উত্তর ফ্রান্সের লুন সৈকতের নিকটে অবস্থিত এই অস্থায়ী শিবিরটিতে পাচারকারীদের মধ্যে নিয়মিত গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। ছবি: মেহেদি শেবিল/ইনফোমাইগ্রেন্টস
উত্তর ফ্রান্সের লুন সৈকতের নিকটে অবস্থিত এই অস্থায়ী শিবিরটিতে পাচারকারীদের মধ্যে নিয়মিত গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। ছবি: মেহেদি শেবিল/ইনফোমাইগ্রেন্টস

উত্তর ফ্রান্সের আলোচিত লুন সৈকতের নিকটে অবস্থিত অস্থায়ী ক্যাম্পে মঙ্গলবার ও বুধবার গুলি বিনিময়ের ঘটনায় নতুন করে দুই অভিবাসী আহত হয়েছেন। মানবপাচারকারীদের মধ্যে অর্থ ভাগাভাগির কারণে এই সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ডানকের্কের কাছে আলোচিত লুন সৈকতের পুইথাক ব্রিজের নীচে অবস্থিত শিবিরে আবারও দুই দল অভিবাসীদের মধ্যে গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটেছে। 

ফরাসি গণমাদ্যম ফ্রান্স ব্লু জানিয়েছে, বুধবার সেখানে গুলি বিনিময়ের ঘটনার পর মাথায় গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত একজন ইরাকি যুবককে লিল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

আগের দিন মঙ্গলবার আরেকটি গোলাগুলির ঘটনায় ৩২ বছর বয়সি একজন ইরিত্রীয় নাগরিকসহ দুজন আহত হয়েছিলেন। ফ্রান্স ব্লু জানায়, তাদেরকেও হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

পড়ুন>> ফ্রান্সে অনিয়মিত অভিবাসী পরিবহণের দায়ে এক পাচারকারীর ১৮ মাসের কারাদণ্ড

 উত্তর ফ্রান্সের স্থানীয় নিরাপত্তা বাহিনীর মতে, এই সহিংসতা কুর্দি পাচারকারীদের মধ্যে একে অপরকে ভীতি প্রদর্শনের উদ্দেশ্যে হতে পারে। 

বৃহস্পতিবার ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকা স্থানীয় অভিবাসন সংস্থা সালাম-এর সাধারণ সম্পাদক ক্লের মিলো জানান, অস্থায়ী শিবিরটিতে থাকা পাচারকারীদের মধ্যে সৃষ্টি হওয়া উত্তেজনার মীমাংসা হয়েছে। এখানে পাচারকারীদের মধ্যে ক্ষমতা ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ঝামেলা আছে।

পড়ুন>> কাবুল পতনের এক বছর: স্বজনদের চিন্তায় উদ্বিগ্ন আফগান শরণার্থীরা

তিনি আরও বলেন, 

পাচারকারীদের মধ্যে দ্বন্দ মিটে যাওয়া আমাদের কাছে কোন সমাধান নয়। এর ফলে সাধারণ অভিবাসীদের কোনো লাভ হচ্ছে না। কারণ সাধারণ অভিবাসীদের একে অপরের মধ্যে কোনও শত্রুতা নেই। আমরা স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছি মানবপাচারকারীরা অভিবাসীদের মধ্যে মিশে গেছে।

ক্লের মিলো আরও জানান, “উত্তর ফ্রান্স থেকে চ্যানেল পাড়ি দিয়ে ব্রিটিশ উপকূলে পৌঁছতে চাওয়া অভিবাসীদের মধ্যে যাদের কাছে কোন অর্থ নেই তাদের অনেকেই এসব নেটওয়ার্কের ‘নেতাদের’ জন্য বিনামূল্যে কাজ করেন।”  

উত্তর ফ্রান্সের স্থানীয় দৈনিক লা ভোয়া দ্যু নর্দের মতে, গত ৩০ আগস্টও একই শিবিরের গোলাগুলির ঘটনায় নয়জন অভিবাসী আহত হয়েছিলেন। তবে, এই সংঘর্ষ সুদানের ও কুর্দি পাচারকারীদের মধ্যে হয়েছিল।

পড়ুন>> পরিত্যক্ত বিমান ঘাঁটিতে আশ্রয়কেন্দ্রের পরিকল্পনা বাতিল

ক্লের মিলো বলেন, “চ্যানেল পাড়ি দিতে আসা অভিবাসীদের জন্য এটি খুবই উদ্বেগজনক। কারণ একজন অভিবাসী শান্তি চান। যুদ্ধ বা দুর্দশা থেকে বাড়ি ছেড়ে আসা অভিবাসীদের যদি আবারও একই সহিংসতার ঘটনা দেখতে হয় সেটি দুঃখজনক। তাদের এসবের প্রয়োজন নেই।”

বারবার সহিংসতার ঘটনা ঘটা লুন সৈকতের নিকটে অবস্থিত এই অস্থায়ী শিবিরটি প্রায়ই ভেঙে দেয় প্রশাসন। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার সকালে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক পুলিশের উপস্থিতিতে এই শিবিরটি আবারও উচ্ছেদ করা হয়েছে।

পড়ুন>> ফ্রান্সের সর্বোচ্চ আদালতে সীমান্ত নিয়ন্ত্রণের বৈধতা

তবে ইরাক, আফগানিস্তান এবং সুদান থেকে আসা হাজারো অভিবাসী চ্যানেল পাড়ি দেওয়ার আশায় এই শিবিরটি তৈরী করেন। 


এমএইউ/আরআর


 

অন্যান্য প্রতিবেদন