(ফাইল ছবি) গ্রিসে নামা অভিবাসীদ দলের সাথে একজন অপ্রাপ্তবয়স্ক অভিবাসী শিশু। ছবি: ইপিএ
(ফাইল ছবি) গ্রিসে নামা অভিবাসীদ দলের সাথে একজন অপ্রাপ্তবয়স্ক অভিবাসী শিশু। ছবি: ইপিএ

গ্রিস সরকার দাবি করেছে, দেশটি গত দুই বছরে ১,২০০ জনেরও বেশি বিদেশি অভিভাকহীন অপ্রাপ্তবয়স্ককে অন্য ইইউ দেশগুলোতে স্থানান্তরে সহায়তা করেছে৷

গ্রিসের আশ্রয় ও অভিবাসন বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে দাবি করা হয়েছে, দেশটি গত দুই বছরে মোট ১,২৭১ জন বিদেশি অভিভাবকহীন নাবালককে ইউরোপীয় ইউনিয়নের ১৩টি সদস্য রাষ্ট্রে স্থানান্তরিত করেছে৷

মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, আফগানিস্তান, বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ক্যামেরুন ও সোমালিয়া থেকে আসা আরও ১০ জন অভিভাবকহীন অপ্রাপ্তবয়স্ককে গত সপ্তাহে পর্তুগালে পাঠানো হয়েছে৷



ইইউ দেশগুলোতে অভিবাসী স্থানান্তর প্রকল্পের আওতায় কর্মসূচির প্রতিশ্রুত ৫৭ শতাংশ কোটা পূরণ করেছে গ্রিসের আশ্রয় ও অভিবাসন বিষয়ক মন্ত্রণালয়৷

আন্তঃদেশীয় সহযোগিতা চুক্তি

মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, অভিবাসন ও আশ্রয় মন্ত্রণালয়ের অন্তর্গত একটি বিভাগের অধীনে ২০২০ সালের এপ্রিল থেকে এই প্রকল্পটির কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে৷ অভিভাবকহীন অপ্রাপ্তবয়স্কদের সুরক্ষার জন্য আন্তর্জাতিক কনভেনশনের সব শর্ত বা এসওপি অনুসরণ করে সুশৃঙ্খল এবং নিরাপদভাবে স্থানান্তর প্রক্রিয়া বাস্তবায়ন করা হচ্ছে৷ 

আরও পড়ুন>>শরণার্থীদেরকে অবাধ চলাফেরার স্বাধীনতা দিতে ইইউর প্রতি গ্রিসের আহ্বান

গত মাসে গ্রিসের আশ্রয় ও অভিবাসন মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ইউরোপীয় কমিশন, ইইউ সদস্য রাষ্ট্রসমূহের আশ্রয় পরিষেবা, আইওএম গ্রিস, ইউএনএইচসিআর গ্রিসের মতো আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় কর্মসূচিটি বাস্তবায়ন হচ্ছে৷ এছাড়া আশ্রয়ের জন্য ইউরোপীয় ইউনিয়ন নির্ধারিত দপ্তর ইইউএএ এবং মেটাদারসি এই কর্মসূচীকে সার্বিক সমর্থন জানিয়েছে।

স্থানান্তর প্রক্রিয়ার ধীর গতি

গ্রিসে অভিভাকহীন অপ্রাপ্তবয়স্ক শিশুদের সংখ্যা দেশটির বর্তমান সক্ষমতার প্রায় কাছাকাছি৷ 

সেপ্টেম্বরের প্রকাশিত সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুসারে, দেশটিতে বর্তমানে দুই হাজার ২২৪ জন অভিভাকহীন অপ্রাপ্তবয়স্ক অভিবাসী অবস্থান করছে৷ যার মধ্যে ৮৮ শতাংশ ছেলে এবং ১২ শতাংশ মেয়ে৷ তারা বর্তমানে দেশটির বিভিন্ন আশ্রয়কেন্দ্রে রয়েছে৷

পড়ুন>>গ্রিসে অভিবাসীর সংখ্যা কমে অর্ধেক

গ্রিসের বিভিন্ন আবাসন কেন্দ্রে (শেল্টার/এসআইএল অ্যাপার্টমেন্ট) মোট দুই হাজার ৩০৪ জন অপ্রাপ্তবয়স্ককে রাখার সক্ষমতা রয়েছে। এছাড়া জরুরি আবাসন সুবিধার আওতায় আরও ১৮০ জনকে রাখার ব্যবস্থা আছে৷ 

পরিসংখ্যান অুনযায়ী, ২০২১-২০২২ সালে ইইউতে অপ্রাপ্তবয়স্ক অভিবাসীদের সংখ্যা ৭২ শতাংশ বেড়েছে৷ ইইউর পরিসংখ্যান দপ্তর ইউরোস্ট্যাট জানিয়েছে, আফগানিস্তান থেকে আগত শরণার্থীদের সংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি এর অন্যতম কারণ৷


এমএইউ/এফএস (আনসা)









 

অন্যান্য প্রতিবেদন