(বাম থেকে) আন হিদালগো, জঁ লুক মেলেনশোঁ, ইয়ানিক যাদো এবং ফাবিয়া রোসেল। ছবি: রয়টার্স
(বাম থেকে) আন হিদালগো, জঁ লুক মেলেনশোঁ, ইয়ানিক যাদো এবং ফাবিয়া রোসেল। ছবি: রয়টার্স

দরজায় কড়া নাড়ছে ফরাসি রাষ্ট্রপতি নির্বাচন৷ নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী বাম, ডান ও মধ্যপন্থি প্রার্থীদের ইশতেহার উঠে এসেছে অভিবাসন নিয়ে প্রার্থীদের নিজস্ব পরিকল্পনা৷ এসব প্রার্থীদের অভিবাসন পরিকল্পনা নিয়ে ইনফোমাইগ্রেন্টস বাংলার পাঠকদের জন্য বিশেষ প্রতিবেদনের প্রথম পর্ব৷

জমে উঠেছে ২০২২ সালের ফরাসি রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের প্রচার৷ নিয়ম অনুযায়ী আগামী ১০ এপ্রিল প্রথম দফা এবং ২৪ এপ্রিল দ্বিতীয় দফায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে৷

প্রথম দফায় কোন প্রার্থী প্রদত্ত ভোটের ৫০ শতাংশ ভোট পেতে সক্ষম না হলে, সর্বোচ্চ ভোট প্রাপ্ত দুই শীর্ষ প্রার্থীর সাথে দ্বিতীয় দফায় মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে৷ মধ্যপন্থি ‘অঁ মাখস’ দল থেকে আবারও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বর্তমান রাষ্ট্রপতি এমানুয়েল ম্যাক্রঁ৷ প্রায় সকল নির্বাচনী জরিপে অন্যান্য প্রার্থীদের থেকে বেশ এগিয়ে আছেন ৪৪ বছর বয়সি এই প্রার্থী৷

বাম ও কট্টর বামপন্থি রাজনৈতিকদলগুলো থেকে এইবার নির্বাচনী দৌড়ে আছেন ৭ প্রার্থী৷ তবে ভোটের মাঠে বেশ সক্রিয় কট্টর বাম রাজনৈতিক দল লা ফ্রন্সঁ আনসুমিজ দলের প্রার্থী জঁ লুক মেলেনশোঁ, ফরাসি সোশালিস্ট পার্টির প্রার্থী ও প্যারিস শহরের টানা দুইবারের মেয়র আন হিদালগো, সবুজ তথা পরিবেশবাদী দলের প্রার্থী প্রথমবারের মতো লড়তে যাওয়া ইয়ানিক যাদো এবং ফরাসি কমিউনিস্ট দলের সেক্রেটারি জেনারেল ফাবিয়া রোসেল৷

জঁ লুক মেলনশোঁ

তৃতীয়বারের মতো নির্বাচনে লড়তে যাওয়া এই কট্টর বামপন্থি প্রার্থী জনমত জরিপে এবার অন্যসব বাম প্রার্থীদের নিয়ে বেশ সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছেন৷তিনি লা ফ্রন্সঁ আনসুমিজ দলের প্রার্থী৷

অভিবাসন নিয়ে জঁ লুকের প্রস্তাবনা

  • দীর্ঘদিন ধরে ফ্রান্সের সব অনিয়মিত অভিবাসীদের গণহারে বৈধতা প্রদান করে তাদেরকে ফরাসি জাতীয়তা অর্জনের পথ খুলে দেয়া।
  • রাজনৈতিক আশ্রয়ের বহুল আলোচিত ও সমালোচিত ডাবলিন বিধিমালা বাতিল করা।
  • ফরাসি বহিঃসীমান্ত থেকে ইইউ বহিঃসীমান্ত নিয়ন্ত্রণ সংস্থা (ফ্রন্টেক্স)’র সকল কার্যক্রম গুটিয়ে নিয়ে সমুদ্র থেকে অভিবাসীদের উদ্ধারের পক্ষে প্রস্তাব দিয়েছেন এই প্রার্থী৷
  • ইংলিশ চ্যানেলের ফরাসি উপকূল কালে’তে ফ্রান্স ও যুক্তরাজ্য উভয় দেশের সমন্বয়ে একটি যৌথ আশ্রয় বিষয়ক দপ্তর তৈরি করে, যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্সের হওয়া টোকে চুক্তির পুনঃমূল্যায়ন চান এই প্রার্থী৷
  • অপ্রাপ্তবয়স্ক কিশোরদের রাজনৈতিক আশ্রয়ের বয়স নির্ধারণে ‘বোন টেস্ট’ বাতিল করার কথা উল্লেখ রয়েছে ইশতেহারে৷
  • রাজনৈতিক আশ্রয় চলাকালে আশ্রয়প্রার্থীদের কাজের অনুমতি দেয়ার পক্ষেও এই প্রার্থী৷
এমানুয়েল ম্যাক্রঁ এবং ভালেরি পেক্রেস। ছবি: রয়টার্স
এমানুয়েল ম্যাক্রঁ এবং ভালেরি পেক্রেস। ছবি: রয়টার্স


ভালেরি পেক্রেস

ফরাসি রাজনীতিতে অন্যতম বৃহৎ এবং পুরনো দল লে রিপাবলিকান৷ এ দল থেকে সর্বেশেষ নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি নিকোলা সারকোজি। ২০১৭ সালের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের প্রথম দফার ভোটে তৃতীয় হওয়া দলটি এবারের নির্বাচনে প্রার্থী করেছে ইল-দ্য-ফ্রন্সঁ বা বৃহত্তর প্যারিস অঞ্চলের টানা দুইবারের নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ভালেরি পেক্রেসকে৷

অভিবাসন প্রস্তাবনায় কী লিখেছেন পেক্রেস?

  • ফরাসি ভূখণ্ডে অভিবাসন নিয়ন্ত্রণে কোটা পদ্ধতি চালু করা।
  • কোন ক্ষেত্রে কত সংখ্যক অভিবাসী প্রয়োজন তা বুঝে অভিবাসী সংকট দূর করা এবং অনিয়মিত অভিবাসন বন্ধ করা।
  • বেকার ভাতা, সমাজ ( নির্দিষ্ট সময় কাজ করার পর প্রাপ্ত সহায়তা) সহ বিবিধ সামাজিক সুবিধা গ্রহণে ন্যূনতম পাচঁ বছর ফ্রান্সে বসবাসের বাধ্যবাধকতার নিয়ম প্রবর্তন করা৷ এটি বর্তমানে রিফিউজি স্ট্যাটাস প্রাপ্ত শরণার্থীসহ পারিবারিক ভিসায় আসা ব্যক্তিদের জন্য প্রযোজ্য নয়৷ নির্বাচিত হলে সকল অভিবাসীদের জন্য পাঁচ বছরের বসবাসের শর্ত প্রয়োগ করতে চান ভালেরি পেক্রেস৷
  • চ্যানেলে অভিবাসন সংকট নিয়ে হওয়া যুক্তরাজ্যের সঙ্গে 'টোকে চুক্তি' আবারও আলোচনা করে ফ্রান্সের উপর চাপ কমাতে চান এই প্রার্থী৷ নইলে যুক্তরাজ্যে অভিবাসন স্রোত বইবে বলে হুমকিও দিয়েছেন ডানপন্থি পেক্রেস৷
  • অপ্রাপ্তবয়স্ক কিশোরদের বয়স নির্ধারণে হাড় পরীক্ষার বিপক্ষে ভালেরি পেক্রেস৷ তবে তিনি, ১৮ বছরের কম বয়স প্রমাণে ব্যর্থ কিশোরদের ফ্রান্স থেকে বহিষ্কারের পক্ষে৷
  • রাজনৈতিক আশ্রয়ের চাপ কমাতে সীমান্তে ও বিদেশে ফরাসি দূতাবাসগুলোতে আশ্রয় আবেদন জমা ও মূল্যায়ন করতে চান ভালেরি পেক্রেস৷ পাশাপাশি শরণার্থী শিবিরে কঠোর নিরাপত্তা স্থাপনে গ্রিক মডেলেরও পক্ষে তিনি৷
  • বেকার ভাতা বা আরএসআর প্রাপ্ত ব্যক্তিদের জন্য সপ্তাহে ১৫ ঘন্টা সামাজিক কাজ করার বাধ্যবাধকতা করার আইন কর‍তে চান এই প্রার্থী।

এমানুয়েল ম্যাক্রঁ

১৭ মার্চ প্যারিসের উত্তর ওভেরবিলিয়ে এলাকায় এক সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচনি ইশতেহার ঘোষণা করেছেন এমানুয়েল মাক্রঁ। বক্তব্যে তিনি অভিবাসন, রেসিডেন্স কার্ড পাওয়ার শর্ত এবং অনিয়মিত অভিবাসীদের বিষয়ের পরিষ্কার বক্তব্য রেখেছেন।

কী করতে পারেন ম্যাক্রঁ

  • অভিবাসন নিয়ে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে টোকে চুক্তি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা।
  • ইউরোপের বহিঃসীমান্তে ফ্রন্টেক্সের উপস্থিতি বাড়ানো।
  • কোন অভিবাসী আইন ভঙ্গ করলে সেক্ষেত্রে এক বছর মেয়াদি রেসিডেন্স কার্ডটি আর নবায়ন না করার ঘোষণা দিয়েছেন বর্তমান রাষ্ট্রপতি।
  • ৪ বছর বা এর বেশি মেয়াদের রেসিডেন্স কার্ড বা কার্ড দ্যু সিজ্যুর পাওয়ার জন্য নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত চাকুরিতে থাকা ও ফরাসি ভাষা কোর্সে অংশগ্রহণের পাশাপাশি, ফরাসি ভাষার দক্ষতা যাচাইয়ের পরীক্ষা চালুর প্রস্তাব করেছেন এমানুয়েল মাক্রঁ।
  • রাজনৈতিক আশ্রয় পেতে ব্যর্থ পেতে ও ফরাসি ভূখন্ড ত্যাগের সিদ্ধান্ত পাওয়া অনিয়মিত অভিবাসীদের দ্রুত ফ্রান্স থেকে বহিষ্কার করা হবে বলে জানান এই প্রার্থী।
  • এমানুয়েল ম্যাক্রঁর মতে, ফ্রান্সে কানাডা ও অস্ট্রেলিয়ার মতো কোটা পদ্ধতি কার্যকর বুমেরাং হবে৷ যেসব খাতে অধিক কর্মী দরকার সে ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে সংসদে আলোচনার প্রস্তাব আনার পক্ষে বর্তমান রাষ্ট্রপতি৷
  • আরএসআ বা বেকার ভাতার সুবিধাভোগীদের জন্য সাপ্তাহিক ১৫ থেকে ২০ ঘন্টা সামাজিক কাজ (পেশা অথবা ভাষাগত কোর্স, প্রশিক্ষণ ইত্যাদি) বাধ্যতামূলক করা হবে।
  • যেসব দেশে তাদের দেশের অনিয়মিত নাগরিকদের নিতে অস্বীকৃতি জানাবে অথবা কূটনৈতিক সহায়তা দিতে গড়িমসি করবে সেসব দেশের উপর ভিসা নিষেধাজ্ঞা দেয়া হবে বলে জানান বর্তমান রাষ্ট্রপতি।

আন হিদালগো

ডানপন্থি লে রিবাপলিকান দলের মতো পুরোনো রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে অন্যতম প্রধান দল ফরাসি সোশ্যালিস্ট পার্টি (পিএস)৷ সর্বশেষ এই দলটি থেকে রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন ফ্রসোঁয়া ওলান্দ৷ তবে বর্তমানে বেশ কঠিন সময় পার করছে দলটি৷ প্যারিসের টানা দুইবারের নির্বাচিত মেয়র এবার সোশ্যালিস্ট পার্টির প্রার্থী৷

হিদালগোর প্রস্তাবনা

  • দীর্ঘদিন ধরে ফ্রান্সে বসবাসরত সকল অনিয়মিত অভিবাসীদের বৈধতা দানের কথা বলেছেন এই প্রার্থী৷ তবে এক্ষেত্রে তিনি তাদেরকে একটি বৈধ চাকরি এবং বাসস্থানের প্রমাণ দেয়ার শর্ত জুড়ে দিয়ছেন আন হিদালগো৷
  • ভূমধ্যসাগর ও সীমান্তে মানব পাচারের বিরুদ্ধে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন এই প্রার্থী৷ তবে তিনি সীমান্তে ফ্রন্টেক্সের কার্যক্রম নিয়ে কোন প্রস্তাবনা রাখেননি৷
  • জঁ লুক মেলনশোঁর মত সোশ্যালিস্ট পার্টির এই প্রার্থীও রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন চলাকালে কাজের অনুমতি ও বিনামূল্যে ফরাসি ভাষা শিক্ষা প্রদানের পক্ষে প্রস্তাবনা দিয়েছেন৷

ইয়ানিক যাদো

ইউরোপ ইকোলোজি লে ভের বা সবুজ ও পরিবেশবাদী দল থেকে প্রথমবারের মতো নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন ইয়ানিক যাদো৷ তিনি পরিবেশ বিষয়ক এনজিও গ্রিনপিসের সাবেক প্রধান মুখপাত্র হিসেবে কাজ করেছেন৷ সাম্প্রতিক সময়ে ফরাসি মিউনিসিপ্যাল নির্বাচনগুলোতে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে দলটি৷

  • অন্য বাম প্রার্থীদের মতো গণহারে বৈধতা না দিয়ে কেবল দীর্ঘদিন ধরে কাজ করা ও নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত নিয়মিত স্কুলে যাওয়া বাচ্চাদের অভিভাবকদের বৈধতা দিতে চান এই প্রার্থী৷
  • ইইউ বহিঃসীমান্ত নিয়ন্ত্রণ সংস্থা (ফ্রন্টেক্স) থেকে সরে এসে ভূমধ্যসাগর, আটলান্টিক, ইংলিশ চ্যানেল সহ সমুদ্র সংকটে থাকা অভিবাসীদের বাঁচাতে একটি বিশেষ দপ্তর করতে চান ইয়ানিক যাদো৷
  • আন্তজার্তিক আইন ও মানবাধিকারের ঘোষণাপত্র অনুযায়ী সকল অপ্রাপ্তবয়স্ক শিশু ও কিশোরদের মানবিক অভ্যর্থনা ও সুরক্ষা প্রদানের কথা উল্লেখ করা হয়েছে এই প্রার্থীর নির্বাচনী ইশতেহারে৷
  • এছাড়া কিশোরদের বয়স নির্ধারণের বর্তমান আইনগুলো যুগোপযোগী করার প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছে৷
  • আশ্রয়প্রার্থীদের কাজের অনুমতি নিয়ে বিস্তারিত না বললেও তাদের বিরুদ্ধে সংগঠিত সকল ঘৃণা, বৈষম্য ও অসাম্যের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের কথা বলেছেন সবুজ ও পরিবেশবাদী দলের এই প্রার্থী৷

ফাবিয়া রোসেল

ফরাসি কমিউনিস্ট পার্টি থেকে নির্বাচন করছেন দলটির জেনারেল সেক্রেটারি ফাবিয়া রোসেল৷ তিনি কট্টর বামপন্থী হিসেবেই পরিচিত৷ প্রথমবারের মতো নির্বাচনে লড়তে যাচ্ছেন এই প্রার্থী৷

রোসোলের ইশতেহারে উল্লেখিত অভিবাসন প্রস্তাবনা

  • ফ্রান্সে কর্মরত অনিয়মিত অভিবাসীদের বৈধতা প্রদান।
  • ফ্রন্টেক্স এবং সমুদ্রে অভিবাসীদের মৃত্যু নিয়ে বিস্তারিত কোনো প্রস্তাবনা দেননি এই প্রার্থী।
  • অনিয়মিত অভিবাসীদের বহিষ্কারে ব্যবহৃত ডিটেনশন সেন্টার বা সিআরএ কেন্দ্রগুলো বন্ধ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন এই প্রার্থী।
  • আইন অনুযায়ী পারিবারিক পুনর্মিলন ভিসা বজায় রাখার পক্ষে কমিউনিস্ট পার্টির এই প্রার্থী।
  • ১৮ বছরের কম বয়সিদের ডিটেনশন সেন্টারে আটক রাখার নিয়ম ও বয়স নির্ধারণে হাড় পরীক্ষা বাতিলের কথাও উল্লেখ রয়েছে ইশতেহারে।


এমএইউ/আরকেসি

 

অন্যান্য প্রতিবেদন