উত্তর ইটালির একটি ফলের বাগানে কাজ করছেন শ্রমিকরা৷ ফাইল ফটো: আনসা৷
উত্তর ইটালির একটি ফলের বাগানে কাজ করছেন শ্রমিকরা৷ ফাইল ফটো: আনসা৷

ইটালির কৃষিখাতে কর্মরত শ্রমিকদের শতকরা ৩০ ভাগই অভিবাসী ও শরণার্থী। সে হিসেবে দেশটির কৃষিখাতে মোট বিদেশি শ্রমিকের সংখ্যা তিন লাখ ৫৮ হাজার।

ইটালির কৃষকদের সংগঠন কোলদিরেত্তি গত সোমবার এক বিবৃতিতে এই তথ্য জানায়। 

তথ্য অনুযায়ী, বিদেশিরা শুধু শ্রমিক হিসেবেই ইটালির কৃষিখাতে কাজ করছেন, বিষয়টি এমন নয়। অভিবাসী ও শরণার্থীরা দেশটির কৃষিখামারের মালিকও হয়ে উঠছেন। সংগঠনটির তথ্য অনুযায়ী, ইটালিতে ১৭ হাজার বিদেশির নিজস্ব কৃষিখামার রয়েছে।    

দ্রুত কাজের অনুমতি দেওয়ার আহ্বান

সংগঠনটির দাবি, ইটালির বিভিন্ন অঞ্চলের অর্থনৈতিক উন্নয়নে বিদেশি শ্রমিকরা গুরুত্বর্পূণ অবদান রাখছেন। উদাহরণ হিসেবে তারা দেশটির ভেরোনা, ফ্রিউলি, ট্রেনটিনোসহ বিভিন্ন অঞ্চলে উদাহরণ দেয়, যেখানে স্ট্রবেরি, আপেল, আঙুরসহ নানা ধরনের ফলের চাষ হচ্ছে। এসকল খামারে বিদেশি শ্রমিকদের যথেষ্ট অবদান রয়েছে বলে জানায় সংগঠনটি।  

পড়ুন: শ্রমিক শোষণের অভিযোগে ইটালিতে মরক্কোর নাগরিক আটক

এমন পরিস্থিতিতে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের বাইরে থেকে আসা শ্রমিকদের দ্রুত কাজের অনুমতি প্রদানের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানায় সংগঠনটি।  

তাদের দাবি, আমলাতান্ত্রিক জটিলতার কারণে কাজের অনুমতি না পাওয়ায় কৃষিখাতে শ্রমিকের ঘাটতি তৈরি হয়েছে। 

শোষিত হচ্ছেন শ্রমিকেরা!

টালির কৃষিখাত বিদেশি শ্রমিকদের উপর নানাভাবে নির্ভরশীল হলেও, শ্রমিকেরা কর্মক্ষেত্রে বঞ্চনার শিকার হন এমন অভিযোগ আছে। 

সংবাদ মাধ্যমের খবর অনুযায়ী, যে সকল অভিবাসীর বৈধ কাগজপত্র নেই, তারাই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বঞ্চনার মুখে পড়েন। 

পড়ুন: ইটালির পুগলিয়ায় কৃষিশ্রমিক ঘাটতি

এসকল শ্রমিক ঘণ্টা প্রতি কম মজুরিতে কাজ করতে, আস্বাস্থ্যকর বাসস্থানে থাকতে এবং প্রচণ্ড রোদে ক্ষেতে কাজ করতে বাধ্য হন, এমন অভিযোগ রয়েছে।  

গত সপ্তাহে দক্ষিণ ইটালির বাসিলাকাটা কর্তৃপক্ষ ও খামার মালিকদের মধ্যে শ্রমিকদের শোষণ ঠেকানোর লক্ষ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

আরআর/এসিবি (আনসা)

 

অন্যান্য প্রতিবেদন