১৪ নভেম্বর,হাঙ্গেরি পুলিশের অভিযানে সন্দেহভাজন পাচারকারীদের আটকের দৃশ্য। ছবি: পিকচার এলায়েন্স
 আটকের দৃশ্য।
১৪ নভেম্বর,হাঙ্গেরি পুলিশের অভিযানে সন্দেহভাজন পাচারকারীদের আটকের দৃশ্য। ছবি: পিকচার এলায়েন্স আটকের দৃশ্য।

হাঙ্গেরির রাজধানী বুদাপেস্টের শহরতলী থেকে সোমবার ২১ জন অনিয়মিত অভিবাসী এবং দুই সন্দেহভাজন মানব পাচারকারীকে গ্রেপ্তার করেছে দেশটির পুলিশ। গ্রেপ্তারের আগে এই দুই ব্যক্তিকে ধাওয়া করলে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় বলে জানায় কর্তৃপক্ষ।

হাঙ্গেরি পুলিশ সোমবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, অভিবাসী বোঝাই একটি ভ্যান পরিচালনার দায়িত্বে থাকা দুই সন্দেহভাজনকে বুদাপেস্টের শহরতলীর একটি এলাকায় ধাওয়া করে পুলিশ। উক্ত দুই ব্যক্তি এক পর্যায়ে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি চালায়। 

পুলিশ জানায়, রাজধানী বুদাপেস্টের প্রায় ২০ দক্ষিণ-পূর্বে ইনার্কস শহরের কাছে এই দুই ব্যক্তিকে ধাওয়া করা শুরু হয়েছিল। কিন্তু ভ্যানের চালক ও তার সহযোগী ব্যক্তি পুলিশের আদেশ মানতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিল। প্রাথমিকভাবে তাদেরকে একটি স্থানীয় মহাসড়কের পাশে থামতে বলা হয়েছিল। গাড়িটি হাঙ্গেরিতে নিবন্ধিত একটি নম্বর প্লেট ব্যবহার করছিল।

আরও পড়ুন>>‘এখানে অভিবাসীর চেয়ে দালালের সংখ্যা বেশি’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, এক পর্যায়ে গাড়িটিকে ধাওয়া করে বুদাপেস্ট শহরের উপকণ্ঠে থামাতে সক্ষম হয় হাঙ্গেরি পুলিশের একটি দল। গাড়ি থামার পরে দুই সন্দেহভাজন আবারও নতুন করে পুলিশের দিকে গুলি চালিয়ে পার্শ্ববর্তী জঙ্গলে পালিয়ে যায়।

পরবর্তীতে পুলিশ পুরো এলাকাটি ঘেরাও করে এক ঘণ্টা ধরে অভিযান চালালে সেখান থেকে দুই সন্দেহভাজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তবে ধাওয়া ও গুলি বিনিময়ের ঘটনায় কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। 

বুদাপেস্ট পুলিশের হাতে আটক হওয়া এক সন্দেহভাজন পাচারকারী। ছবি: পিকচার এলায়েন্স
বুদাপেস্ট পুলিশের হাতে আটক হওয়া এক সন্দেহভাজন পাচারকারী। ছবি: পিকচার এলায়েন্স


পাশাপাশি তাদের পরিচালিত গাড়িটিকেও জব্দ করে পুলিশ। গাড়ির ভেতর থেকে থেকে হাঙ্গেরিতে অনিয়মিত উপায়ে প্রবেশ করা ২১ জন অনিয়মিত অভিবাসীকেও আটক করা হয়। 

পড়ুন>>হাঙ্গেরি: চলতি বছর দুই লাখের বেশি অনিয়মিত অভিবাসী আটক

হাঙ্গেরি পুলিশ জানায়, আটক হওয়া দুই সন্দেহভাজন পাচারকারী ইরাকের নাগরিক। তাদেরকে বুদাপেস্ট পুলিশের সন্ত্রাসবিরোধী ইউনিটের হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। এছাড়া আটক হওয়া ২১ জন অনথিভুক্ত অভিবাসী নিজেদের সিরীয় নাগরিক বলে দাবি করেছে। 

দুই সন্দেহভাজন ইরাকি মানবপাচারকারীদের বিরুদ্ধে মানবপাচার ও পুলিশ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগে বিচারের মুখোমুখি করা হবে। 

ইউরোপীয় সীমান্ত নজরদারি সংস্থা ফ্রন্টেক্সের হিসেব অনুযায়ী, ২০২২ সালের প্রথমার্ধ থেকে বলকান রুট খুব সক্রিয় হয়ে উঠেছে। ইতিমধ্যে এই রুটে ৭০ হাজারেরও বেশি বেআইনি সীমান্ত পারাপারের চেষ্টার ঘটনা নথিভুক্ত করা হয়েছে যা ২০২১ সালের তুলনায় ২০৫ শতাংশ বেশি। 

আরও পড়ুন>>অভিবাসীর মাথা ন্যাড়া করে দিল হাঙ্গেরি পুলিশ!

চলতি বছরের অক্টোবরের শুরুতে হাঙ্গেরি, অস্ট্রিয়া এবং সার্বিয়া তাদের নিজ নিজ দেশে অভিবাসী আগমনের সংখ্যা হ্রাস করার লক্ষ্যে একটি যৌথ অ্যাকশন প্ল্যানের ঘোষণা দেয়।

এই অ্যাকশন প্ল্যানের আওতায় বলকান দেশগুলো নিজ নিজ সীমান্তে বর্ধিত পুলিশ এবং উত্তর মেসিডোনিয়ার ও সার্বিয়ায় আসা ভবিষ্যতে অভিবাসীদের তাদের মূল দেশে ফেরত পাঠানোর ব্যাপারে সহায়তার কথাও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

হাঙ্গেরির অভিবাসী বিরোধী কট্টর ডানপন্থি রাষ্ট্রপতি ভিক্টর অরবান দীর্ঘদিন ধরে অভিবাসন বিষয়ে একটি সাধারণ রাজনৈতিক পরিবর্তনের জন্য ইইউর প্রতি আহ্বান জানিয়ে আসছেন।

পড়ুন>>হাঙ্গেরিতে ইউক্রেনীয় শরণার্থীরা স্বাগত, বাকিরা?

তিনি ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাইরে কিছু ‘হট স্পট’ কেন্দ্র তৈরির পরামর্শ দিয়েছেন, যাতে করে আশ্রয়প্রার্থীদের আশ্রয়ের আবেদনের প্রক্রিয়া সেখানে সম্পন্ন করা যায়।


এমএইউ/এআই




 

অন্যান্য প্রতিবেদন