ইউক্রেনের সমর্থনে ফরাসি শহরে নন্তে সংহতি সমাবেশ। ছবি: রয়টার্স
ইউক্রেনের সমর্থনে ফরাসি শহরে নন্তে সংহতি সমাবেশ। ছবি: রয়টার্স

রাশিয়ার হামলার প্রেক্ষিতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের অন্যান্য দেশের পাশাপাশি ইউক্রেনের শরণার্থীরা পাড়ি জমাচ্ছেন ফ্রান্সেও৷ তাদের জন্য বিমানবন্দর ও শহরগুলোতে বিশেষ ‘অভ্যর্থনা বুথ’ স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছে ফরাসি কর্তৃপক্ষ৷

২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে রুশ হামলার পর থেকে একশর কম ইউক্রেনীয় ফ্রান্সে এসেছেন বলে মঙ্গলবার জানান দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেরাল্ড দারমানা৷ তাদের মধ্যে অনেকেই বিমানে প্যারিস অঞ্চলের বুভ’ বিমানবন্দরে পৌঁছেছেন৷ অনেকে সড়কপথে ফ্রান্সে এসেছেন৷

জাতিসংঘের হিসাব অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার বিকাল পর্যন্ত প্রায় ১০ লাখ মানুষ ইউক্রেন ত্যাগ করেছেন৷ সে হিসাবে ফ্রান্সে আসা শরণার্থীর সংখ্যা কম হলেও সামনে তা বেশ দ্রুত বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে৷  

সংখ্যা যাই হোক না কেন, ইউক্রেনীয়দের আগমনের পর তাদের জন্য প্রশাসনিক জটিলতা কমাতে বিশেষ অভ্যর্থনা বুথ স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফরাসি কর্তৃপক্ষ৷



স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও উল্লেখ করেছেন, “সরকার বিমানবন্দরগুলিতে (ইউক্রেন থেকে আগত শরণার্থীদের জন্য) বিশেষ বুথ স্থাপন করছে৷ সেখানে কার্যক্রম পরিচালনার জন্য নির্বাচিত কর্মকর্তাদের নিয়োগ দেয়া হয়েছে৷’’

মঙ্গলবার সকালে, ফ্রান্স সরকার ইউক্রেনীয় শরণার্থীদের আগমনের জন্য প্রস্তুতি নিতে শহর কর্তৃপক্ষগুলির প্রতি আহ্বান জানায়৷ ‘সম্ভাব্য সমাধান ও উদ্যোগের’ দায়িত্ব নিতে স্থানীয় প্রেফেকচুরগুলোকে এ সংক্রান্ত চিঠি পাঠানো হয়েছে।

বাড়ানো হয়েছে বসবাসের অনুমতির মেয়াদ

সরকারি হিসাবে ফ্রান্সে বর্তমানে ১৭ হাজার ইউক্রেনীয় নাগরিক বসবাস করেন৷ এর মধ্যে কারো বসবাসের অনুমতি বা রেসিডেন্স কার্ডের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে সেগুলো সয়ংক্রিয়ভাবে অন্তত ৯০ দিন বাড়ানো হচ্ছে বলেও জানান জেরা দারমানা৷ 

এছাড়া নতুন আসা ইউক্রেনীয় শরণার্থীদেরও অস্থায়ীভাবে বসবাসের অনুমতি প্রদানের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে, যা তিন বছর পর্যন্ত নবায়নযোগ্য৷

যুক্তরাজ্য যেতে ইচ্ছুক ইউক্রেনীয়দের জন্য ব্রিটিশ সরকারের সাথে একটি বিনিময় ব্যবস্থার উদ্যোগ নেয়া হবে বলেও সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে৷ এতে উত্তর ফ্রান্সের কালেতে আটকে পড়া ইউক্রেনীয়রা সহজেই যুক্তরাজ্যে পোঁছাতে পারবেন৷ 

ট্রেনে বিনামূল্যে যাতায়াত 

ফরাসি ভূখণ্ডে প্রবেশ করা ইউক্রেনীয় শরণার্থীরা যাতে বিনামূল্যে ট্রেনে ভ্রমণ করতে পারেন সেই ব্যবস্থাও নেয়া হয়েছে৷ ফ্রান্সের সরকারি রেলসেবা প্রতিষ্ঠান এসএনসিএফ’র পাশাপাশি আঞ্চলিক ট্রেন সেবা টিইআর এবং ইউরোস্টার এর সাথে সংযুক্ত আন্তর্জাতিক ট্রেনগুলিতেও ইউক্রেনীয়রা বিনামূল্যে ভ্রমণ করতে পারবেন৷ 

বার্তা সংস্থা এএফপি কে এসএনসিএফ ভয়াজরের মুখপাত্র বলেন, “স্টেশনে আগত ইউক্রেনীয় শরণার্থীদের সেবা দেওয়ার জন্য একটি ব্যবস্থা চালুর পরিকল্পনা করা হয়েছে৷’’

এছাড়া ইউক্রেনীয়রা তাদের যেকোন পরিচয়পত্র দেখিয়ে যাতে জার্মানি থেকে বিনামূল্যে ফ্রান্সে ভ্রমণ করতে পারেন তার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি৷ তবে এ সুবিধায় ইউক্রেনীয়রা ইউরোস্টার ট্রেনে লন্ডনে যেতে চাইলে তাদের অবশ্যই ভিসার প্রয়োজন হবে৷

রাশিয়ার আক্রমণ থেকে পালিয়ে ফ্রান্সে পৌঁছেছেন ইউক্রেনীয়রা ছাড়াও আরও বহু দেশের নাগরিক৷ 


এমএইউ/এফএস






 

অন্যান্য প্রতিবেদন