বুলগেরিয়া-তুরস্ক সীমান্তের একটি অংশের দৃশ্য। ছবিঃ এএফপি
বুলগেরিয়া-তুরস্ক সীমান্তের একটি অংশের দৃশ্য। ছবিঃ এএফপি

বুলগেরিয়া-তুর্কি সীমান্তে আংশিক জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা দিয়েছে বুলগেরিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। দেশটির সীমান্তবর্তী স্ভিলেনগ্রাদ এবং টপোলোভগ্রাদ শহরে অনিয়মিত অভিবাসীদের ব্যাপক আগমনের চাপ কমাতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে সোফিয়া।

তুর্কি সীমান্তে নতুন করে অভিবাসন স্রোত শুরু হয়েছে এই দাবি করে সীমান্তের বেশ কিছু অঞ্চলে জরুরি অবস্থার জারি করেছে বুলগেরিয়া স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

সীমান্তবর্তী স্ভিলেনগ্রাদ এবং টপোলোভগ্রাদ অঞ্চলের বুরগাস, ইয়াম্বোল এবং হাসকোভো এলাকায় আংশিক এই জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে।

পাশাপাশি সমস্যা মোকাবিলায় প্রতিবেশী দেশগুলোকে সহযোগিতার আহ্বান জানিয়েছে সোফিয়া।

পড়ুন>> বুলগেরিয়ায় সন্দেহভাজন মানবপাচার চক্রের ১২ সদস্য আটক

দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ইভান ডেমেরডজিয়েভ বলেন, “বেশিরভাগ সময় অভিবাসীরা কাঁটাতারের বেড়া অতিক্রম করতে সিঁড়ি ব্যবহার করে। আমরা তুরস্ক থেকেও সক্রিয় সাহায্যও পাই। তুর্কি সরকার এবং গ্রিসের সঙ্গে বৈঠকের পর আমরা আরও ভালো সহযোগিতা পাওয়ার আশা করছি।”

তিনি আরও বলেন, “আমাদের পাশ্ববর্তী বিভিন্ন দেশের পরিষেবাগুলির মধ্যে পারস্পরিক সহায়তা অনেক ভাল। অভিবাসীদের একটি বড় অংশ যারা আমাদের সীমান্ত অতিক্রম করতে চায় তাদের আগমন সমন্বয় এবং সীমান্ত নিয়ন্ত্রণ জোরদার করতে সহায়তার জন্য তাদেরকে ধন্যবাদ।”

আরও পড়ুন>>'কুকুর লেলিয়ে, নির্যাতন করে পুশব্যাক করে বুলগেরিয়ার পুলিশ'

সোফিয়া কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সাম্প্রতিক দিনগুলোতে তুরস্কের সঙ্গে তাদের ২৫৯ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্তে অভিবাসী চাপ বেড়েছে।

২৫ আগস্ট দেশটির পূর্বে অভিবাসী বহনকারী একটি বাসের ধাক্কায় দুই পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যুর পর থেকে অনিয়মিত অভিবাসন নিয়ন্ত্রণে অভিযান উল্লেখযোগ্যভাবে কঠোর করা হয়েছে।

পড়ুন>> ৮৪ অভিবাসীকে অর্ধনগ্ন অবস্থায় তুরস্কে পুশব্যাকের অভিযোগ


এমএইউ/এডিকে (ইউরো নিউজ)

 

অন্যান্য প্রতিবেদন