গ্রিসের লাপাসের একটি খামারে কাজ করছেন এক বাংলাদেশি শ্রমিক৷ ছবি- আরাফাতুল ইসলাম৷ ডয়চে ভেলে৷
গ্রিসের লাপাসের একটি খামারে কাজ করছেন এক বাংলাদেশি শ্রমিক৷ ছবি- আরাফাতুল ইসলাম৷ ডয়চে ভেলে৷

ইউরোপের দেশ গ্রিসের রাজধানী এথেন্সের নিকটবর্তী লাপাস শহরে বাস করেন বেশ কয়েক হাজার বাংলাদেশি৷ কিন্তু সম্প্রতি সেখানে এক বাংলাদেশি অভিবাসী নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে আতঙ্কে আছেন সেই এলাকায় বসবাসরত অন্যান্য বাংলাদেশিরা৷

গ্রিসে বসবাসরত বাংলাদেশিদের পরিস্থিতি জানতে দেশটিতে রয়েছেন ডয়চে ভেলে ও ইনফোমাইগ্রেন্টসের সংবাদকর্মীর  

জানা গেছে, বেশ কিছুদিন আগে সেখানে অবস্থানরত মোহাম্মদ ওয়াহিদ মিয়া নামে এক বাংলাদেশি নিখোঁজ হন৷ লাপাতে অবস্থানরত বাংলাদেশিরা জানান, ওয়াহিদ মিয়া একটি বাংলাদেশি দোকানে কাজ করতেন৷ সেই সাথে তিনি হুণ্ডি ব্যবসার সাথেও জড়িত ছিলেন৷ 

লাপাসে অবস্থানরত বাংলাদেশি অভিবাসী  মোহাম্মদ মকবুল হোসেন ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘লাপাসে আমি দশ বছর ধরে আছি৷ অনেক শান্ত পরিবেশ ছিল৷ কিছুদিন আগে একজন গুম হয়েছে৷ তিনি দোকানে চাকরি করতেন৷ কে বা কারা তাকে নিখোঁজ করেছে আমরা জানি না৷’’ 

লাপাসের বাংলাদেশি অভিবাসীদের তথ্য অনুযায়ী, নিখোঁজ হওয়ার পর ওয়াহিদের মামা স্থানীয় থানায় একটি মামলা দায়ের করেন৷ জানা গেছে, মামলা হওয়ার পর থেকে বাংলাদেশি দোকানী অর্থাৎ যে দোকানে ওয়াহিদ কাজ করতেন সেই দোকান মালিক পলাতইউরোপের মতো একটি দেশে এভাবে নিখোঁজ হয়ে যাওয়ায় আতঙ্কিত বাংলাদেশি অভিবাসীরা৷ 

পড়ুন: ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কায় গ্রিসের বাংলাদেশিরা

মোহাম্মদ মকবুল হোসেন বলেন, ‘‘শুধু আমি না, আমরা যারা লাপাসে বাস করি প্রায় সব লোকই আতঙ্ক বোধ করি৷ আমাদের রাত-বিরাতে চলাফেরা করতে হয়৷ রাত দুইটা-তিনটা সময় যেতে হয়৷’’ প্রায় ১২ বছর ধরে  গ্রিসে অবস্থান করা আরেক বাংলাদেশি অভিবাসী রফিক জানান, ‘‘এটা আমরা মেনে নিতে পারি না৷ আমরা আতঙ্কিত৷’’ 

বাংলাদেশি সবজি চাষ

এদিকে লাপাসের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে অভিবাসী বাংলাদেশিদের অনেকেই সেখানে কৃষিকাজে জড়িত৷ বাংলাদেশ থেকে বীজ এনে তারা নানা ধরনের সবজি চাষ করছেন৷

ভূমধ্যসাগরের দেশ গ্রিসের আবহাওয়া অনেকটা বাংলাদেশের মতো হওয়ায় সেখানে কৃষিক্ষেতে বাংলাদেশি সবজির উৎপাদন ভালো হয় বলে জানা গেছে৷লাপাসের বেশ কয়েকটি কৃষিজমিতে দেখা গেছে বাংলাদেশিরা বিভিন্ন সবজি যেমন লাউ, শিম, বরবটি, পটল, মিষ্টি কুমড়া ও কচুসহ নানা ধরনের সবজির চাষ করছেন৷

এই এলাকাটিতে প্রায় ১২ বছর ধরে কৃষিকাজ করছেন বাংলাদেশের ঝালকাঠি থেকে আসা অভিবাসী রফিকুল ইসলাম৷ বেশ কয়েক একর জমিতে তিনি বর্তমানে ২১ ধরনের বাংলাদেশি সবজির চাষ করছেন৷

জানালেন, এ সকল সবজির বীজ তিনি বাংলাদেশ থেকে এনেছেন৷ তার খামারে বর্তমানে ৪০ থেকে ৪৫ জন শ্রমিক কর্মরত আছেন যারা সবাই বাংলাদেশি৷  

ডয়চে ভেলেকে রফিক জানান, এই সবজি রাজধানী এথেন্সের বিভিন্ন দোকানে সরবরাহ করা হয়৷ আর এ সবজির ভোক্তা মূলত বাংলাদেশ, ভারত ও পাকিস্তানি অভিবাসীরা৷  

এদিকে সম্প্রতি বাংলাদেশ থেকে  গ্রিক সরকারের শ্রমিক আনার বিষয়ে সম্পাদিত চুক্তির বিষয়ে বেশ আশাবাদী রফিক৷ 

তার মতে, দেশটিতে চাকরির নানান সুবিধা রয়েছে যা বাংলাদেশি অভিবাসীদের জন্য একটি সুযোগ হয়ে উঠতে পারে৷ তবে বাংলাদেশিদেরকে নির্বিঘ্নে ও কম খরচে গ্রিসে আসার সুযোগ তৈরি করে দেওয়ার জন্য তিনি সরকারকে আহ্বান জানান

পড়ুন: কেন রোমানিয়া ছাড়তে চান বাংলাদেশিরা?

 

অন্যান্য প্রতিবেদন