আন্দ্রেয়া কোস্তার সমর্থনে আদালতের সামনে বিক্ষোভ৷ ছবি: আনসা
আন্দ্রেয়া কোস্তার সমর্থনে আদালতের সামনে বিক্ষোভ৷ ছবি: আনসা

বাওবাব এক্সপিরিয়েন্স অর্গানাইজেশন সংস্থাটি মূলত রোমে আসা অভিবাসীদের সাহায্য করে৷ এই সংস্থার প্রধান আন্দ্রেয়া কোস্তার বিরুদ্ধে গোপন অভিবাসনে সাহায্য করা এবং প্ররোচনার অভিযোগ আনা হয়েছিল৷ অভিযোগ থেকে নিষ্কৃতি পেলেন আন্দ্রেয়া৷

২০০৫ সাল থেকে এই সংস্থা ইটালির রাজধানীতে আসা অভিবাসীদের সাহায্য করছে৷ ২০১৬ সালের একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে আন্দ্রেয়া এবং আরো দুজন সমাজকর্মীর বিরুদ্ধে গোপন অভিবাসনে সাহায্য করার অভিযোগ আনা হয়েছিল৷ এই অভিযোগ প্রমাণিত হলে ছয় থেকে ১৮ বছর পর্যন্ত কারাবাসের শাস্তি হত আন্দ্রেয়ার৷

৬ বছর পর অভিযোগ থেকে খালাস

ফাস্ট ট্র্যাক শুনানিতে গত মঙ্গলবার (৩ মে) প্রসিকিউটর গিয়ানফেদেরিকা দিতো বিচারপতিকে সমস্ত অভিযোগ প্রত্যাহার করতে বলেন৷ বিচারপতি সেই অনুরোধ রাখেন৷ ২০১৬ সালের ১৬ অক্টোবরের একটি ঘটনার পর এই অভিযোগ আনা হয়েছিল৷ রোমের সান লরেঞ্জো কোয়ার্টারে কয়েকশ অভিবাসীর খোঁজ পাওয়া গিয়েছিল৷ তাদের শনাক্তকরণের জন্য একটি কেন্দ্রে স্থানান্তর করা হচ্ছিল৷ বাওবাবের কর্মীরা ২৫০ ইউরোর ট্রেন এবং বাসের টিকিট কিনে সুদানের আট জন নাগরিক এবং শাদের একজন নাগরিককে ইটালি সীমান্ত (ভেন্টিমিগলিয়া) পেরিয়ে ফ্রান্সে যেতে সহায়তার প্রস্তাব দিয়েছিলেন৷

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রসিকিউটরের অফিস প্রথম তদন্ত শুরু করায় তা মাফিয়াবিরোধী তদন্ত অধিদপ্তরের (ডিডিএ) নজরে আসে৷ এরপর গোপন অভিবাসনে সহায়তা এবং সহায়তা করার সম্ভাব্য অভিযোগের উল্লেখ করা হয়৷ অভিযোগ থেকে খালাস পেয়ে আদালত চত্বর থেকে বেরোতেই আন্দ্রেয়াকে হাততালি দিয়ে অভ্যর্থনা জানান প্রায় শতাধিক মানুষ৷ আন্দ্রেয়ার সমর্থনে আদালতের বাইরে অবস্থান করেছিলেন তারা৷

অভিবাসীদের খাবার দিয়ে সাহায্য করছেন বাওবাবের কর্মীরা৷ ছবি: আনসা
অভিবাসীদের খাবার দিয়ে সাহায্য করছেন বাওবাবের কর্মীরা৷ ছবি: আনসা

‘আবারও সাহায্য করব’

কোস্তা বলেন, তিনি এই রায়ে সন্তুষ্ট কারণ একজন বিচারক এটি মঞ্জুর করেছেন৷ যদিও তিনি আগে থেকেই জানতেন কোনো অপরাধ করেননি৷ 

আন্দ্রেয়ার বক্তব্য,‘‘এখনও এমন কেউ আছেন, যিনি বলতে পারেন পাশে থাকাটা কোনো অপরাধ নয়৷ এত বছর ধরে আমাকে নিয়ে তদন্ত হচ্ছে এই বিষয়টা মেনে নেওয়া বেশ কঠিন ছিল৷ অথচ জানতাম, আমি কোনো ভুল করিনি৷’’ 

কোস্তার তরফের আইনজীবী ফ্রান্সেসকো রোমিও সওয়াল করেন৷ কোস্তা বলেন, ‘‘মানুষের প্রয়োজনে আমরা তাদের সাহায্য করব৷ ঠিক যেমন ইউক্রেনীয় শরণার্থীদের সাহায্য করা হচ্ছে৷’’

আরকেসি/আরআর (আনসা)

 

অন্যান্য প্রতিবেদন