ফ্রান্স থেকে যুক্তরাজ্যে গাড়িতে পুরনো আসবাবপত্রের ভেতর লুকিয়ে অভিবাসী পাচারের চেষ্টার দায়ে সাজা পেয়েছেন এক ব্রিটিশ দম্পতি। ছবি: ব্রিটিশ হোম অফিস
ফ্রান্স থেকে যুক্তরাজ্যে গাড়িতে পুরনো আসবাবপত্রের ভেতর লুকিয়ে অভিবাসী পাচারের চেষ্টার দায়ে সাজা পেয়েছেন এক ব্রিটিশ দম্পতি। ছবি: ব্রিটিশ হোম অফিস

ফ্রান্স থেকে সোফায় লুকিয়ে অভিবাসী পাচারের দায়ে ব্রিটিশ দম্পতি নিকোলাস এবং পামেলা ফুলউডকে কারাদণ্ড দিয়েছে যুক্তরাজ্যের আদালত। এই দম্পতি ছাড়াও আজাদ আহমাদি নামক এক ব্যক্তিকেও সাজা প্রদান করেছে ক্যান্টারবেরি আদালত।

২০ ফেব্রুয়ারি, সোমবার, ৪৮ বছর বয়সি নিকোলাস ফুলউড এবং তার স্ত্রী ৪৫ বছর বয়সি পামেলা ফুলউডকে যথাক্রমে তিন ও দুই বছরের কারাদণ্ড প্রদান করেছে যুক্তরাজ্যের ক্যান্টারবেরির আদালত। 

তাদের সাথে ৩১ বছর বয়সি আজাদ আহমাদিকে সাড়ে চার বছরের সাজা দিয়েছে আদালত। এই তিন ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ তারা যুক্তরাজ্যে পাচারের জন্য ফ্রান্স থেকে যাত্রার আগে অভিবাসীদের সোফায় লুকিয়ে রেখেছিলেন।  

আরও পড়ুন>> যুক্তরাজ্য: আশ্রয়প্রার্থীদের হোটেলের বাইরে সহিংসতা, গ্রেপ্তার ১৫

ব্রিটিশ হোম অফিসের ক্রিমিনাল অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল ইনভেস্টিগেশনস (সিএফআই) ইউনিট এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, “সিএফআই এর তদন্তের পর এই তিনজনকে অবৈধ অভিবাসনে সহায়তার জন্য দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে।”

যুক্তরাজ্যের অভিবাসন মন্ত্রী রবার্ট জেনরিক বলেন, “আমরা মানবপাচারের মতো ঘৃণ্য ব্যবসায় জড়িত অপরাধী চক্রকে বিচারের আওতায় আনতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।”

এভাবে আসবাবপত্রের ভেতর অভিবাসীদের লুকিয়ে পাচারের চেষ্টা করা হয়। ছবি: হোম অফিস
এভাবে আসবাবপত্রের ভেতর অভিবাসীদের লুকিয়ে পাচারের চেষ্টা করা হয়। ছবি: হোম অফিস


হোম অফিসের অপরাধ ও আর্থিক তদন্ত বিষয়ক উপ-পরিচালক ক্রিস ফস্টার বলেন, ‘যদিও অপরাধীরা পরিস্থিতির সাথে মানব পাচারের পদ্ধতিকে খাপ খাইয়ে নেয়, কিন্তু আমাদের দলও জানে কীভাবে তাদের বিচারের আওতায় আনতে দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করতে হয়।”

পড়ুন>>যুক্তরাজ্যে বিদেশী অপরাধীদের ‘ডিপোর্ট’ সহজ করতে নতুন আইন

আসামিরা চার বছর ধরে রায়ের অপেক্ষায় ছিল। পামেলা এবং নিকোলাস ফুলউডকে ২০১৯ সালের ৫ জানুয়ারি ফ্রান্সের উত্তরের একটি জায়গা থেকে পুজো ব্র্যান্ডের একটি গাড়ি চালানো অবস্থায় গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।

ফ্রান্সে তাদের উপস্থিতি সম্পর্কে ব্রিটিশ সীমান্ত পুলিশ কর্মকর্তাদের জিজ্ঞাসা করা হলে তারা জানায়, এই ব্যক্তিরা উত্তর ফ্রান্সের লিল শহর থেকে আসবাবপত্র নিয়ে যুক্তরাজ্যে ফিরে যাচ্ছিল। সেই সময় তাদের সাথে তাদের ১৩ বছর বয়সি মেয়েও ছিল। 

আরও পড়ুন>> ইংল্যান্ড থেকে ফ্রান্সে অভিবাসী ‘পাচার’, ব্যক্তির কারাদণ্ড!

ভ্যানের পিছনে তল্লাশি করার সময় পুলিশ দুটি সোফায় লুকিয়ে থাকা দুই ইরাকি অভিবাসীকে দেখতে পায়।

নিকোলাস ফুলউউড আদালতের কাছে নিজের দোষ স্বীকার করেছিলেন। তবে এই অভিযোগে তিনি এবারই প্রথম গ্রেপ্তার হলেন না৷ ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে একটি ভ্যানে পাঁচজনকে পাচারের চেষ্টার পর এই ব্রিটিশ নাগরিককে গ্রেপ্তার করেছিল ফরাসি কর্তৃপক্ষ।

তদন্তের সময়, অন্য এক সন্দেহভাজন ব্যক্তিকেও শনাক্ত করা হয়। যার নাম আজাদ আহমাদি। যুক্তরাজ্যের কেন্দ্রে অবস্থিত ডার্বিতে একটি গাড়ি পরিষ্কার কোম্পানির মালিক তিনি।

পড়ুন>>যুক্তরাজ্যের শ্রমবাজারে অনিয়মিত অভিবাসীদের রুখতে ‘টাস্কফোর্স’

ফুলউড দম্পতির সাথে তার সম্পর্ক ওয়্যারট্যাপিংয়ের মাধ্যমে শনাক্ত করা হয়েছে। তার এবং ফুলউড দম্পতির মধ্যে সর্বমোট ৪,২৮০ পাউন্ডের আর্থিক লেনদেন হয়েছিল বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে সংবাদ মাধ্যম বিবিসি।

পুরনো আসবাবপত্রের ভেতর লুকিয়ে অভিবাসী পাচারের ঘটনা এটি প্রথম নয়। এর আগে বেশ কয়েকবার এই ধরনের পাচারের ঘটনা উন্মোচন করে ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য ও বেলজিয়াম কর্তৃপক্ষ। 


এমএইউ/এডিকে




 

অন্যান্য প্রতিবেদন