ফাইল ফটো: জার্মানিতে দক্ষ কর্মীর ঘাটতি ক্রমশ বাড়ছে | ছবি: গ্যাটি ইমেজেস
ফাইল ফটো: জার্মানিতে দক্ষ কর্মীর ঘাটতি ক্রমশ বাড়ছে | ছবি: গ্যাটি ইমেজেস

দক্ষ কর্মীর সংকট কাটাতে শীঘ্রই ‘গ্রিন কার্ড’ চালুর পরিকল্পনা করছে জার্মানি৷ ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত নয় এমন দেশের মানুষরা এই কার্ডের সুযোগ নিয়ে জার্মানিতে কাজ খুঁজতে আসতে পারবেন৷ তবে, আইনটি এখনো অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে৷

জার্মানির শ্রমবাজারে দক্ষ কর্মী ঘাটতি ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে৷ বিদেশ থেকে কর্মী এনে এই ঘাটতি পূরণ করা কি সম্ভব হবে? বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, জার্মানি শ্রমবাজার ঠিকঠাক রাখতে প্রতিবছর চার লাখ বিদেশি কর্মী আনা প্রয়োজন৷ 

ইন্সটিটিউট ফর এমপ্লয়মেন্ট রিসার্চ এর এহসান ভালিজাদেহ এই বিষয়ে বলেন, ‘‘‘বেবি বুমার’ প্রজন্ম ক্রমশ অবসরে যাওয়ায় শ্রমবাজার খুব সঙ্কুচিত হয়ে আসছে৷ ফলে আমাদের অভিবাসী প্রয়োজন৷ জার্মানির প্রতিবছর চার লাখ বিদেশি কর্মী প্রয়োজন৷’’


দক্ষ কর্মীর এই ঘাটতি মেটাতে জার্মানি তাই ‘শ্যচেনকার্টে’ বা ‘অপরচুনিটি কার্ড’ চালু করার চিন্তা করছে৷ এটি ‘গ্রিন কার্ড’ হিসেবেও পরিচিত৷

এই কার্ড বিদেশিদেরকে চাকুরি খুঁজতে জার্মানি আসার সুযোগ দেবে৷ অর্থাৎ কোনো রকম চাকুরির নিশ্চয়তা ছাড়াই তারা জার্মানিতে আসতে পারবেন৷ 

তবে, ‘গ্রিন কার্ড’ পেতে হলে একজন বিদেশিকে চারটি শর্তের যেকোনো তিনটি পূরণ করতে হবে৷ এগুলো হচ্ছে: 

০১. বিশ্ববিদ্যালয় ডিগ্রি বা প্রফেশনাল কোয়ালিফিকেশন থাকতে হবে

০২. কমপক্ষে তিন বছর কাজের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে

০৩. জার্মান ভাষা জানতে হবে বা অতীতে জার্মানিতে থেকেছেন এমন প্রমাণ দিতে হবে 

০৪. বয়স ৩৫ বছরের কম হতে হবে 

‘গ্রিন কার্ড’ পেতে আগ্রহী বিদেশিদেরকে এসব শর্তের মধ্য থেকে তিনটি শর্ত পূরণের পাশাপাশি এটাও প্রমাণ করতে হবে যে জার্মানিতে চাকুরি খোঁজার জন্য থাকার সময়টাতে তিনি নিজের খরচ নিজেই বহন করতে পারবেন৷ 

আর চাকুরি যদি না পান, তাহলে একসময় জার্মানি ছেড়ে চলে যেতে হবে৷  

জার্মানির শ্রমমন্ত্রী হ্যুবেয়ার্টস হাইল ‘গ্রিন কার্ড’ প্রসঙ্গে বলেছেন যে, ‘‘এটা হচ্ছে যোগ্য অভিবাসন, এবং এক অ-আমলাতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার ব্যাপার৷ ফলে এটা বলা গুরুত্বপূর্ণ যে যারা অপরচুনিটি কার্ড পাবেন তারা যখন এখানে থাকবেন তখন রোজগারে সক্ষম হবেন৷’’ 

বলে রাখা ভালো, জার্মানির ‘গ্রিন কার্ড’ চালু করার বিষয়টি এখনো প্রক্রিয়াধীন আছে৷ চূড়ান্ত অনুমোদনের আগ পর্যন্ত তাই কেউ এই কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন না৷ 

জার্মান শ্রমমন্ত্রণালয় বর্তমানে এসংক্রান্ত আইনটির খসড়া প্রস্তুত করছে৷ শীঘ্রই সেটি অনুমোদনের জন্য সংসদে তোলা হবে৷ 

জার্মানির এই গ্রিন কার্ড চালুর বিষয়টি আপনি কীভাবে দেখছেন? দক্ষ বিদেশি কর্মীরা কি এই কার্ড নিতে আগ্রহী হবেন? আপনার মতামত এবং প্রশ্ন লিখুন এই লিংকে৷ 

 

অন্যান্য প্রতিবেদন