পশ্চিম আফ্রিকার বিভিন্ন দেশের অভিবাসনপ্রত্যাশীরা নাইজারের এই পথ ধরে লিবিয়া পৌঁছানোর চেষ্টা করে থাকেন৷ ফাইল ফটো: পাপে সিরে কেইন/এমএসএফ
পশ্চিম আফ্রিকার বিভিন্ন দেশের অভিবাসনপ্রত্যাশীরা নাইজারের এই পথ ধরে লিবিয়া পৌঁছানোর চেষ্টা করে থাকেন৷ ফাইল ফটো: পাপে সিরে কেইন/এমএসএফ

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ নাইজারের লিবিয়া সংলগ্ন সীমান্তের মরুভূমি থেকে ১০ জন অভিবাসীর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে৷ নাইজারের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বৃহস্পতিবার এই তথ্য জানায়৷

নাইজারের সেনাবাহিনীর সদস্যরা গত সপ্তাহে দেশটির লিবিয়া সীমান্তবর্তী মরুভূমিতে পাহারা দিচ্ছিলেন৷ এসময় নাইজারের ডিরাকো শহর থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরে মরুভূমিতে কয়েকটি কবরের সন্ধান পান তারা৷ পরে সেই কবরগুলো থেকে ১০ জন অভিবাসীর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়৷

এই বিষয়ে বিস্তারিত আর কোনো তথ্য প্রকাশ করেনি নাইজারের সেনাবাহিনী৷ তবে ওই অভিবাসীরা কীভাবে নিহত হয়েছেন তা জানতে তদন্ত চলছে বলে জানা গেছে৷

এদিকে দেশটির একজন সংসদ সদস্য বার্তা সংস্থা এএফপিকে জানান, এমন হতে পারে যে, মানবপাচারকারীরা এই অভিবাসীদেরকে মরুভূমিতে ফেলে চলে গেছে৷

উল্লেখ্য, নাইজারের ডিরাকো শহরের ওই এলাকাটিকে মানবপাচার, অস্ত্র এবং মাদক চোরাচালানের গুরুত্বপূর্ণ পথ বলা হয়ে থাকে৷ 

পড়ুন: লিবিয়া: চাদের কাছে মরুভূমি থেকে ২০ অভিবাসীর মৃতদেহ উদ্ধার

পশ্চিম আফ্রিকার বিভিন্ন দেশের অভিবাসনপ্রত্যাশীরা এই পথ ধরে লিবিয়া পৌঁছানোর চেষ্টা করে থাকেন৷ আর সেখান থেকে সমুদ্র পাড়ি দিয়ে ইউরোপে পৌঁছানোর লক্ষ্য থাকে তাদের৷

এই পথ পাড়ি দিতে গিয়ে প্রায়ই তারা যানবাহন নষ্ট হয়ে মরুভূমিতে আটকা পড়েন৷ তাছাড়া মরুভূমিতে রাস্তা হারিয়ে ফেলার ঘটনাও ঘটে বলে জানা গেছে৷ 

এর আগে গত বুধবার লিবিয়ার জরুরি পরিষেবা দপ্তর জানায়, মধ্য আফ্রিকার স্থলবেষ্টিত দেশ চাদ সংলগ্ন লিবিয়া সীমান্তের মরুভূমিতে ২০ অভিবাসীর মৃতদেহ পাওয়া গেছে৷ নিহত অভিবাসীরা ১৪ দিন আগে মারা গেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে৷

আরআর/এসিবি (এএফপি)

 

অন্যান্য প্রতিবেদন