অস্ট্রিয়া সীমান্ত পুলিশের টহল থেকে পালাতে গিয়ে একটি অভিবাসী ভ্যান উল্টে নিহত হয়েছেন তিন অভিবাসী। ছবি: ফ্লিকার
অস্ট্রিয়া সীমান্ত পুলিশের টহল থেকে পালাতে গিয়ে একটি অভিবাসী ভ্যান উল্টে নিহত হয়েছেন তিন অভিবাসী। ছবি: ফ্লিকার

অস্ট্রিয়ায় সীমান্ত পুলিশের টহল থেকে পালানোর সময় চার শিশুসহ ২০ অভিবাসীকে বহনকারী একটি ট্রাক উল্টে যায়৷ এই ঘটনায় নিহত হয়েছেন তিন অনিয়মিত অভিবাসী৷

১৩ আগস্ট অস্ট্রিয়ায় অভিবাসীদের বহনকারী একটি ভ্যান উল্টে তিনজন অনিয়মিত অভিবাসী নিহত এবং বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন৷ 

অস্ট্রীয় পুলিশের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গাড়িটি সীমান্ত পুলিশকে এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে সড়কে উল্টে যায়৷

দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানানো হয়েছে, স্লোভাকিয়ার সীমান্ত চৌকিতে বার্গেনল্যান্ডে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে৷

পড়ুন>>অস্ট্রিয়ায় মানবপাচারকারী সন্দেহে গ্রেফতার ১৫

অস্ট্রীয় বার্তা সংস্থা এপি জানায়, নিহতদের মধ্যে দুজন পুরুষ ও একজন নারী রয়েছেন৷ 

বার্গেনল্যান্ড পুলিশের মুখপাত্র হেলমুট মারবান বলেছেন, নিহত ও আহতদের মধ্যে বেশ কয়েকজন সিরীয় নাগরিক রয়েছেন৷ ভ্যান উল্টে চার শিশুসহ বিশজন চাপা পড়েন৷ 

হেলমুট মারবান আরও বলেন, গাড়িটির রুশ বংশোদ্ভুত চালককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী গেরহার্ড কার্নার এক বিবৃতিতে বলেছেন, “কিটসি/জারভসে সীমান্তে তিনজন অভিবাসীর মর্মান্তিক মৃত্যুতে আমরা আবারও মানবপাচারকারী মাফিয়াদের বর্বরতা এবং নির্মমতা দেখতে পেলাম৷’’

হাঙ্গেরি সীমান্তেও দূর্ঘটনা

মে মাসে অস্ট্রিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দাবি করেছিল, হাজার হাজার অনিয়মিত সিরীয় অভিবাসীদের হাঙ্গেরি থেকে অস্ট্রিয়ায় পাচারে জড়িত একটি মানব পাচার নেটিওয়ার্ককে ভেঙ্গে দেয়া হয়েছে৷

পড়ুন>>ট্রাকের ‘গোপন বাক্সে’ ভয়ংকর মানব পাচার

অভিযুক্ত নেটওয়ার্কটি একাধিক ঘটনার সঙ্গে জড়িত ছিল৷ ২০২১ সালের অক্টোবরে, হাঙ্গেরি সীমান্তে আটকানো একটি ভ্যানে শ্বাসরোধে দুই অভিবাসী মারা যান৷ এই সংগঠনের সদস্যদের হাতে নির্যাতনের শিকার হন আরও ২৭ অভিবাসী৷

২০১৫ সালে একটি ট্রাকে শিশুসহ ৭১টি মৃতদেহ পাওয়া গিয়েছিল যারা শ্বাসরোধে মারা যান৷ এসব অভিবাসীরা হাঙ্গেরিতে ট্রানজিট জোনে মারা গেলেও তাদেরকে সীমান্তের অস্ট্রিয়া অংশ থেকে উদ্ধার করা হয়েছিল৷

ইউরোপীয় ইউনিয়নের পুলিশ সংস্থা হিসেবে পরিচিত ইউরোপোল চলতি বছরের ৩জুন জানায়, ‘‘ইউরোপোলের জার্মান নেতৃত্বাধীন টাস্কফোর্স আটজন ‘অত্যন্ত বিপজ্জনক’ হিসেবে অভিযুক্ত শীর্ষ মানব পাচারকারী এবং অস্ট্রিয়া থেকে তাদের আরও ১২৬ জন সহযোগীকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷’’

পড়ুন>>অস্ট্রিয়ায় নিখোঁজ চার হাজারেরও বেশি অভিভাবকহীন অভিবাসী শিশু

নেদারল্যান্ডসের হেগভিত্তিক ইইউ’র এই সংস্থাটি এক বিবৃতিতে জানিয়েছিল, ‘‘এটি ইউরোপোলের সর্বোচ্চ নজরদারিতে থাকা অভিযানের একটি৷ অভিযুক্ত পাচারচক্রের কাছে সিরীয় নাগরিকদের পাচারের উৎস, তাদের ট্রানজিট এবং তাদের গন্তব্য দেশের মধ্যে বৈশ্বিক সংযোগ ছিল৷’’



এমএইউ/এফএস


 

অন্যান্য প্রতিবেদন