মরক্কোতে একদল অভিবাসী | ছবি: ইপিএ
মরক্কোতে একদল অভিবাসী | ছবি: ইপিএ

চলতি মাসে মরক্কো সফর শেষে দেশটির উন্মুক্ত অভিবাসন নীতির প্রশংসা করেছে জাতিসংঘের অভিবাসী কর্মী বিষয়ক কমিটি সিএমডাব্লিউ৷ তবে কমিটি দেশটির কর্তৃপক্ষকে এসংক্রান্ত আইনকে আন্তর্জাতিক মানবাধিকারের মানের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ করতে বলেছে৷

চলতি মাসের ১০ থেকে ১৩ মে মরক্কো সফর করে সিএমডাব্লিউর প্রতিনিধিরা৷ এরপর ২৩ মে দেশটির উন্মুক্ত অভিবাসন নীতির প্রশংসা করে জাতিসংঘের এই কমিটি৷ তবে, কমিটির সদস্যরা মরক্কোর প্রতি সেখানে অস্থায়ীভাবে থাকা অভিবাসীদের নিয়মিতকরণের দিকে এবং দেশটির অভিবাসী বিষয়ক আইনকে আন্তর্জাতিক স্তরের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ করতে আহ্বান জানিয়েছে৷ 

চুক্তিবিহীন অভিবাসী কর্মীদের নিয়মিতকরণের আহ্বান 

মরক্কো সফর করা সিএমডাব্লিউ দলের মধ্যে সাতজন মানবাধিকার বিশেষজ্ঞও ছিলেন৷ তারা বিশেষভাবে মরক্কোতে থাকা ৫০ হাজারের বেশি অনিয়মিত অভিবাসীকে দেশটিতে নিয়মিতকরণের বিষয়টির প্রশংসা করেছেন৷ ২০১৭ সালে দেশটির রাজা মোহাম্মদ সিক্স এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন৷   

পাশাপাশি সেদেশে বৈধ চুক্তি ছাড়াই সাময়িকভাবে থাকা অভিবাসীদেরও নিয়মিতকরণের দিকে গুরুত্ব দিয়েছে জাতিসংঘের কমিটি৷ 

এক বিবৃতিতে কমিটি জানিয়েছে যে মানবাধিকার বিষেশজ্ঞরা মরক্কোর অভিবাসী বিষয়ক আইনের সংস্কারের পক্ষেও মত দিয়েছে যাতে সেটি এসংক্রান্ত আন্তর্জাতিক মানের সঙ্গে মানানসই হয়৷  

অভিবাসী কর্মীদের জন্য ‘কমেন্ট ৬’

অভিবাসী কর্মীদের জন্য সুবিধাজনক আন্তর্জাতিক সনদ ‘জেনারেল কমেন্ট নম্বর ৬’ এর অগ্রগতির কথাও জানিয়েছে জাতিসংঘের কমিটি৷ অভিবাসী কর্মীদের স্বার্থ রক্ষায় বিভিন্ন দেশকে সহায়তা করতে এই সনদ তৈরি করা হচ্ছে৷ 

নতুন এই সনদ বিভিন্ন রাষ্ট্রকে ‘গ্লোবাল কমপেক্ট ফর সেফ, অর্ডারলি এন্ড রেগুলার মাইগ্রেশন’-এ থাকা বিষয়াদি বাস্তবায়নেও সহায়তা করবে৷ 

এই বিষয়ে জাতিসংঘের কমিটির চেয়ার এজিগার করজো সসা বলেন, ‘‘আমরা মনে করি এই দুটো নীতির মাধ্যমে সব অভিবাসীদের অধিকার রক্ষার পথ সুগম হবে৷ এক্ষেত্রে তাদের অভিবাসনের অবস্থা গুরুত্ব পাবে না৷’’  

এআই/কেএম (আনসা)

 

অন্যান্য প্রতিবেদন