ভূমধ্যসাগরে সক্রিয় জার্মান উদ্ধার জাহাজ সীআই-৪ সোমবার ১৩ জুন ৬৩ জন অভিবাসীকে উদ্ধার করেছে। ছবি: সী আই
ভূমধ্যসাগরে সক্রিয় জার্মান উদ্ধার জাহাজ সীআই-৪ সোমবার ১৩ জুন ৬৩ জন অভিবাসীকে উদ্ধার করেছে। ছবি: সী আই

গত কয়েক দিনে লিবিয়া উপকূল থেকে স্প্যানিশ এনজিও আইতা মারির সহায়তায় ২৮ জন ও জার্মান এনজিওর উদ্ধার জাহাজ সী-আই ৪ ভূমধ্যসাগর থেকে ৬৩ জন অভিবাসন প্রত্যাশীকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে।

ইউরোপে শীত শেষ হওয়ার পর সমুদ্রের আবহাওয়ার উন্নতি হওয়ায় সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে ভূমধ্যসাগরে উদ্ধার অভিযান বেড়েছে। সেখানে সক্রিয় দুটি মানবিক উদ্ধার জাহাজ লিবিয়া উপকূল থেকে মঙ্গলবার এবং বুধবার ৯১ জন অভিবাসীকে উদ্ধার করেছে।

স্প্যানিশ এনজিও গুলোর প্লাটফর্ম ‘মেডাটারেনিও’ এর চার্টার্ড উদ্ধার জাহাজ ‘আইতা মারি’ দুটি পৃথক অভিযানে ২৮ জনকে উদ্ধার করেছে। এই ২৮ জন অভিবাসীরা মরক্কো, বাংলাদেশ, ইরিত্রিয়া, ইথিওপিয়া এবং সোমালিয়ার নাগরিক। তাদের মধ্যে আটজন নাবালকও রয়েছে।


প্রথম অভিযানে, আইতা মারি মঙ্গলবার ঝুঁকিতে থাকা ১৭ জন ব্যক্তিকে উদ্ধার করেছে যারা লিবিয়া কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে পালানোর চেষ্টা করছিল।  

টুইটারে এনজিওগুলোর সম্মিলিত প্লাটফর্ম ‘মেডাটারেনিও’ জানায়, “উদ্ধারকৃত অভিবাসীরা লিবিয়ার টহল নৌকার হাতে ধরে পড়ে ফেরত পাঠানো এড়াতে মাঝ সমুদ্রে ঝাঁপ দিয়েছিলেন। নৌকাটিতে প্রায় একশ মানুষ ছিলেন। নৌকায় থাকা বাকিদের লিবিয়ার উপকূলরক্ষী সেদেশে ফিরিয়ে নিয়ে যায়।”

এই অভিবাসন সংগঠনটি আরও জানায়, “আগের রাতে অন্য একটি অনিশ্চিত ও ঝুঁকিপূর্ণ নৌকায় থাকা ১১ জন ব্যক্তিকে উদ্ধারে করে জাহাজে নিয়ে আসা হয়।”

এদিকে, ১৩ জুন জার্মান উদ্ধার জাহাজ সী-আই ৪ একটি ডিঙ্গি নৌকা থেকে ৬৩ জন অভিবাসীকে উদ্ধার করে বলে জানা গেছে। উদ্ধারকৃতদের মধ্যে একটি শিশুসহ সাত নারী এবং ৩১ জন নাবালক রয়েছে।


এনজিওটি জানায়, উদ্ধারের পর জাহাজে থাকা জরুরি চিকিৎসা টিম পানিশূন্যতা ও পেটব্যথা জনিত অসুখে আক্রান্ত ব্যক্তিদের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করেছিল।

সাম্প্রতিক সময়ে এনজিওগুলো নিজেদের মধ্যে বেশ শৃঙ্খলাবদ্ধ হয়ে উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করেছে। অনেক অভিবাসী বর্তমানে ইউরোপ পৌঁছানোর আশায় সমুদ্র অতিক্রম করার চেষ্টা করছে। 

আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) এর দেয়া তথ্য অনুসারে, চলতি বছর ইতোমধ্যে প্রায় ৭০০ জন মানুষ মধ্য ভূমধ্যসাগরে প্রাণ হারিয়েছেন।


এমএইউ/এআই


 

অন্যান্য প্রতিবেদন