ফ্রন্টেক্স বিষয়ে চুক্তি স্বাক্ষরের পর আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ইইউ কমিশনে প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডেয়ার লায়েন এবং উত্তর মেসিডোনিয়ার প্রধানমন্ত্রী দিমিতার কোভাচেভস্কি। ছবি: রয়টার্স
ফ্রন্টেক্স বিষয়ে চুক্তি স্বাক্ষরের পর আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ইইউ কমিশনে প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডেয়ার লায়েন এবং উত্তর মেসিডোনিয়ার প্রধানমন্ত্রী দিমিতার কোভাচেভস্কি। ছবি: রয়টার্স

ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং উত্তর মেসিডোনিয়া সীমান্ত ব্যবস্থাপনায় সহযোগিতার বিষয়ে বুধবার একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। চুক্তিতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সীমান্ত সংস্থা ফ্রন্টেক্স সদস্যদের মোতায়েনের বিষয়ে সমঝোতা হয়েছে।

পশ্চিম বলকান রুটে অনিয়মিত অভিবাসীদের আগমন নিয়ে সাম্প্রতিক মাসগুলোতে সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর সাথে আলোচনা চালিয়ে আসছিল জার্মানিসহ পাশ্ববর্তী দেশগুলো। অবশেষে ইউরোপীয় কর্তৃপক্ষ এই বিষয়ে সরাসরি হস্তক্ষেপ করল।  

ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডেয়ার লায়েন এবং উত্তর মেসিডোনিয়ার প্রধানমন্ত্রী দিমিতার কোভাচেভস্কি ২৬ অক্টোবর দেশটির রাজধানী স্কোপজে অভিবাসন বিষয়ে একটি যৌথ সহযোগিতা চুক্তি স্বাক্ষর করেছেন। 

চুক্তি স্বাক্ষরের পর ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট এবং উত্তর মেসিডোনিয়ার প্রধানমন্ত্রী রাজধানীতে একটি যৌথ সংবাদ সম্মেলন করেন।

আরও পড়ুন>>ভুল স্বীকার করে পরিবর্তনের প্রতিশ্রুতি ফ্রন্টেক্সের

সংবাদ সম্মেলনে উরসুলা ফন ডেয়ার লায়েন বলেন, “ইইউ পরিবারের কাছাকাছি যাওয়ার জন্য উত্তর মেসিডোনিয়ার প্রচেষ্টা ফল দিচ্ছে। আলোচনার প্রক্রিয়া গতি পাচ্ছে এবং এটি খুব ভালো কাজ করছে।”


চুক্তির বিষয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে তিনি বলেন, “আমরা আজ ফ্রন্টেক্স বিষয়ক যে চুক্তি স্বাক্ষর করছি তা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এটি অভিবাসনের বিষয়ে আমাদের সহযোগিতাকে শক্তিশালী করে। এই চুক্তিটি শুধুমাত্র মেসেডোনিয়ার ভাষায় অনূদিত হয়নি। সকল ভাষার জন্য সমান পদক্ষেপের অংশ হিসেবে ইইউতে বিদ্যমান ২৪টি ভাষায় চুক্তিটি অনুবাদ করা হয়েছে।”

“ইউক্রেনের বিরুদ্ধে রাশিয়ার যুদ্ধের ফলে সৃষ্ট বৈশ্বিক সংকটের মধ্যে ইইউ উত্তর মেসিডোনিয়ার জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছে”, যোগ করেন ভন ডার লেইন। 

পড়ুন>>শরণার্থীদেরকে অবাধ চলাফেরার স্বাধীনতা দিতে ইইউর প্রতি গ্রিসের আহ্বান

অপরদিকে দিমিতার কোভাচেভস্কি বলেন, “এই চুক্তির জন্য ইইউকে ধন্যবাদ। এখন থেকে অবৈধ অভিবাসনের মতো হুমকির বিরুদ্ধে একসাথে কাজ করা সম্ভব হবে।”

তিনি আরও বলেন, ‘‘আমরা ইইউতে সদস্যপদ নেয়ার ব্যাপারে অগ্রগতি বিষয়ে আলোচনা শুরু করতে পেরে সন্তুষ্ট। ইইউ মানে আরও বিনিয়োগ, কর্মসংস্থান এবং ভাল বেতনের চাকরি।’’

উল্লেখ্য, যুগোস্লাভিয়া থেকে স্বাধীনতার ১৩ বছর পর ২০০৪ সালে ইইউ সদস্য হতে আবেদন জমা দেয় উত্তর মেসিডোনিয়া। 

ইইউ কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডেয়ার লায়েন বর্তমানে বলকান অঞ্চলে ৪ দিনের সফরে আছেন।

আরও পড়ুন>>অভিবাসী স্রোত ঠেকাতে সেনেগাল, মৌরিতানিয়াতে যাবে ফ্রন্টেক্স!

অভিবাসন নিয়ে এই বিশেষ সফরে তিনি ইউরোপীয় ইউনিয়নের বহিঃসীমান্তের নিরাপত্তা উন্নত করতে পশ্চিম বলকান দেশগুলোর সাথে ফ্রন্টেক্সট-এর সহযোগিতা জোরদার করার আশা করছেন।

ফ্রন্টেক্স ইতিমধ্যে আলবেনিয়া, মন্টিনিগ্রো এবং সার্বিয়ার মতো দেশগুলির সাথে যৌথ অভিযান পরিচালনা করছে।

তবে, অভিবাসীদের বেআইনি পুশব্যাকে জড়িত থাকার অভিযোগে ইউরোপীয় গণমাধ্যম এবং এনজিওগুলো দীর্ঘদিন ধরে ফ্রন্টেক্সের কার্যক্রমের সমালোচনা করে আসছে। বিশেষ করে গ্রিস এবং তুরস্কের মধ্যে অবস্থিত স্থল সীমান্তে এবং এজিয়ান সাগরে ফ্রন্টেক্সের কার্যক্রম অত্যন্ত সমালোচিত।


এমএইউ/এআই


 

অন্যান্য প্রতিবেদন