কম্পিউটার সমস্যার কারণে প্রায় চার হাজার আশ্রয় আবেদনের নথি হারিয়ে গেছে স্পেনের ভ্যালেন্সিয়া অঞ্চলে। ছবি: রয়টার্স
কম্পিউটার সমস্যার কারণে প্রায় চার হাজার আশ্রয় আবেদনের নথি হারিয়ে গেছে স্পেনের ভ্যালেন্সিয়া অঞ্চলে। ছবি: রয়টার্স

দক্ষিণ-পূর্ব স্পেনের ভ্যালেন্সিয়া অঞ্চলে একটি কম্পিউটারে গুরুতর কারিগরি সমস্যা দেখা দেয়৷ তার ফলে জানুয়ারির শেষ দিক থেকে জমা পড়া প্রায় চার হাজার আশ্রয়ের আবেদন হারিয়ে গিয়েছে৷ এপ্রিলের পাঁচ তারিখ পর্যন্ত এ সমস্যার কোন সমাধান হয়নি৷ এ নিয়ে বিপাকে পড়তে চলেছেন ভুক্তভোগী আশ্রয়প্রার্থীরা৷

স্পেনের দক্ষিণ-পূর্বে ভ্যালেন্সিয়া অঞ্চলে ২৮ জানুয়ারি থেকে জমা হওয়া সবকটি রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন হারিয়ে গেছে বলে নিশ্চিত করেছে স্প্যানিশ সংবাদ মাধ্যমগুলো৷ একটি কম্পিউটারে গুরুতর নিরাপত্তা সমস্যার কারণে জমা পড়া সবকটি আন্তর্জাতিক সুরক্ষার আবেদনের ই-মেইল মুছে গিয়েছে৷ 

 স্প্যানিশ সংবাদ মাধ্যম লেভান্তে-ইএমভি জানিয়েছে, এইভাবে প্রায় চার হাজার নথি মুছে গিয়েছে৷ কারিগরি সমস্যা সমাধানের পথ মেলেনি এখনও৷ এই সমস্যা যদিও স্পেনে আসা বাস্তুচ্যুত ইউক্রেনীয়দের আবেদনে কোনো প্রভাব ফেলবে না৷ কারণ ইউক্রেনীয়দের আশ্রয় আবেদনগুলো আলাদা পদ্ধতিতে জমা নেয়া হয়েছিল৷ সাধারণ নিয়মে এগুলো লিপিবদ্ধ করা হয়নি৷

 জুন পর্যন্ত অপেক্ষা 

 সমস্যা সমাধানে বর্তমানে চালু থাকা বৈদ্যুতিন আবেদন পদ্ধতির পরিবর্তনের চেষ্টা করছে পুলিশ৷ স্পেনের অন্য প্রদেশগুলোতে যেন একই সমস্যা না ঘটে সেটি জানিয়ে স্থানীয় কর্তৃপক্ষদের চিঠি দিয়েছে স্প্যানিশ আশ্রয় বিষয়ক দপ্তর৷

 অনলাইনের পরিবর্তে সরাসরি আবেদন জমা নেয়ার পরিকল্পনা করছে বলে জানিয়েছে পুলিশ বিভাগ৷ তবে, সমস্যা সমাধান না হওয়া পর্যন্ত আশ্রয়প্রার্থীরা নতুন করে কোনো আবেদন জমা দিতে পারবেন না৷ কারিগরি ব্যর্থতার ফলে এই অঞ্চলে আশ্রয়প্রার্থীদের তালিকা বেড়ে চলেছে৷

 প্রথমবার আশ্রয় আবেদনের অনুরোধে রীতিমত হিমশিম খাচ্ছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ৷ সেখানে আগামী জুন মাস পর্যন্ত আবেদনপত্র জমা দেয়ার জন্য কোনো ‘টাইম স্লট’ ফাঁকা নেই বলে জানিয়েছে স্পেনের সংবাদ মাধ্যমগুলি৷

 আফ্রিকা থেকে এবং ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জে প্রবেশ করা অভিবাসীদের জন্য স্পেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের অন্যতম প্রবেশদ্বার৷ সেখানে আসা অভিবাসীদের অনেকেই ইউরোপের অন্যান্য দেশে তাদের যাত্রা অব্যাহত রাখলেও কেউ কেউ স্পেনে থেকে যেতে চান পাকাপাকিভাবে৷

 আন্তজার্তিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) এর পরিসংখ্যান অনুসারে, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে আট হাজার ৫০০ জনের এরও বেশি অভিবাসী স্পেনে এসেছেন৷২০২১ সালে প্রায় বাইশ হাজার ৩০০ অভিবাসী স্পেনের বিভিন্ন দ্বীপ হয়ে প্রবেশ করেছিলেন৷


এমএইউ/আরকেসি


 

অন্যান্য প্রতিবেদন