এজিয়ান সাগরে একটি অভিবাসী নৌকার পাশে তুরস্ক কোস্ট গার্ড। ছবি: পিকচার এলায়েন্স
এজিয়ান সাগরে একটি অভিবাসী নৌকার পাশে তুরস্ক কোস্ট গার্ড। ছবি: পিকচার এলায়েন্স

তুরস্কের ইজমির উপকূল থেকে ১৪৩ জন অনিয়মিত অভিবাসীকে উদ্ধার করেছে দেশটির উপকূলরক্ষী বাহিনী৷ আঙ্কারার অভিযোগ, গ্রিক কর্তৃপক্ষ বেআইনি পুশব্যাকের মাধ্যমে অভিবাসীদের তুরস্কের জলসীমায় ফেরত পাঠিয়েছে৷

আবারো গ্রিসের বিরুদ্ধে পুশব্যাক বা জোরপূর্বক অভিবাসীদের ফেরত পাঠানোর অভিযোগ করেছে তুরস্ক৷ 

দেশটির পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ ইজমিরের কোস্টগার্ড ইউনিট মঙ্গলবার ১৪৩ জন অভিবাসীকে উদ্ধারে তথ্য জানিয়েছে৷ তাদের অভিযোগ গ্রিক কর্তৃপক্ষ এই অভিবাসীদের তাদের সীমানা থেকে ফেরত পাঠিয়েছে৷ 

কোস্ট গার্ড কমান্ড উদ্ধার কার্যক্রমের ব্যাখ্যায় জানিয়েছে, ইজমিরের ডিকিলি ও সেফেরিহিসার জেলার উপকূলে অনিয়মিত অভিবাসীদের বহনকারী নৌকা অবস্থান করছে এমন তথ্য পাওয়ার পর সেখানে উদ্ধার দল পাঠানো হয়৷ দায়িত্বে থাকা সদস্যরা উপকূল থেকে অভিবাসীদের সফলভাবে উদ্ধারে সক্ষম হন৷ 

আরও পড়ুন>>ব্যক্তিগত বিমানে তুরস্ক থেকে ইউরোপে মানবপাচার

অপর একটি পৃথক অভিযানে, তুর্কি কোস্ট গার্ড ইউনিট সেফেরিহিসারের কাছে একটি অস্থায়ী নৌকায় থাকা ৩১ জন অনিয়মিত অভিবাসীকে আটক করে৷

আটককৃত ও উদ্ধার হওয়া অভিবাসীদের সবাইকে প্রাদেশিক অভিবাসন অফিসে নিয়ে যাওয়া হয়েছে৷

পড়ুন>>গ্রিস থেকে পুশব্যাক: তুরস্কে অভিবাসীদের মানবেতর জীবন

যুদ্ধ ও নিপীড়ন থেকে পালিয়ে নতুন জীবন শুরুর আশায় ইউরোপে আশ্রয়প্রত্যাশীদের জন্য তুরস্ক অন্যতম ট্রানজিট পয়েন্ট৷ ইউরোপ অভিমুখে অভিবাসন ঢল অনেকটাই তুরস্কের সীমান্ত নীতির উপর নির্ভর করে বলে বিবেচনা করা হয়।

মানবাধিকার গোষ্ঠী ও গণমাধ্যমগুলো প্রায়শই গ্রিক কর্তৃপক্ষের অবৈধ পুশব্যাক এবং অন্যান্য মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করে আসছে৷ 

আরও পড়ুন>>তুর্কি শিক্ষার্থীদের ইউরোপে যেতে তুরস্ক সরকারের বাধা

আশ্রয়প্রার্থীদের সমুদ্রে ফেরত পাঠানোর ঘটনার নিন্দা জানিয়ে আসছে আঙ্কারা এবং আন্তজার্তিক অধিকার গোষ্ঠীগুলো৷ তবে এই অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করে আসছে এথেন্স৷


এমএইউ/এফএস  (আনাদুলু এজেন্সি)



 

অন্যান্য প্রতিবেদন