আশ্রয় কাঠামোগুলোতে আবাসন সংকটের কারণে প্রতিদিন আনুমানিক ১৫০ আশ্রয়প্রার্থীকে নেদারল্যান্ডসের প্রধান আশ্রয়কেন্দ্রের বাইরে ঘুমোতে হচ্ছে। ছবি: পিকচার এলায়েন্স।
আশ্রয় কাঠামোগুলোতে আবাসন সংকটের কারণে প্রতিদিন আনুমানিক ১৫০ আশ্রয়প্রার্থীকে নেদারল্যান্ডসের প্রধান আশ্রয়কেন্দ্রের বাইরে ঘুমোতে হচ্ছে। ছবি: পিকচার এলায়েন্স।

আবাসন সংকট ও অব্যবস্থাপনার কারণে নেদারল্যান্ডসে আসা আশ্রয়প্রার্থী ও শরণার্থীরা অমানবিক আচরণের শিকার হচ্ছে দাবি করে সরকারের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে দেশটির রিফিউজি কাউন্সিল৷ এর আগে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য তারা সময়সীমা বেধে দিয়েছিলে৷

প্রায় এক বছর ধরে নেদারল্যান্ডসের আশ্রয় অবকাঠামোগুলোতে আবাসন সংকট চলছে৷ এর ফলে দেশটিতে আসা হাজার হাজার আশ্রয়প্রার্থী ও শরণার্থীদের বিভিন্ন অস্থায়ী তাঁবু, জিমনেসিয়াম এবং সরকারি হলগুলিতে ঘুমাতে হয়েছে৷ এটিকে ‘অমানবিক’ আখ্যা দিয়ে নেদারল্যান্ডস কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করেছে দেশটির শরণার্থী কাউন্সিল৷ 

এই সংস্থাটি আশ্রয়প্রার্থী ও শরণার্থীদের জন্য ব্যক্তিগত গোপনীয়তার সুরক্ষা, স্বাস্থ্যসেবা,বাসস্থান, মানসম্মত খাবার, গোসল ও পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা নিশ্চিতে সরকারকে বাধ্য করতে চায়৷

এর আগে ১ আগস্টের মধ্যে এই বিষয়ে ন্যূনতম ব্যবস্থা গ্রহণে সরকারকে সময়সীমা বেধে দেয় তারা৷ এর মধ্যে দাবি মানা না হলে বিষয়টি তারা আদালতে যাবে বলেও জুলাইয়ের শুরুতে হুমকি দিয়েছিল নেদারল্যান্ডস রিফিউজি কাউন্সিল৷



কিন্তু সরকার কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নেয়নি এমন দাবি করে বুধবার হেগের আদালতে মামলা দায়ের করেছে সংস্থাটি৷ 

এক বিবৃতিতে ডাচ রিফিউজি কাউন্সিল জানায়, “আজ আমরা এই অভ্যর্থনা সংকটের সমাধানের জন্য আদালতে যাচ্ছি৷’’

টেকসই পদক্ষেপের দাবি

গত কয়েক সপ্তাহে নেদারল্যান্ডসের উত্তর-পূর্বে জার্মান সীমান্তে অবস্থিত টের আপেল জাতীয় আশ্রয় কেন্দ্রের পরিস্থিতি অত্যন্ত সংকটজনক পর্যায়ে পৌঁছায়৷

আশ্রয়কেন্দ্রটির বাইরে প্রচুর জনসমাগমের কারণে কয়েকশো অভিবাসীকে অপেক্ষা কেন্দ্রের বাইরে এবং চেয়ারেও ঘুমাতে হয়েছে৷

নেদারল্যান্ডস রিফিউজি কাউন্সিলের মতে, “পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বাইরে চলে গেছে৷’’

দেশটির সরকারের আশ্রয় বিষয়ক মুখপাত্র এরিক ভন ডেন বার্গ এর আগে আবাসন সংকট নিয়ে ‘অস্থিতিশীল পরিস্থিতির’ কথা বলেছিলেন৷ তিনি আশ্রয়প্রার্থীদের গ্রহণ করতে সংশ্লিষ্ট পৌরসভাগুলোকে বাধ্য করতে চান৷

আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে আদালতে রিফিউজি কাউন্সিলের মামলার কার্যক্রম শুরু হওয়ার কথা৷

আশ্রয় কেন্দ্রের বাইরে স্থাপিত অস্থায়ী তাঁবুতে আশ্রয় নেয় বহু আশ্রয়প্রার্থী। ছবি: ইমাগো
আশ্রয় কেন্দ্রের বাইরে স্থাপিত অস্থায়ী তাঁবুতে আশ্রয় নেয় বহু আশ্রয়প্রার্থী। ছবি: ইমাগো


নেদারল্যান্ডসে আশ্রয়কেন্দ্র ও অভ্যর্থনা কাঠামোগুলোতে আবাসন সংকটের কারণ হচ্ছে আশ্রয় আইনে বাজেট কমিয়ে দেয়া এবং বেশ কিছু আশ্রয় কেন্দ্র বন্ধ করে দেয়া। 

শরণার্থী কাউন্সিলের পরিচালক ফ্রাঙ্ক ক্যান্ডেল বলেন, “অভিবাসীদের থাকার জন্য এখন কোনো জায়গা নেই এবং অপেক্ষার সময় দিন দিন বাড়ছে৷ এটি কোনো বলপ্রয়োগের বিষয় নয়, বরং বছরের পর বছর ধরে নেয়া ব্যর্থ অভিবাসন নীতিগুলির কারণে এই অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে৷’’

তবে, ইউক্রেন থেকে আসা ৬০ হাজার শরণার্থী এই সংকটের বাইরে রয়েছে৷ কারণ তাদেরকে বিশেষ প্রশাসনিক মর্যাদা দিয়ে ডাচ পৌরসভাগুলোর আবাসন কাঠামো অথবা সাধারণ নাগরিকদের ব্যক্তিগত বাড়িতে রাখা হয়েছে৷


এমএইউ/এফএস























 

অন্যান্য প্রতিবেদন