ফাইল ছবি: বুলগেরিয়ার সীমান্তে প্রশিক্ষিত কুকুর নিয়ে সীমান্ত টহল দিচ্ছে পুলিশ৷ ছবি: ভ্যাসিল ডোনেভ/ডিপিএ/পিকচার-অ্যালায়েন্স
ফাইল ছবি: বুলগেরিয়ার সীমান্তে প্রশিক্ষিত কুকুর নিয়ে সীমান্ত টহল দিচ্ছে পুলিশ৷ ছবি: ভ্যাসিল ডোনেভ/ডিপিএ/পিকচার-অ্যালায়েন্স

একটি সন্দেহভাজন মানবপাচার চক্রের ১২ সদস্যকে আটক করার তথ্য জানিয়েছে বুলগেরিয়া কর্তৃপক্ষ৷ ২৫ আগস্ট একটি অভিবাসী বহনকারী ট্রাকের আঘাতে নিহত দুই পুলিশ সদস্যের মৃত্যুতে এই চক্র জড়িত থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বুলগেরিয়ার প্রসিকিউটর কার্যালয় ২০ সেপ্টেম্বর জানিয়েছে, অভিবাসী পাচারের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ১২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে এই নেটওয়ার্কের কথিত এক নেতাও রয়েছে। যিনি একজন সিরীয় নাগরিক এবং স্থায়ীভাবে বুলগেরিয়ায় বাস করছেন।

আটক হওয়া চক্রটির এই নেতা বুলগেরিয়ার দক্ষিণের শহর প্লোভডিভে তার বান্ধবীর সাথে বসবাস করেন। তিনি পেশায় একজন আইনী পরামর্শক। 

আরও পড়ুন>> ১৪১ জন অভিবাসীকে প্রবেশে বাধা বুলগেরিয়ায়

২৫ আগস্ট, অনিয়মিত অভিবাসীদের বহনকারী একটি গাড়িকে থামাতে গিয়ে বুলগেরিয়ার উপকূলীয় শহর বুরগাসে নিহত হন দুই বুলগেরীয় পুলিশ সদস্য।

গাড়িটিতে থাকা ৪৭ জন অভিবাসীর সবাই ইস্তান্বুল থেকে রওয়ানা হয়েছেন৷ বুলগেরিয়ার ভেতর দিয়ে যাওয়ার জন্য অভিবাসীদের কাছ থেকে মানবপাচার চক্রটি মাথাপিছু দুই থেকে তিন হাজার ইউরো নিয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ।

পড়ুন>> বুলগেরিয়া থেকে ৮৪ অভিবাসীকে অর্ধনগ্ন অবস্থায় তুরস্কে পুশব্যাকের অভিযোগ

এই ঘটনার সাথে আটক ১২ ব্যক্তি ও তাদের চক্রের সম্পৃক্ততা প্রমাণে বিস্তারিত তদন্ত করছে বুলগেরিয়া পুলিশ।

পাশপাশি, দুই পুলিশ সদস্য মৃত্যুর ঘটনায় বুলগেরিয়ার বেশ কয়েকটি শহরে গ্রেপ্তার ও তল্লাশি অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। এর আগে কয়েকটি অভিযানে একটি বাড়ি থেকে ২২ জন অনিয়মিত অভিবাসীকে আটক করা হয়েছে। 

আরও পড়ুন>> 'কুকুর লেলিয়ে, নির্যাতন করে পুশব্যাক করে বুলগেরিয়ার পুলিশ'

অনিয়মিত অভিবাসন ও মানবপাচারের বিরুদ্ধে অভিযানের ধারাবাহিকতায় বুলগেরিয়া স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং প্রসিকিউটর অফিসের যৌথ উদ্যোগা পুরে দেশজুড়ে এবং সীমান্ত এলাকায় এই অভিযানগুলো পরিচালিত হচ্ছে।

পড়ুন>> অভিবাসী ঠেকাতে তুরস্ক সীমান্তে ৩৫০ সৈন্য মোতায়েন করেছে বুলগেরিয়া

অভিযানের তদারকির দায়িত্বে আছেন দেশটির জাতীয় পুলিশ মহাপরিদপ্তর কার্যালয় এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র।  


এমএইউ/এডিকে





 

অন্যান্য প্রতিবেদন