বর্তমানে ইউভুক্ত ১১টি দেশে ইউরোপের বাইরের দেশগুলো থেকে আসা নাগরকদের ভোট দেওয়ার সুযোগ নেই। ছবি: উইকিমিড়িয়া
বর্তমানে ইউভুক্ত ১১টি দেশে ইউরোপের বাইরের দেশগুলো থেকে আসা নাগরকদের ভোট দেওয়ার সুযোগ নেই। ছবি: উইকিমিড়িয়া

ফ্রান্সের স্থানীয় নির্বাচনে ইউরোপের বাইরে থেকে আসা অভিবাসীদের ভোটাধিকারের পক্ষে সংসদে উত্থাপিত একটি বিল নিয়ে ব্যাপক বিতর্ক চলছে। ফ্রান্সের মতো ইইউ’র আরো দশটি দেশে অভিবাসীদের ভোট দেয়ার সুযোগ নেই। তবে ইউরোপের অনেক দেশ এই বিষয়ে বেশ নমনীয়।

ফ্রান্সে অবস্থানরত যেসব অভিবাসী এখনও ফরাসি নাগরিকত্ব লাভ করেননি কিন্তু বৈধভাবে ফ্রান্সে বসবাস করছেন, এমন অ-ইউরোপীয় অভিবাসীদের স্থানীয় বা মিউনিসিপ্যাল নির্বাচনে ভোটাধিকার দিতে ৯ আগস্ট সংসদে একটি বিল উত্থাপন করেছেন রাষ্ট্রপতি এমানুয়েল ম্যাক্রঁ’র নেতৃত্বাধীন দল ‘রেনসন্সঁ’ থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য চাসা উইলিয়ে।

ফরাসি সংসদে দেয়া এক বক্তব্যে এই সংসদ সদস্য বলেন, “অভিবাসীদের এই স্বীকৃতি অনেক আগেই প্রাপ্য ছিল। যারা দীর্ঘদিন ধরে আমাদের সমাজের গতিশীলতায় অংশগ্রহণ করে আসছে আমরা তাদের কাছে ঋণী।”

পড়ুন>> ডেনমার্ক থেকে প্রত্যাবাসনের ঝুঁকিতে সিরীয় তরুণীরা

অভিবাসীদের ভোটাধিকার নিয়ে বহু বছর ধরে ফরাসি বাম এবং ডান ধারার রাজনৈতিকগুলো বিভক্ত। ২০২১ সালে প্রাক্তন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ফ্রঁসোয়া ওলান্দ একটি ফরাসি গ্রামে নির্বাচনি প্রচারণার সময় একই প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, যা পরবর্তীতে রাখা হয়নি।

বর্তমানে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সদস্য নয় এমন দেশ থেকে আসা অভিবাসীরা ফ্রান্সে কয়েক দশক বসবাসের পরেও ফ্রান্সের কোনো নির্বাচনে ভোট দিতে পারেন না।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের অন্যান্য দেশগুলোতে অভিবাসীদের ভোটাধিকারের বর্তমান ব্যবস্থা কেমন সেটি ইনফোমাইগ্রেন্টসের পাঠকদের সুবিধার্থে তুলে ধরা হল। 

আয়ারল্যান্ড

আয়ারল্যান্ড হল ইউরোপে ইউনিয়নের প্রথম দেশ যেখানে ১৯৬৩ সাম থেকে সকল অভিবাসীদের স্থানীয় নির্বাচনে ভোট দেওয়ার অধিকার দিয়েছে। দেশটির স্থানীয় নির্বাচনে বিদেশিরাও নির্বাচিত হওয়ার সুযোগ রয়েছে। পাশাপাশি ১৯৯২ সাল থেকে ভোট দেওয়ার এই অধিকারটি দেশটিতে থাকার ন্যূনতম সময়ের সাথে শর্তযুক্ত নয়।

লুক্সেমবার্গ

২০২১ সালের জুলাই মাস থেকে লুক্সেমবার্গে বিদেশি নাগরিকদর ভোট দেওয়ার অধিকারকে ব্যাপকভাবে সহজতর করা হয়েছে। এখন অভিবাসীরা দেশটিতে আসার সাথে সাথে স্থানীয় নির্বাচনে ভোট দিতে পারবেন। 

পড়ুন>> স্বামী বা স্ত্রীর মৃত্যু নাগরিকত্ব অর্জনে বাধা নয়: ইটালির আদালত

এই দেশটিতে স্থানীয় নির্বাচনে ভোট দিতে কমপক্ষে পাঁচ বছর বসবাসের যে শর্ত ছিল সেটি বিলুপ্ত করা হয়েছে।

যেসব দেশে এই অধিকার শর্তসাপেক্ষ

বেশ কয়েকটি ইইউ‘র দেশে একজন অ-ইউরোপীয় অভিবাসীর স্থানীয় নির্বাচনে ভোট দেওয়া দেশগুলোতে একটি নির্দিষ্ট সময় ধরে থাকার শর্তের উপর নির্ভর করে। 

দেশ ভিত্তিক এই সময়কাল দুই থেকে পাঁচ বছরের মধ্যে পরিবর্তিত হয়। উদাহরণস্বরূপ, ফিনল্যান্ডে দুই বছর, সুইডেন এবং নরওয়েতে তিন বছর, ডেনমার্কে চার বছর এবং নেদারল্যান্ড, বেলজিয়াম এবং স্লোভেনিয়ায় পাঁচ বছর বৈধভাবে বসবাসের পর স্থানীয় নির্বাচনে ভোটাধিকার প্রয়োগ করা যায়।

ভোটাধিকার দিতে অনিচ্ছুক দেশগুলো

অভিবাসীদের ভোটাধিকার দিতে জার্মানি, ইটালি এবং পোল্যান্ডও ফ্রান্সের মতো একই তরঙ্গে অবস্থান করছে। এই দেশগুলো ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য নয় এমন দেশ থেকে আসা অভিবাসীদের ভোট দেওয়ার অধিকার দেয় না৷ ১১টি ইউরোপীয় দেশের মধ্যে এই তিনটি দেশও অন্যতম যারা তাদের ভূখণ্ডে বহু বছর ধরে বসবাস করা বিদেশী নাগরিকদের স্থানীয় নির্বাচনে মতামত দেওয়ার সুযোগ দেয়নি। 

পড়ুন>> স্পেনে পাঁচ বছর পর নাগরিকত্ব পেল নৌকায় জন্ম নেওয়া শিশু

অপরদিকে এই ইস্যুটি গ্রিসে বহু রাজনৈতিক বিতর্ক তৈরি করেছে। ২০১০ সালে গ্রিসের জর্জেস পাপানড্রেউ-এর সোশ্যালিস্ট সরকার দেশটিতে চার বছর ধরে বৈধভাবে থাকা অভিবাসীদের স্থানীয় নির্বাচনে ভোট দেওয়ার অধিকার প্রদান করে।

তবে গ্রিসের সাংবিধানিক আদালত পরবর্তীতে এই ব্যবস্থাটিকে অসাংবিধানিক আখ্যা দিয়ে এটিকে বাতিল করে দেয়।

সাবেক উপনিবেশের নাগরিকদের ভোটাধিকার

স্পেন এবং পর্তুগাল সব অভিবাসীদের ভোট দেওয়ার অধিকার না দিলেও তাদের প্রাক্তন উপনিবেশ থেকে আসা অভিবাসীদের একটি নূন্যতম বসবাসের শর্তের বদলে স্থানীয় নির্বাচনে ভোট দেওয়ার সুযোগ রেখেছে। 

স্পেনের ক্ষেত্রে এটি আর্জেন্টিনা, চিলি, উরুগুয়ের নাগরিকদের জন্য প্রযোজ্য। অপরদিকে ব্রাজিল এবং কেপ ভার্দেসহ বেশ কিছু সাবেক উপনিবেশ থাকা আসা অভিবাসীরা পর্তুগালে ভোট দিতে পারেন। 

পড়ুন>> অভিবাসন আইন সহজ করলো স্পেন

অপরদিকে ইইউভুক্ত দেশ চেক প্রজাতন্ত্র এবং মাল্টা তাদের ভূখণ্ডে দীর্ঘদিন ধরে অবস্থানরত অভিবাসীদের দ্বি-পাক্ষিক চুক্তির ভিত্তিতে ভোটাধিকার দেয়ার বিষয়টি বিবেচনা করছে। 



এমএইউ/আরআর


 

অন্যান্য প্রতিবেদন