এজিয়ান সাগর থেকে আফগান অভিবাসীদের একটি দলকে উদ্ধারের মুহূর্ত৷ সূত্র: এজিয়ান বোট রিপোর্ট ব্লগ
এজিয়ান সাগর থেকে আফগান অভিবাসীদের একটি দলকে উদ্ধারের মুহূর্ত৷ সূত্র: এজিয়ান বোট রিপোর্ট ব্লগ

তুরস্ক থেকে আসা আশ্রয়প্রার্থীদের গ্রিক কর্তৃপক্ষ পুশব্যাক বা অবৈধভাবে ফেরত পাঠিয়েছে এমন অভিযোগের কোনো ‘ভিত্তি পায়নি’ দেশটির ‘জাতীয় স্বচ্ছতা কর্তৃপক্ষ’৷

তুরস্ক হয়ে আসা বিভিন্ন দেশের আশ্রয়প্রার্থীদের গ্রিস অবৈধভাবে ফেরত পাঠাচ্ছে বলে অভিযোগ দীর্ঘদিনের৷ এর ফলে বিভিন্ন সময়ে স্থল ও জলপথে অভিবাসী, শরণার্থীদের মৃত্যুর জন্যও দেশটিকে দায়ী করে আসছে আঙ্কারা ও মানবাধিকার সংস্থাগুলো৷ 

গত বছর জার্মানির স্পিগ্যাল, নেদারল্যান্ডসভিত্তিক লাইটহাউস রিপোর্টস, ফ্রান্সের লিবারেশনসহ ইউরোপের বিভিন্ন সংবাদম্যাধ্যমের অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে উঠে এসেছে, গ্রিক কর্তৃপক্ষ অভিবাসীদের এমনকি বিপজ্জনকভাবে সমুদ্রেও দিচ্ছে৷ তবে গ্রিক সরকার বরাবরই এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে৷ এ নিয়ে সবশেষ গ্রিসের জাতীয় স্বচ্ছতা কর্তৃপক্ষ-এনটিএ অনুসন্ধান চালায়৷

মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে তারা বলেছে, আশ্রয়প্রার্থীদের ‘অনানুষ্ঠানিকভাবে জোরপূর্বক ফেরত পাঠানোর’ অভিযোগ সম্পর্কে তারা ‘নিশ্চিত হতে পারেনি’৷ এই সংক্রান্ত কোনো প্রমাণও তারা পায়নি বলে উল্লেখ করা হয়েছে বিবৃতিতে৷

এনটিএ গত নভেম্বরে তাদের অনুসন্ধান শুরু করে৷ এর অংশ হিসেবে তারা তুরস্ক থেকে নৌকায় আসা অভিবাসীদের অন্যতম গন্তব্য এজিয়ান সমুদ্রের দ্বীপগুলো এবং উত্তরপূর্ব স্থলসীমান্তও তারা পরিদর্শন করে৷ সংস্থাটি জানিয়েছে তদন্তের অংশ হিসেবে তারা গ্রিক নিরাপত্তা সংস্থা, স্থানীয় বাসিন্দা এবং আশ্রয়প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার নিয়েছে৷ গ্রিক পুলিশের সহায়তায় অভিযোগ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন ভিডিও ও স্থিরচিত্র পরীক্ষার কথাও উল্লেখ করেছে এনটিএ৷

পড়ুন: ফেরত পাঠানোর শঙ্কায় গ্রিসের অনিয়মিত বাংলাদেশিরা

প্রমাণ প্রচুর

এর আগে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশনার ফিলিপ্পো গ্রান্ডি বলেছিলেন, আশ্রয়প্রার্থীদের ফেরত পাঠানো সংক্রান্ত নিয়মিত খবর পাচ্ছেন তারা যা নিয়ে সংস্থাটি সতর্ক৷ পরিসংখ্যান দিয়ে তিনি বলেন, ইউএনএইচসিআর ২০২০ সাল থেকে শুরু করে গ্রিসের ৫৪০টি অনানুষ্ঠানিক ঘটনার অভিযোগ পেয়েছে৷ এই ধরনের আচরণ এখন ‘স্বাভাবিক’ হয়ে উঠছে উল্লেখ করে উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি৷

গত বছর লাইটহাউস রিপোর্ট (এলআর) ও অন্য গণমাধ্যমগুলো ৬৩৫ পুশব্যাকের অভিযোগ সংক্রান্ত ৬৩৫টি ভিডিও সংগ্রহ ও বিশ্লেষণ করে৷ তারা গ্রিক সীমান্তরক্ষী বাহিনীর বর্তমান ও সাবেক সদস্যদের সেগুলো দেখায়৷ ভিডিওতে মাস্ক পরা ব্যক্তিদের তারা গ্রিক সীমান্তরক্ষী বাহিনীর এলিট বা বিশেষ শাখার সদস্য হিসেবে চিহ্নিত করেন৷     

গত ফেব্রুয়ারিতে লাইটহাউস রিপোর্ট আরেক প্রতিবেদনে আশ্রয়প্রার্থীদের সমুদ্রপথে ফেরত পাঠানোর নতুন কৌশলের কথা জানায়৷ তাদের প্রতিবেদন অনুযায়ী, গ্রিক সীমান্তরক্ষীরা আশ্রয়প্রার্থীদের জাহাজে তুলে ছোট ছোট দলে সমুদ্রে ছেড়ে দেয়, যাতে তারা সাঁতার কেটে তুরস্কে ফেরত যেতে বাধ্য হয়৷ প্রতিবেদন অনুযায়ী, আইভরি কোস্ট ও ক্যামেরুনের দুই অভিবাসীকে গ্রিক কর্তৃপক্ষ আটক করার পর মারধর করে কোন ‘লাইফ জ্যাকেট’ ছাড়া সমুদ্রে ফেলে দেয়ার পর তারা প্রাণ হারায়৷

অন্যদিকে, ইউরোপীয়ান অ্যান্টি ফ্রড অফিস (ওএলএএফ) বা জালিয়াতি দমন কার্যালয়ের আরেক তদন্তেও গ্রিসের অবৈধ পুশব্যাক সংক্রান্ত ঘটনার তথ্য উঠে এসেছে৷ তাদের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউরোপের বহিঃসীমান্তরক্ষী বাহিনী ফ্রন্টেক্সের প্রধান ফ্যাব্রিস লেজেরি গ্রিক কর্তৃপক্ষের অবৈধভাবে ফেরত পাঠানো সংক্রান্ত ঘটনা জানার পরও তা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেছেন৷

চলতি মাসে ফ্রন্ট-লেক্স নামের একটি বেসরকারি সংস্থা ফ্রন্টেক্সের বিরুদ্ধে সিরিয়ান আশ্রয়প্রার্থীর পক্ষে মামলা করেছেন৷ তার অভিযোগ, তুরস্কে ফেরত পাঠাতে গ্রিক কর্তৃপক্ষ তাকে একটি ভেলায় করে সমুদ্রে ছেড়ে দেয়৷ ১৭ ঘণ্টা সমুদ্রে ভেসেছেন তিনি৷

এফএস/এআই

 

অন্যান্য প্রতিবেদন