শেঙ্গেন জোনের বহিঃসীমান্তে নিয়মিত নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকে ফ্রন্টেক্স। ছবি: পিকচার এলায়েন্স
শেঙ্গেন জোনের বহিঃসীমান্তে নিয়মিত নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকে ফ্রন্টেক্স। ছবি: পিকচার এলায়েন্স

ইংলিশ চ্যানেলের ফরাসি উপকূলে অনিয়মিত অভিবাসন ঠেকাতে আগামী বছরও আকাশপথে সীমান্ত নজরদারি চালিয়ে যাবে ইইউ বহিঃসীমান্ত সংস্থা ফ্রন্টেক্স। অভিবাসী চাপ থামাতে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে দাবি করেছেন সংস্থাটির পরিচালক আইজা কালনাজা।

ইউরোপীয় সীমান্ত নজরদারি সংস্থা (ফ্রন্টেক্স) আগামী বছরও উত্তর ফ্রান্সের উপকূলীয় এলাকায় তাদের উপস্থিতি বৃদ্ধির ও নজরদারি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। 

ফ্রন্টেক্স-এর নির্বাহী পরিচালক আইজা কালনাজা ১০ নভেম্বর ফরাসি সিনেটে দেয়া এক বক্তব্যে বলেন, চ্যানেলে আকাশপথে সীমান্ত নজরদারির মাধ্যমে আমরা ফরাসি উপকূলে দায়িত্বরত সীমান্ত ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষকে সহায়তা করছি৷ আমরা আগামী বছরেও এটি চালিয়ে যাব।”

আরও পড়ুন>>ইইউ এবং উত্তর মেসিডোনিয়ার মধ্যে অভিবাসন চুক্তি স্বাক্ষর

প্রায় এক বছর আগে ফরাসি উপকূল থেকে যুক্তরাজ্যে পাড়ি দেয়া অভিবাসীদের একটি জাহাজ ডুবে ২৭ অভিবাসী মৃত্যুর ঘটনার পর এই সিদ্ধান্তটি নেয়া হয়েছিল। 

নতুন ঘোষণার মাধ্যমে এই সিদ্ধান্তটি আবারও নবায়ন করল ফ্রন্টেক্স। 

এই সিদ্ধান্তের পক্ষে যুক্তি দিতে গিয়ে আইজা কালনাজা বলেন, “এটি এমন একটি এলাকা যেখানে অভিবাসীর চাপ সবচেয়ে বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে।”

চলতি বছর চ্যানেলে অবৈধ পারাপার রেকর্ড পর্যায়ে পৌঁছেছে। এই এলাকায় কড়া নিরাপত্তাব্যবস্থা ফাঁকি দিয়ে চলতি বছর ইতিমধ্যে ৩৮ হাজারেরও বেশি অভিবাসী ছোট নৌকায় যুক্তরাজ্যে পৌঁছেছেন। ২০২১ সালে চ্যানেলে পাড়ি দেওয়া অভিবাসীর সংখ্যা চিল ২৮ হাজার৷ 

পড়ুন>>ভুল স্বীকার করে পরিবর্তনের প্রতিশ্রুতি ফ্রন্টেক্সের

২০১৯ সালে বরাদ্দকৃত সবচেয়ে বড় বাজেটের পর থেকে ইউরোপীয় ইউনিয়নে ফ্রন্টেক্সের কার্যক্রমে ন্যায্যতা পেয়েছে । 

সাম্প্রতিক বছরগুলিতে ফ্রন্টেক্সের বাজেট ক্রমাগত বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০২০ সালে এর পরিমাণ প্রায় ৩৬০ মিলিয়ন ইউরো এবং ২০২২ সালে ৭৫০ মিলিয়ন ইউরোর বেশি ছাড়িয়েছে।

তবে ইইউ’র এই এজেন্সিটি বেআইনি পুশব্যাকের অভিযোগে বারবার সমালোচিত হয়েছে। ইউরোপীয় গণমাধ্যম ও এনজিওগুলো নিয়মিত ফ্রন্টেক্সের বিভিন্ন নেতিবাচক কার্যক্রমের সমালোচনা করে আসছে। 

এছাড়া, ইউরোপীয় অ্যান্টি-ফ্রড অফিস (ওলাফ) এর একটি প্রতিবেদনেও সংস্থাটির বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়। যার ফলশ্রুতিতে পদত্যাগে বাধ্য হোন ফ্রন্টেক্সের সাবেক নির্বাহী ফাব্রিস লেজের। 

আরও পড়ুন>>‘পুশব্যাকে জড়িত থাকার ঘটনা গোপন করেছে ইইউ সীমান্ত পুলিশ’

আকাশপথে ফ্রন্টেক্সের নজরদারি ছাড়াও চ্যানেল উপকুলের বিভিন্ন সৈকতে সারা বছর পুলিশি টহল মোতায়েন থাকে

নতুন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনক দ্রুত ফ্রান্সের সাথে একটি চুক্তিতে আসতে চান যেন সীমান্তের ফরাসি উপকূলে ব্রিটিশ সৈন্যদের উপস্থিতি নিশ্চিত করে ছোট অভিবাসী নৌকা আটকে দেয়া যায়। 



 এমএইউ/আরআর (ইনফোমাইগ্রেন্টস ডেস্ক)


 

অন্যান্য প্রতিবেদন