চেক প্রজাতন্ত্র এবং স্লোভাকিয়া সীমান্তের একটি দৃশ্য। ছবি: রয়টার্স
চেক প্রজাতন্ত্র এবং স্লোভাকিয়া সীমান্তের একটি দৃশ্য। ছবি: রয়টার্স

সম্প্রতি চেক প্রজাতন্ত্র এবং অস্ট্রিয়া কর্তৃপক্ষ স্লোভাকিয়া সীমান্তে নজরদারি ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার নিজেদের ভূখণ্ডে টহল কার্যক্রম জোরদার করেছে স্লোভাকিয়া। চলতি সপ্তাহে দেশটির আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে ৪৩৫ জন অনিয়মিত অভিবাসীকে করার কথা জানানো হয়েছে।

স্লোভাকিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, চলতি মাসের ১০ অক্টোবর থেকে ১৮ অক্টোবর পর্যন্ত পরিচালিত বিভিন্ন অভিযানে ৪৩৫ জন অনিয়মিত অভিবাসী আটক হয়েছে ।

একই সময়ে দেশটির সীমান্ত পুলিশের টহল চলাকালে দুই মানবপাচারকারীকেও আটক করা হয়েছে বলে তথ্য দিয়েছে ইউরোপীয় গণমাধ্যম শেঙ্গেনভিসা ইনফো। 

আরও পড়ুন>>চেক প্রজাতন্ত্রে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে ২১ অভিবাসনপ্রত্যাশী আহত

স্লোভাকিয়া অনিয়মিত অভিবাসন ও মানবপাচারের বিরুদ্ধে চলমান অভিযানে ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে ১৭ অক্টোবর মোট ১,৬১৫ জন অনিয়মিত অভিবাসীকে দেশটিতে বিভিন্ন অঞ্চল থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। একই সময়ে ধরা পড়েছে ২৬ জন পাচারকারী।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “অনিয়মিত অভিবাসীদের ফেরত পাঠানোর নীতি বাস্তবায়নে সদস্য দেশগুলোর সাথে সহযোগিতা নিশ্চিত করতে পুলিশ বাহিনীর এবং সীমান্ত পুলিশ পরিষেবার কাজ ১৭ অক্টোবর থেকে আরও জোরদার হয়েছে। এছাড়া ডাবলিন বিধিমালায় থাক পাঁচ জনকে বিমান অধিদপ্তরের সহায়তায় বুলগেরিয়ায় স্থানান্তর করা হয়েছে।”

পড়ুন>>অভিবাসন ঠেকাতে সীমান্তে আবারো নজরদারি চেক প্রজাতন্ত্রের

মন্ত্রণালয়ের ব্যাখ্যা অনুসারে, “এই পাঁচ জন অভিবাসীকে চলতি বছরের আগস্টের শুরুতে স্লোভাকিয়ার ভূখণ্ডে আটক করা হয়েছিল। এসব অভিবাসীরা ইতিমধ্যেই বুলগেরিয়ার আশ্রয়ের জন্য আবেদন করায় ডাবলিন বিধিমালার আওতায় দেশটি তাদেরকে গ্রহণ করেছিল। এখন ইইউ-তে তাদেরকে আশ্রয় বা অন্য কোনো ধরনের সুরক্ষা দেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে বুলগেরিয়া।”

বলকান রুটে আবারও অনিয়মিত অভিবাসনের চাপ বাড়ার পর জার্মানি সহ ইইউ সদস্য দেশগুলোর আহবানে স্লোভাকিয়া স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অনিয়মিত ও অবৈধ অভিবাসন রোধে সক্রিয়ভাবে সাড়া দিয়েছে।

আরও পড়ুন>>কাজ না করলে ইউক্রেনীয় শরণার্থীদের সুবিধা দেবে না চেক প্রজাতন্ত্র!

একইসঙ্গে দেশটির পুলিশ বাহিনী হাঙ্গেরি প্রজাতন্ত্রের পুলিশের সাথে দৈনিক সহায়তার ভিত্তিতে হাঙ্গেরি সীমান্তে ও হাঙ্গেরি ভূখণ্ডের একাংশে যৌথ টহল চালু করেছে।

বৃহস্পতিবার জার্মান সংবাদমাধ্যম আরএনডি জানিয়েছে, বার্লিনে একটি সম্মেলনের আগে পশ্চিম বলকান দেশগুলোর প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলেন জার্মানির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নান্সি ফেসার।

সেইসময় তিনি বলেন, "অবৈধ অভিবাসন বন্ধ যৌথ দায়িত্ব ইউরোপীয় কর্তৃপক্ষের।”

পড়ুন>>হাঙ্গেরি সীমান্তে ২০০ অভিবাসীকে বাধা, অস্ত্র উদ্ধার

সম্মেলনে পশ্চিম বলকানের ছয়টি দেশের প্রতিনিধিদের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন ফেসার। দেশগুলি হলো, আলবেনিয়া, বসনিয়া ও হাৎর্জেগোভিনা, কসোভো, মন্টেনেগ্রো, উত্তর মেসিডোনিয়া এবং সার্বিয়া।

এই সম্মেলনে বুলগেরিয়া, ফ্রান্স, গ্রিস, ইটালি, ক্রোয়েশিয়া, অস্ট্রিয়া, পোল্যান্ড, স্লোভেনিয়া, চেক প্রজাতন্ত্র এবং যুক্তরাজ্যও যোগ দেওয়ার কথা।


এমএইউ/আরআর



 

অন্যান্য প্রতিবেদন