মেলিলা সীমান্তে সংঘর্ষে আহত একজন অভিবাসীকে অন্যত্র নিয়ে যাচ্ছেন অন্য অভিবাসীরা। ছবি: এপি ফটো
মেলিলা সীমান্তে সংঘর্ষে আহত একজন অভিবাসীকে অন্যত্র নিয়ে যাচ্ছেন অন্য অভিবাসীরা। ছবি: এপি ফটো

জুন মাসে স্পেন-মরক্কো সীমান্তের মেলিলা ছিটমহলে নজিরবিহীন সংঘর্ষে জড়ায় হাজারো অভিবাসী৷ সেই ঘটনায় অবৈধ প্রবেশের চেষ্টার দায়ে ১৪ অভিবাসীকে আট মাসের কারাদণ্ড দিয়েছে মরক্কোর একটি আদালত৷

নাদোর শহরের আদালত কারাদণ্ডের পাশাপাশি ২৪ জুনের সংঘর্ষের ঘটনায় জড়িত থাকার অপরাধে অভিযুক্তদের প্রত্যেককে দুই হাজার দিরহাম বা ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে৷ অভিযুক্তরা ঐদিন আরো অনেক অভিবাসীর সঙ্গে উত্তর আফ্রিকায় অবস্থিত স্প্যানিশ ছিটমহল মেলিলায় প্রবেশের চেষ্টা করেন৷ এ সময় সহিংসতার জেরে হতাহতের ঘটনা ঘটে৷

স্প্যানিশ ছিটমহলের সীমান্তবর্তী মরক্কোর শহর নাদোরে সক্রিয় অধিকার সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন ফর হিউম্যান রাইটসের (এএমডিএইচ) তথ্য অনুযায়ী সেদিন স্পেনে প্রবেশের চেষ্টাকারীদের অন্তত ২৭ জন মারা যান৷ সেই সঙ্গে আরও অনেক অভিবাসী ও পুলিশ আহত হন৷

পড়ুন>>অভিবাসন আইন সহজ করলো স্পেন

এএমডিএইচ এক প্রতিক্রিয়ায় আদালতের দেয়া রায়ের নিন্দা জানিয়েছে৷ বিবৃতিতে তারা বলেছে, “আদালত শুধু আশ্রয় নিতে চাওয়া অভিবাসীদের বিরুদ্ধেই অত্যন্ত কঠোর ভূমিকা নিয়েছে৷’’

মেলিলা কাণ্ডে নাদোর শহরের এই আদালত গত মাসের ২৪ জুন ৩৩ অভিবাসীকে ১১ মাসের কারাদণ্ড দিয়েছিল

বসবাসের অনুমতি না থাকা এই ৩৩ জনের বিরুদ্ধে মরক্কোতে বেআইনি প্রবেশ, আইন প্রয়োগকারী কর্মকর্তাদের সঙ্গে সহিংসতায় জড়ানো, বিভিন্ন অস্ত্র বহন এবং পুলিশের আদেশ অমান্য করার অভিযোগ আনা হয়েছিল৷

সীমান্তে সংর্ষের ঘটনায় ২৯ জন অভিবাসীর তৃতীয় আরেকটি দলকেও বিচারের আওতায় আনার প্রক্রিয়া চলছে৷ ১৩ জুলাই চালু হওয়া এই মামলার কার্যক্রম প্রয়োজনীয় সাক্ষীদের অনুপস্থিতির কারণে আগামী ১৭ আগস্ট পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছে৷

আরও পড়ুন>মরোক্কোতে মানবপাচারের অভিযোগে গ্রেফতার অভিবাসী

মরক্কো কর্তৃপক্ষ তাদের বিরুদ্ধে মানবপাচার চক্রের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ এনেছে৷


এমএইউ/এফএস


 

অন্যান্য প্রতিবেদন