উত্তর ফ্রান্সের কালে'তে দুই অভিবাসী। ছবি: মেহেদি শেবিল/ইনফোমাইগ্রেন্টস।
উত্তর ফ্রান্সের কালে'তে দুই অভিবাসী। ছবি: মেহেদি শেবিল/ইনফোমাইগ্রেন্টস।

মঙ্গলবার উত্তর ফ্রান্সের প্রশাসনিক আদালতের পাবলিক র‍্যাপোর্টার এক পর্যবেক্ষণে বলেছেন, দুই বছরে ধরে ‘কালে’ শহরের কেন্দ্রস্থলে খাদ্য ও পানীয় বিতরণ কার্যক্রমের উপর নিষেধাজ্ঞা দিতে জারি করা ডিক্রিটি ‘অসামঞ্জস্যপূর্ণ’৷ সহায়তা কার্যক্রমের প্রক্রিয়া জটিল করার লক্ষ্যে ডিক্রিটি দেয়া হয়েছে বলে মন্তব্য করেন পাবলিক র‍্যাপোর্টার পল গ্রুউটশ৷

ইউরোপের অভিবাসন হটস্পটগুলোর মধ্যে অন্যতম আলোচিত এলাকা উত্তর ফ্রান্সের ‘কালে’ উপকূল৷ ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর থেকে একটি প্রশাসনিক ডিক্রি জারি করে কালে শহরের কেন্দ্রে অনিয়মিত অভিবাসীদের মধ্যে খাদ্য ও পানীয় বিতরণ কর্মসূচী নিষিদ্ধ ঘোষণা করে স্থানীয় পা-দ্য-কালে প্রেফেকচুর৷ 

প্রেফেকচুরের এই সিদ্ধান্ত অনেকদিন ধরে আইনি ভাবে চ্যালেঞ্জের চেষ্টা করে আসছে উত্তর ফ্রান্সের স্থানীয় অভিবাসন সংস্থা ও এনজিওগুলো৷ অবশেষে উত্তর ফ্রান্সের লিল শহরের প্রশাসনিক আদালতের পাবলিক রাপোর্টারের একটি মন্তব্যের সূত্র ধরে আশার আলো দেখছে সংশ্লিষ্ট এনজিওগুলো৷


অভিবাসন সংস্থা সকুর ক্যাথলিক, মেদসাঁ দ্যু মোন্দ, ওবেরজ দেস মিগ্রঁ সহ প্রায় দশটি সংস্থার দায়ের করা মামলার শুনানিতে ২০ সেপ্টেম্বর, মঙ্গলবার আদালতের পাবলিক র‍্যাপোর্টার জানিয়েছেন, “অভিবাসীদের সাহায্য কার্যক্রমের উপর নিষেধাজ্ঞা দিতে স্থানীয় প্রেফেকচুরের জারি করা ডিক্রিটি ‘অসামঞ্জস্যপূর্ণ’৷”

আরও পড়ুন>>ফ্রান্সে থাকতে ইচ্ছুক অভিবাসীদের জন্য কালেতে নতুন আশ্রয়কেন্দ্র

র‍্যাপোর্টার আরও জানায়, “একটি অনিশ্চিত পরিস্থিতিতে থাকা জনগোষ্ঠীকে মৌলিক প্রয়োজনীয়তার সুবিধা থেকে বঞ্চিত করতে এই ডিক্রিটির ভূমিকা রয়েছে৷ পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এই ডিক্রির সময়সীমা বর্ধিত করার সব কার্যক্রম স্থগিত করা হলো৷’’

বিগত দুই বছর ধরে প্রতি মাসে এই ডিক্রির মেয়াদ নবায়নের পেছনে কর্তৃপক্ষের যুক্তি ছিল, “জনশৃঙ্খলা বিঘ্ন ঘটতে পারে এমন সম্ভাব্য পরিস্থিতির অবসান ঘটাতে এবং করোনা মহামারি জনিত স্বাস্থ্যঝুঁকি সীমিত করতে কালের কেন্দ্রে খাদ্য বিতরণ কর্মসূচীতে নিষেধাজ্ঞা প্রদান করা হয়েছে৷’’

পড়ুন>>‌‌উত্তর ফ্রান্সে আবারও পাচারকারীদের মধ্যে গোলাগুলি

তবে, মঙ্গলবার লিলের প্রশাসনিক আদালতের পাবলিক র‍্যাপোর্টারের মন্তব্যে এ ডিক্রির ব্যাপারে বেশ কিছু যৌক্তিক সমালচনা উঠে এসেছে। 

পাবলিক র‍্যাপোর্টার পল গ্রুউটশের মতে, “জনশৃঙ্খলার ব্যাপারে প্রদান করা যুক্তিগুলো প্রতিষ্ঠিত হলেও এর ফলে সৃষ্ট বাধাগুলো বিচ্ছিন্ন ও গুরুতর নয়৷ এগুলো অভিবাসীদের মধ্যে খাদ্য বিতরণের সাথে যুক্ত নয়৷ সংস্থাগুলো অভিবাসীদের মধ্যে মাস্কও বিতরণ করত৷ এই ডিক্রির ফলে এটিও বন্ধ করা হয়েছে৷ যা অত্যন্ত উদ্বেগজনক৷’’


যেহেতু পাবলিক র‍্যাপোর্টারের মতামত বিচারকের রায় নয় সে কারণে অভিবাসন সংস্থাগুলো এই পর্যবেক্ষণকে স্বাগত জানালেও আইনি লড়াই চালিয়ে যাবে বলে জানিয়েছে৷ 

আরও পড়ুন>>ইইউ দেশগুলোর স্থানীয় নির্বাচনে অভিবাসীদের ভোটাধিকার

বার্তা সংস্থা এএফপিকে অভিবাসন সংস্থা সকুর ক্যাথলিকের সদস্য জুলিয়েত দেলাপ্লাস বলেন,  “আমরা মনে করছি পাবলিক রাপোর্টার পল গ্রুউটশ আমাদের দাবি অনুধাবন করতে পেরেছেন। আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, সংস্থাগুলোকে রাষ্ট্রীয় অনুমতি ছাড়া দেওয়া না হলে ভুক্তভোগী অভিবাসীদের কাছে খাদ্য ও পানীয় পৌঁছবে না৷’’

আরেক অভিবাসন সংস্থা ওবেরজ দেস মিগ্রঁ এর সদস্য পিয়ের রুকে ইনফোমাইগ্রেন্টসকে বলেন, “এই সংকেত অবশ্যই ইতিবাচক, তবে এত তাড়াতাড়ি চূড়ান্ত বিজয় ঘোষণা করা উচিৎ হবে না। আমরা কয়েক সপ্তাহের মধ্যে বাকি আইনি প্রতিক্রিয়া দেখতে পারব৷

পড়ুন>>ফ্রান্সে অনিয়মিত অভিবাসী পরিবহণের দায়ে এক পাচারকারীর ১৮ মাসের কারাদণ্ড

আইন অনুযায়ী, লিলের প্রশাসনিক আদালতের দুই থেকে তিন সপ্তাহের মধ্যে এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেওয়ার কথা রয়েছে। পাবলিক র‍্যাপোর্টারের পর্যবেক্ষণের চূড়ান্ত আইনি ভিত্তি ফরাসি বিচার ব্যবস্থায় নেই। তার প্রস্তাবনাগুলো অনুসরণ করা হবে কি না তা সিদ্ধান্ত নেওয়া বিচারকদের উপর নির্ভর করে।


এমএইউ/এফএস 




 

অন্যান্য প্রতিবেদন