয়দের সহায়তায় প্রতিবেশি বিভিন্ন দেশের উদ্যোগের প্রশংসা করেছে৷ পাশাপাশি সেখান থেকে আসা অন্যদেরও যাতে সুরক্ষা, প্রবেশের অধিকার নিশ্চিত করা হয় এবং তারা যাতে বৈষম্যের শিকার না হন তা নিশ্চিতের আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি৷  

এফএস/কেএম

পড়ুন: ইউক্রেনের শরণার্থীরা ইউরোপের সর্বত্র স্বাগত, অন্যরা?

 

অন্যান্য প্রতিবেদন